সর্বশেষ আপডেট : ১৮ ঘন্টা আগে
রবিবার, ৮ ডিসেম্বর ২০১৯ খ্রীষ্টাব্দ | ২৪ অগ্রহায়ণ ১৪২৬ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET

সালমান শাহ হয়ে দেখা দিলেন ছোট্ট আগ্নিক

নিউজ ডেস্ক:: নব্বই দশকে ঢাকাই চলচ্চিত্রে ধুমকেতুর মত আগমন ঘটা এক তারার নাম সালমান শাহ। যিনি তার অভিনয়, স্টাইল দিয়ে বদলে দিয়েছিলেন বাংলা চলচ্চিত্রের প্রেক্ষাপট। সে সময় পেরিয়ে আজও দেশীয় চলচ্চিত্রের অন্যতম সুপারস্টার হয়ে আছেন তিনি। তাকে বাংলা চলচ্চিত্রের ‘মোস্ট ফ্যাশন আইকন’ বলা হয়। ফ্যাশনের দিক থেকে এই নায়ক ছিলেন কয়েক যুগ এগিয়ে। তার সময়ের চেয়ে কয়েক ধাপ এগিয়ে নিজেকে উপস্থাপন করার মত সচেতন ছিলেন এই সুপারস্টার। তাই তো কয়েক যুগ পেরিয়ে গেলেও তার মত হয়ে দেখাতে পারেন নি কেউ।

এই নায়কের অকাল মৃত্যুর পর অনেকেই সালমান শাহ হতে চেয়েছিলেন বটে কিন্তু কেউই তার ধারে কাছে পৌঁছাতে পারেন নি। না অভিনয়ে, না ফ্যাশনে। শুধু ঢাকাই চলচ্চিত্র নয় বলিউড কিংবা টলিউডেও অনেক নায়ককে দেখা গিয়েছে সালমানের সেই পুরনো স্টাইলে কিন্তু সালমান শাহ হতে পারেন নি। তার মতো কেউ নয়, হবেও না হয়তো কোনোদিন।

সবচেয়ে আশ্চর্যজনক খবর হলো, সেই সুপারস্টার সালমান শাহের চিরাচরিত রূপে দেখা মিলল এক ক্ষুদে শিশুর। হুবহু সালমানের স্টাইলে নিজেকে ধারণ করেছেন তিন বছর বয়সী ছোট্ট আগ্নিক মেহরাব। রাজধানীর লালমাটিয়ায় ছোট্ট আগ্নিকের বাসা। দুই ভাইয়ের মধ্যে সে ছোট। সম্প্রতি এক ফটোশুটে সালমান শাহ হয়েই যেন দেখা দিলেন এই ক্ষুদে শিশু। সালমান শাহ’র ঢঙে তোলা বেশকিছু ছবিতে তাকে দেখে মনে হতেই পারে এ যেন জুনিয়র সালমান শাহ। ছোট্ট আগ্নিকের মধ্যে সালমান শাহকে খুঁজে বের করেছেন তরুণ ফটোগ্রাফার নকিব হাসান। সম্পর্কে তার ভাগ্নে হয়।

নকিব হাসান জানান, আগ্নিক আমার খালাতো ভাই। মাত্র তিন বছর বয়স তার। এখনও স্কুলে যায়না। সে ছবি তুলতে খুব পছন্দ করে। সবচেয়ে বড় কথা সে এইটুকুন বয়সে খুব পরিপাটি এবং স্টাইলিশ। খুব স্টাইল করে ছবি তুলতে চায়। সবসময় ভিন্ন ভিন্ন স্টাইলে ছবি তুলে দিতাম তাকে। তখন আমি তাকে বাংলাদেশের সবচেয়ে স্টাইলিশ আইকন সালমান শাহের কিছু ছবি দেখালাম। আগ্নিক স্টাইল পছন্দ করায় সালমানের স্টাইল দেখে সে সালমান শাহের মত ছবি তুলতে চায়।

সালমান শাহ্‌ -এর ছবি দেখে বলেছিল আমি এই হিরোর মত ছবি তুলবো, সেই থেকেই খালামনি আর আমার প্লান ছিল এই ক্ষুদে ভক্তের মাঝে সালমান শাহ্‌ কে ফুটিয়ে তোলা। তখন আমি আর খালা দুজনে আগ্নিকের জন্য সালমান শাহের পোশাকের মত কস্টিউম খুঁজতে লাগলাম। তার মত কস্টিউম পাওয়া এখন খুবই কষ্টসাধ্য ছিল। তারপরেও প্রায় চার মাস সময় লেগেছে ঠিক সেরকম কস্টিউম পেতে, তাও আবার ছোট্ট সাইজে।

অনেক কষ্টে আগ্নিকের সাইজে কস্টিউম সংগ্রহ করি। তারপর ঠিক সালমান শাহের মত করে আগ্নিকের ছবি তুলি। মজার বিষয় হলো, মাই শুধু আগ্নিককে সালমানের ছবি দেখিয়েছি, তাকে বলে দিতে হয় নি কিভাবে স্টাইল করতে হবে। সে নিজে থেকেই স্টাইল নিয়ে দাঁড়িয়েছে আর আমি ছবি তুলেছি। তার এক্সপ্রেশন ছিল দেখার মত। আমাকে কিছুই শিখিয়ে দিতে হয়নি।

সালমান শাহ্‌ এর ড্রেস, স্টাইল সব কিছুতেই একটা নিজস্বতা ছিল, যা যে কারো মন কেড়ে নেয়। ছবি তোলার সময় আমি অবাক হয়ে গেছি আগ্নিককে মোবাইলে ছবি দেখালেই ও নিজের মত করে স্টাইল গুলো দেওয়ার চেষ্টা করেছে।

তিনি আরও বলেন, নতুন প্রজন্মের মাঝে প্রিয় সালমান শাহ্‌ তুলে ধরতে আমার এই ছোট্ট প্রয়াস, এমন অসংখ্য ভক্তের মাঝে সালমান শাহ্‌ বেঁচে থাকুক হাজার বছর।




নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৭

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি: মকিস মনসুর আহমদ
সম্পাদক ও প্রকাশক: খন্দকার আব্দুর রহিম, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
অফিস: ৯/আই, ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট।
ফোন: ০৮২১-৭২৬৫২৭, মোবাইল: ০১৭১৭৬৮১২১৪
ই-মেইল: [email protected]

Developed by: