সর্বশেষ আপডেট : ৩ ঘন্টা আগে
মঙ্গলবার, ৭ জুলাই ২০২০ খ্রীষ্টাব্দ | ২৩ আষাঢ় ১৪২৭ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET
Fapperman.com DoEscorts

ভর্তি পরীক্ষা না দিয়েই মেধাতালিকায় ১২তম

নিউজ ডেস্ক:: কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়ে ২০১৯-২০ শিক্ষাবর্ষের স্নাতক প্রথম বর্ষের ভর্তি পরীক্ষায় অংশগ্রহণ ছাড়াই মেধাতালিকায় ১২তম হওয়ার অভিযোগ উঠেছে। বিশ্ববিদ্যালয়ের কলা ও মানবিক অনুষদভুক্ত ‘বি’ ইউনিটের ভর্তি পরীক্ষায় এক পরীক্ষার্থীর ক্ষেত্রে এমন ঘটনা ঘটেছে বলে জানা গেছে।

এ ঘটনায় ৩ সদস্য বিশিষ্ট কমিটি গঠন করা হয়েছে। তদন্ত কমিটির রিপোর্ট প্রকাশিত না হওয়া পর্যন্ত ‘বি’ ইউনিটের ভর্তি কার্যক্রম স্থগিত করা হয়েছে।

শনিবার বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিস্ট্রার (অতিরিক্ত দায়িত্ব) এবং ভর্তি পরীক্ষা কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য সচিব অধ্যাপক ড. মো. আবু তাহের ভর্তি কার্যক্রম স্থগিতের বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

তিনি বলেন, ঘটনাটি তদন্তে একটা কমিটি করা হয়েছে। কমিটিকে আগামী ৩ দিনের মধ্যে তদন্ত শেষ করে প্রতিবেদন দিতে বলা হয়েছে। তদন্ত রির্পোট আসা পর্যন্ত ‘বি’ ইউনিটের ভর্তি কার্যক্রম স্থগিত থাকবে।

জানা গেছে, গত ৮ নভেম্বর বিকেল ০৩ টায় কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়ে ২০১৯-২০ শিক্ষাবর্ষের স্নাতক প্রথম বর্ষের ‘বি’ ইউনিটের ভর্তি পরীক্ষায় একজন আবেদনকারী ছিলেন মেধাতালিকায় ১২ তম হওয়া ভর্তিচ্ছু শিক্ষার্থী। কেন্দ্রীয় সিট প্ল্যান অনুযায়ী তার সিট পড়েছিল কোটবাড়ির টিচার্স ট্রেনিং কলেজে। কেন্দ্রের সিট প্ল্যানের পাওয়া তথ্য অনুযায়ী ভর্তি পরীক্ষার্থীর নাম মোঃ সাজ্জাতুল ইসলাম। বাবার নাম মোঃ রেজাউল করিম। ভর্তি পরীক্ষায় রোল নম্বর ২০৬০৫০। ভর্তি পরীক্ষার্থীদের জন্য পরীক্ষার হলে সরবরাহ করা উপস্থিতির তালিকায় স্বাক্ষরের ঘরে সাজ্জাতের স্বাক্ষর নেই। তাকে অনুপস্থিত দেখানো হয়েছে। তবে ১২ নভেম্বর প্রকাশিত ‘বি’ ইউনিটের ফলে দেখা যায়, ২০৬০৫০ রোল নম্বরধারী সাজ্জাতুল ইসলাম ‘বি’ ইউনিট (মানবিক) এর মেধাতালিকায় ১২তম স্থান অধিকার করেছেন।

‘বি’ ইউনিটের ভর্তি কমিটির সদস্য সচিব ড. মোঃ শামীমুল ইসলাম বলেন, বিশ্ববিদ্যালয়ের ভর্তি পরীক্ষায় ঐ কেন্দ্রে কোন শিক্ষার্থী ভুলবশত অথবা জালিয়াতির উদ্দেশ্যে অনুপস্থিত শিক্ষার্থীর রোল লিখেছে যা কেন্দ্রে দায়িত্বরত শিক্ষকদের অবহেলার কারণে ঘটতে পারে। এ বিষয়টা আমাদের নজরে আসার পর ভাইবাতে ঐ শিক্ষার্থীকে আটক করার সিদ্ধান্ত হয়। কিন্তু সে ভাইবা দিতেও আসেনি। এখানে ভর্তি পরীক্ষা কমিটির কোন দায় থাকতে পারে না। আমরা নিরাপত্তার স্বার্থেই বিষয়টি কমিটির সদস্যদের মধ্যে গোপন রেখেছি।

‘বি’ ইউনিটের ভর্তি পরীক্ষা কমিটির আহ্বায়ক অধ্যাপক ড. মাসুদা কামাল বলেন, আমরা অনুপস্থিত শিক্ষার্থীর রোল নম্বর ফলাফল প্রকাশের পরে জানতে পেরেছি। আমরা ইউনিটের সদস্যদের নিয়ে সিদ্ধান্ত নিয়ে তার বিষয়টি খতিয়ে দেখি এবং সাক্ষাৎকারের সময় অনুপস্থিত থাকায় তাকে আমরা ধরতে ব্যর্থ হই।

বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. এমরান কবির চৌধুরী বলেন, অনুপস্থিত শিক্ষার্থীর নাম মেধাতালিকায় চলে আসার বিষয়টি আমি জানতে পেরেছি। সংশ্লিষ্ট ইউনিটের সদস্যদের সাথে কথা বলে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

সংশ্লিষ্ট ইউনিট প্রধান বলছেন, জালিয়াতির উদ্দেশ্যে বা ভুলবশত অনুপস্থিত পরীক্ষার্থীর রোলের জায়গায় অন্য কোনও পরীক্ষার্থী রোল লিখে উত্তরপত্র পাঠাতে পারে।

নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৭

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি: মকিস মনসুর আহমদ
সম্পাদক ও প্রকাশক: খন্দকার আব্দুর রহিম, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
অফিস: ৯/আই, ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট।
ফোন: ০৮২১-৭২৬৫২৭, মোবাইল: ০১৭১৭৬৮১২১৪
ই-মেইল: [email protected]

Developed by: