সর্বশেষ আপডেট : ৯ ঘন্টা আগে
শনিবার, ২৫ জানুয়ারী ২০২০ খ্রীষ্টাব্দ | ১২ মাঘ ১৪২৬ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET

‘এনআরসি মুসলিমদের দেশছাড়া করার হাতিয়ার’

নিউজ ডেস্ক:: ভারতের আসাম রাজ্যে কয়েক মাস আগে যে জাতীয় নাগরিক তালিকা (এনআরসি) প্রকাশ করা হয়েছে তা আসলে সংখ্যালঘু মুসলমানদের রাষ্ট্রহীন করে তোলার একটি হাতিয়ার। এমনটাই অভিযোগ করেছে আন্তর্জাতিক ধর্মীয় স্বাধীনতা সম্পর্কিত একটি ফেডারেল মার্কিন কমিশন। চূড়ান্ত নাগরিক তালিকা থেকে ইতিমধ্যে ১৯ লাখ মানুষ বাদ পড়েছে যাদের মধ্যে অনেক বাঙালি হিন্দু ধর্মাবলম্বীও রয়েছেন।

এই এনআরসির বিরুদ্ধে অভিযোগ করে যুক্তরাষ্ট্রের ‘ইউএস কমিশন অন ইন্টারন্যাশনাল রিলিজিয়াস ফ্রিডম’ (ইউএসসিআইআরএফ) সংগঠন জানিয়েছে যে, আসামের বাঙালি মুসলিম সম্প্রদায়ের ভোটাধিকার কেড়ে নিতে এবং তাদের রাষ্ট্রহীন করে তোলার উদ্দেশ্যেই এই কর্মসূচি নিয়েছে ওই রাজ্যের প্রশাসন।

শুক্রবার ‘ইস্যু ব্রিফ: ইন্ডিয়া’ শিরোনামে প্রকাশিত এক প্রতিবেদনে ইউএসসিআইআরএফ জানায়, এনআরসি ‘ধর্মীয় সংখ্যালঘুদের লক্ষ্যবস্তু করার একটি সরঞ্জাম এবং বিশেষত, ভারতীয় মুসলমানদের রাষ্ট্রহীন করে তোলাই এর উদ্দেশ্য। ভারতের অভ্যন্তরে ধর্মীয় স্বাধীনতার অবস্থার নিম্নমুখী প্রবণতার এটি একটি বড় উদাহরণ হয়ে দাঁড়িয়েছে।’

নীতি বিশ্লেষক হ্যারিসন আকিনসের তৈরি করা ওই প্রতিবেদনে ইউএসসিআইআরএফ অভিযোগ করেছে যে, ২০১৯ সালের আগস্টে এনআরসি তালিকা প্রকাশ পাওয়ার পরেই বিজেপি সরকার এমন পদক্ষেপ নিয়েছে যা মুসলিম বিরোধী পক্ষপাতিত্বকেই প্রতিফলিত করে।

ইউএসসিআইআরএফ আরো বলেছে, ‘বিজেপি ভারতীয় নাগরিকত্বের জন্য একটি ধর্মীয় পরীক্ষা তৈরির লক্ষ্যে ইঙ্গিত দিয়েছে যাতে হিন্দুরা এবং কিছু ধর্মীয় সংখ্যালঘুরা বেঁচে যাবে ঠিকই, তবে বাদ পড়বেন বিপুল সংখ্যক মুসলমানরা।’বাস্তবে সেটাই হয়েছে।

আর কেবল যুক্তরাষ্ট্রের ইউএসসিআইআরএফ নয়, এই এনআরসি নিয়ে ইতিমধ্যে আরো বেশ কয়েকটি দেশি ও আন্তর্জাতিক সংস্থা উদ্বেগ প্রকাশ করছে।

সূত্র: এনডিটিভি

এ বিভাগের অন্যান্য খবর

নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৭

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি: মকিস মনসুর আহমদ
সম্পাদক ও প্রকাশক: খন্দকার আব্দুর রহিম, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
অফিস: ৯/আই, ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট।
ফোন: ০৮২১-৭২৬৫২৭, মোবাইল: ০১৭১৭৬৮১২১৪
ই-মেইল: [email protected]

Developed by: