সর্বশেষ আপডেট : ৩ ঘন্টা আগে
বৃহস্পতিবার, ৯ এপ্রিল ২০২০ খ্রীষ্টাব্দ | ২৬ চৈত্র ১৪২৬ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET

মেঘালয়ে কারফিউ, তামাবিল-ডাউকি দিয়ে ভ্রমণকারীদের যাতায়াত বন্ধ


ভারতের মেঘালয় রাজ্যে কারফিউ জারির কারণে সিলেটের তামাবিল দিয়ে ভ্রমণকারীদের যাতায়াত

সাময়িকভাবে বন্ধ রাখা হয়েছে। আজ শুক্রবার বেলা ১১টায় আটজন বাংলাদেশি সীমান্ত পার হতে গেলে ভারতের ডাউকি থেকে তাঁদের ফেরত পাঠানো হয়। এরপর ডাউকি সীমান্তে কর্মরত ভারতীয় ইমিগ্রেশন বিভাগের একদল প্রতিনিধি তামাবিলে এসে ভারত ভ্রমণকারীদের যাতায়াত আপাতত বন্ধ রাখতে বলেন।

তামাবিল ইমিগ্রেশন ল্যান্ড অ্যান্ড সি পোর্টের এসপি মো. মনিরুজ্জামান প্রথম আলোকে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। তিনি জানিয়েছেন, বাংলাদেশি নাগরিকদের নিরাপত্তার কথা বিবেচনায় নিয়ে সীমান্ত পারাপার বন্ধ রাখতে বলা হয়েছে।

বাংলাদেশ থেকে ভারতের মেঘালয় রাজ্যের শিলংয়ে বেড়াতে যাওয়া মানুষ সিলেটের গোয়াইনঘাট উপজেলার তামাবিল দিয়ে ভারতে যান। শুক্রবার বেলা ১১টায় প্রথম ধাপে আটজনের ইমিগ্রেশন সম্পন্ন করে পাঠানো হলে ডাউকি ইমিগ্রেশন থেকে তাঁদের ফিরিয়ে দেওয়া হয়। তামাবিল ইমিগ্রেশন থেকে যোগাযোগ করা হলে ডাউকি থেকে একদল প্রতিনিধি এসে মেঘালয়ে কারফিউ জারির বিষয়টি জানিয়ে ইমিগ্রেশন কার্যক্রম আপাতত বন্ধ রাখার কথা বলেন। এরপর থেকে ইমিগ্রেশন কার্যক্রম বন্ধ রয়েছে।

এদিকে শুক্রবার দুপুর পর্যন্ত তামাবিল স্থলবন্দর দিয়ে পণ্য পরিবহন স্বাভাবিক থাকলেও বিকেল থেকে বন্ধ রয়েছে। পরিস্থিতির উন্নতি না হলে শনিবার পণ্য পরিবহন পুরোপুরি বন্ধ থাকতে পারে বলে জানিয়েছেন তামাবিল স্থলবন্দরে কর্মরত বাংলাদেশি কর্মকর্তারা।

তামাবিল ইমিগ্রেশন পুলিশের একজন পরিদর্শক জানান, ভারতের ডাউকি কাস্টমসে কর্মরত কয়েকজন কর্মকর্তার মাধ্যমে জানা গেছে, কারফিউর কারণে শিলংয়ে হোটেল-দোকানপাট বন্ধ আছে। পর্যটকদের নিরাপত্তার কথা ভেবে যেতে দেওয়া হচ্ছে না। কারফিউ তুলে নেওয়ার আগপর্যন্ত পরিস্থিতি এ রকমই থাকবে বলে তাঁরা জানিয়েছেন।




নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৭

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি: মকিস মনসুর আহমদ
সম্পাদক ও প্রকাশক: খন্দকার আব্দুর রহিম, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
অফিস: ৯/আই, ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট।
ফোন: ০৮২১-৭২৬৫২৭, মোবাইল: ০১৭১৭৬৮১২১৪
ই-মেইল: [email protected]

Developed by: