সর্বশেষ আপডেট : ৫ ঘন্টা আগে
রবিবার, ১৯ জানুয়ারী ২০২০ খ্রীষ্টাব্দ | ৬ মাঘ ১৪২৬ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET

ওসমানী বিমানবন্দরে প্রবাসীর ৭শ দিরহাম হাতিয়ে নিলো নারী আনসার সদস্য

মারুফ হাসান:

সিলেট ওসমানী আন্তর্জাতিক বিমান বন্দরে দুবাই প্রবাসী এক যাত্রীর কাছ থেকে ৭শ দিরহাম হাতিয়ে নেয়ার অভিযোগ উঠেছে এক নারী আনসার সদস্যের বিরুদ্ধে। এ বিষয়ে প্রতিকার চেয়ে লাভ হয়নি ওই প্রবাসীর, উল্টো তাকে শাস্তির ভয় দেখানো হয়েছে।
কানাইঘাটের ব্রাহ্মন গ্রামের বাসিন্দা আব্দুল হান্নানের প্রবাসী পুত্র মো. মাসুম উদ্দিন প্রায় ৮ বছর থেকে দুবাইতে বসবাস করছেন। এ পর্যন্ত ৩ বার দেশে আসা যাওয়া করার সুযোগ হয়েছে তার। গত ১লা জানুয়ারি দেশ থেকে কর্মস্থলে ফেরার দিন ছিল মাসুমের। স্বজনদের ভেজা চোখ মুছে দিয়ে বিদায় নিয়ে ওসমানী বিমান বন্দরে প্রবেশ করেন তিনি। বাংলাদেশ বিমানের ১২টা ২০ মিনিটের ফ্লাইটটি তাকে নিয়ে উড়াল দেয় দুপুর ১টায়। তাঁর আগেই ঘটে যায় অনাকাঙ্খিত সেই ঘটনা। নারী আনসার সদস্য পারভীন তার মানি ব্যাগ থেকে হাতিয়ে নেন ৭শ দিরহাম যা বাংলাদেশী টাকায় দাড়ায় (৪ জানুয়ারির বাজার দর অনুযায়ী) প্রায় ১৬ হাজার ১৬৫ টাকা ৬ পয়সা। তাৎক্ষণিক প্রতিকার চেয়েও কোনো লাভ হয়নি বরং তাকেই শাস্তির আওতায় আনার হুমকি দেন দুই আনসার সদস্য। নিজের শহরে, নিজেদের এয়ারপোর্টে এরকম দু:খজনক ঘটনার শিকার হয়ে সাংবাদিক সহ সর্বমহলের সহযোগিতা চেয়ে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে একটি পোস্ট দিয়েছেন প্রবাসী মাসুম। ইতোমধ্যে পোস্টটি ভাইরাল হয়ে যায় এবং সর্বমহলে নিন্দার ঝড় উঠে।

ফেইসবুক পোস্টে মাসুম যা লিখেছেন পাঠকদের জন্য তা হুবহু তুলে ধরা হল:

গতপরশু ০১ জানুয়ারি সিলেট ওসমানী আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরের ভেতরের ঘটনা। বোডিং পাসের পর নির্ধারিত চেকিংয়ে আমার মোবাইল, মানিব্যাগ এবং হাতের ব্যাগ স্ক্যানিং মেশিনে রেখে আমি সামনের দিকে যাচ্ছিলাম। পেছনে তাকাতেই দেখলাম একটা মেয়ে আনসার সদস্য আমার মানিব্যাগ হাতে নিয়েছে এবং কয়েক সেকেন্ডের মধ্যে আবার রেখে দিয়েছে। চেকিং শেষে এপাশ থেকে ওপাশে যখন জিনিসগুলো হাতে ফিরে পেলাম, তখন মানিব্যাগ চেক করে দেখি ৭০০ দিরহাম উদাও! যা বাংলাদেশী টাকায় ১৭০০০ হাজার টাকা হবে।
মুহূর্তেই এখানকার কর্মকর্তাদের বললাম; ‘এই আনসার মেয়েটা আমার টাকা চুরি করেছে, এখনই সার্চ করলে দেখতে পারবেন’। তারা বললো; আমার নাকি কোথাও ভুল হচ্ছে, এই মেয়েটা এমন করতে পারে না। উপর মহলের নির্দেশ ছাড়া নাকি মেয়েটিকে চেক করা যাবে না। তাছাড়া আমি মেয়েটার উপর অভিযোগ করায় আমার ফ্লাইট বাতিল কিংবা শাস্তিও হতে পারে বলে হুমকি দিলেন ২/১ জন কর্মকর্তা।
আমি আমার অনড় অবস্থানে থেকে সিসি ক্যামেরা চেক করে দেখাতে বললাম। প্রথমে না করে, পরে দুজন আনসার সদস্য নিয়ে গেলেন আমায় সিসি ক্যামেরা রুমে। তারা মালামাল রিসিভের সাইডের ক্যামেরার ভিডিও ফুটেজ আমাকে দেখালো, কিন্তু যে পাশের ক্যামেরার সামনে চুরি হয়েছে সেটা আমাকে দেখালো না। তাদেরকে সেই ক্যামেরার ভিডিও ফুটেজ দেখাতে বললে, তারা আমাকে বলে ওই ক্যামেরা তাদের আন্ডারে নয়, এই ক্যামেরা চেক করতে হলে উপরের নির্দেশ ছাড়া কোনোভাবেই দেখানো যাবে না। আমার সময়ও কমে গেছে, ফ্লাইট এর টাইম একেবারে নিকটে, কি করবো ভেবে পাচ্ছিলাম না। পরক্ষণে তারা বললো আপনার কোন আত্মীয়ের নাম্বার দেন, আমরা টাকাটা পরবর্তীতে পেলে পৌছে দেবো।
আজ দুইদিন গত হলো। এখনো তাদের কাছ থেকে কোন যোগাযোগ করা হয়নি।
আমার মানিব্যাগ চুরি করা আনসার সদস্যটির নাম পারভীন, বয়স আনুমানিক ২৪/২৫ হবে। আর দুইজন আনসার কর্মকর্তা হচ্ছেন এস.এম. জহির এবং হারুন।
দুঃখ লাগে কেবল এটা ভেবে যে, নিজের চিরচেনা সিলেট এয়ারপোর্টে দিনে-দুপুরে যাদেরকে সরকার জনগণের রক্ষণাবেক্ষণের নিয়োগ করলো, তারাই চুরির মতো জঘণ্য কাজ করতে পারলো? আর কেমন করে তার সিনিয়ররা চোরের পক্ষে সাফাই গেয়ে গেলো?

বিষয়টি নিয়ে এ প্রতিবেদকের সাথে কথা হয় ওসমানী বিমানবন্দরের ম্যানেজার হাফিজ আহমদের সাথে। তিনি বলেন, প্রবাসী মাসুমের ফেইসবুক পোস্টটি আমি দেখেছি। আমি বুঝতে পারছিনা উনি কেন এমন অভিযোগ করলেন। ঘটনার দিন মাসুম আমার কাছে এসেছিলেন। আমরা তাৎক্ষণিক তার অভিযোগ খতিয়ে দেখেছি। সিসি ক্যামেরার ফুটেজ যাচাই করেছি। কিন্তু সেরকম কিছু পাওয়া যায়নি।
যেহেতু আপনাদের নিরাপত্তাকর্মীর উপর এমন একটা অভিযোগ উঠেছে সেই ক্ষেত্রে আপনাদের কি উচিত নয় বিষয়টি তদন্ত করে দেখা এই প্রশ্নের জবাবে হাফিজ বলেন, মাসুম কোনো লিখিত অভিযোগ দেননি। তাছাড়া তাৎক্ষণিক আমাদের নেয়া পদক্ষেপে উনি সন্তুষ্টি প্রকাশ করেছিলেন। এখন কেন তিনি এমন অভিযোগ করছেন আমার বুঝে আসছে না।

এ বিভাগের অন্যান্য খবর

নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৭

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি: মকিস মনসুর আহমদ
সম্পাদক ও প্রকাশক: খন্দকার আব্দুর রহিম, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
অফিস: ৯/আই, ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট।
ফোন: ০৮২১-৭২৬৫২৭, মোবাইল: ০১৭১৭৬৮১২১৪
ই-মেইল: [email protected]

Developed by: