সর্বশেষ আপডেট : ৫ ঘন্টা আগে
শুক্রবার, ১৭ জানুয়ারী ২০২০ খ্রীষ্টাব্দ | ৪ মাঘ ১৪২৬ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET

ফসলরক্ষা বাঁধে নির্মিত হচ্ছে সড়ক, শংকায় কৃষকরা

সুনামগঞ্জ সংবাদদাতা :
ধর্মপাশায় কাইলানী ও টগার হাওরে ফসলরক্ষা বাঁধের উপর নির্মাণ করা হচ্ছে এলজিইডি সড়ক। গেল বছর এ দু’টি হাওরে ফসলরক্ষা বাঁধ নির্মাণ করেছে পানি উন্নয়ন বোর্ড। দুই সপ্তাহ ধরে বাঁধ দু’টি কেটে নির্বিঘ্নে নির্মাণ করা হচ্ছে সড়ক। প্রায় ১০ কিলোমিটার এলাকাজুড়ে বাঁধের উচ্চতার চাইতে সড়কের উচ্চতা নিচু করে নির্মাণ করা হচ্ছে। এমনভাবে নিচু করে বাঁধ কেটে সড়ক নির্মাণ হলে বন্যার পানি ঢুকে দুই হাওরের ফসল তলিয়ে যাওয়ার আশংকা করছেন কৃষকরা।
এলাকাবাসী সূত্রে জানা যায়, উপজেলার মধ্যনগর ইউনিয়নের সম্পদপুর গ্রামের সামনে কাইলানী হাওরের ফসলরক্ষা বাঁধের দৈর্ঘ্য ৩ কিলোমিটার। চামারদানী ইউনিয়নের টেবিরকোনা গ্রামের সামনে টগার হাওরের ফসলরক্ষা বাঁধটির দৈর্ঘ্য প্রায় ৭ কিলোমিটার। এ দু’টি বাঁধে এলজিইডি ডুবন্ত সড়ক নির্মাণ কাজ করছে। কাজটি এমনভাবে করা হচ্ছে যে, দুই ফুট মাটি কেটে বাঁধের উচ্চতা নিচু করে সড়ক নির্মাণ হচ্ছে। এই কাজের ব্যাপারে পাউবোর কাছ থেকে কোনো অনুমতি নেওয়া হয়নি বলে অভিযোগ করেছেন সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তারা। হাওরের কৃষক মিঠু মিয়া জানান, সড়কের কাজে বাঁধা দিলে মানছে না নির্মাণকারীরা। বরং আরো তড়িৎ গতিতে নিচু করে বাঁধ কেটে সড়ক নির্মাণ কাজ অব্যাহত রেখেছে। দ্রুত কাজ বন্ধ না করা হলে নিশ্চিত বন্যার পানি ঢুকে হাওরের ফসলহানী ঘটাবে। ধর্মপাশা উপজেলা পাউবো’র উপ-সহকারী প্রকৌশলী মাহমুদুল ইসলাম জানান, আমাদের অনুমতি না নিয়ে এলজিইডি এ দু’টি হাওরে অপরিকল্পিতভাবে সড়ক নির্মাণ করে যাচ্ছে। বাঁধ দু’টিতে ডুবন্ত সড়ক নির্মাণের কোন প্রয়োজন নেই। এলজিইডি এ পদক্ষেপ থেকে সরে না এলে ফসলহানীর আশংকা রয়েছে। এলজিইডির উপজেলা প্রকৌশলী মো. আরিফ উল্লাহ খান বলেন, ‘কোথাও ফসলরক্ষা বাঁধ কেটে ডুবন্ত সড়ক নির্মাণ করা হচ্ছে না। যেখানে সড়ক নির্মাণের কাজ করছি সেখানে এলজিইডির এলাইনমেন্টের মধ্যেই রয়েছে। যদি কোথাও পাউবো ও এলজিইডির এলাইনমেন্ট এক হয়ে যায়, তাহলে ফসলরক্ষা বাঁধের উচ্চতা ঠিক রেখেই ডুবন্ত সড়ক নির্মাণকাজ করা হবে।
উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোহাম্মদ ওবায়দুর রহমান বলেন, এভাবে সড়ক নির্মাণ হলে হাওরের আগামী বোরো ফসল অনেকটাই অনিশ্চয়তার মধ্যে থাকবে বলে এলাকার কৃষকেরা জানিয়েছেন। সড়কের আগে হাওরের ফসলরক্ষায় বেশি গুরুত্ব দিতে হবে। বিষয়টি শিগগিরই ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে লিখিতভাবে জানানো হবে।

এ বিভাগের অন্যান্য খবর

নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৭

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি: মকিস মনসুর আহমদ
সম্পাদক ও প্রকাশক: খন্দকার আব্দুর রহিম, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
অফিস: ৯/আই, ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট।
ফোন: ০৮২১-৭২৬৫২৭, মোবাইল: ০১৭১৭৬৮১২১৪
ই-মেইল: [email protected]

Developed by: