সর্বশেষ আপডেট : ১০ ঘন্টা আগে
শনিবার, ৭ ডিসেম্বর ২০১৯ খ্রীষ্টাব্দ | ২৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৬ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET

গোলাপগঞ্জে তৃণমূল নেতাকর্মীদের তোপের মুখে নাহিদ, প্রশাসনিক নিরাপত্তায় ঘটনাস্থল ত্যাগ

ডেইলি সিলেট ডেস্ক:: গোলাপগঞ্জ উপজেলা আওয়ামী লীগের সম্মেলনের শেষ দিকে এসে তৃণমূল নেতাকর্মীদের তোপের মুখে পড়েছেন সাবেক শিক্ষামন্ত্রী ও সিলেট-৬ আসনের (গোলাপগঞ্জ-বিয়ানিবাজার) সংসদ সদস্য নুরুল ইসলাম নাহিদ। পরে তিনি প্রশাসনিক নিরাপত্তার মধ্যদিয়ে ঘটনাস্থল ত্যাগ করেছেন।

বুধবার (১৩ নভেম্বর) পূর্ব নির্ধারিত তারিখ অনুযায়ী সম্মেলন পরবর্তী চলমান কাউন্সিলের এক পর্যায়ে সন্ধ্যা ৭ টার দিকে এ ঘটনা ঘটে।

কাউন্সিলে নুরুল ইসলাম নাহিদ পূর্বের কমিটির সভাপতি এডভোকেট ইকবাল আহমদকে সভাপতি রেখে নিজের বিশেষ প্রতিনিধি হিসেবে পরিচিত সৈয়দ মিসবাহকে সাধারণ সম্পাদক করে সমঝোতার ভিত্তিতে কমিটি গঠনের চেষ্টা করলে উপজেলার তৃণমূলের নেতাকর্মীরা তা মেনে নেননি। এসময় শুরু হয় হট্টগোল। তখন নেতাকর্মীদের তোপের মুখে পড়েন নুরুল ইসলাম নাহিদ। পরে কোন কমিটি ঘোষণা না করেই পুলিশি নিরাপত্তায় ঘটনাস্থল ত্যাগ করেন তিনি।

এ ঘটনায় তৃণমূলের নেতাকর্মীদের মধ্যে দেখা দিয়েছে উত্তেজনা। উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়ে পুরো গোলাপগঞ্জ বাজার জুড়ে। নেতাকর্মীরা কাউন্সিলস্থল থেকে বেরিয়ে এসে গোলাপগঞ্জ চৌমোহনায় সড়ক অবরোধ করে স্লোগান দিতে থাকেন।

তবে সামান্য বিশৃঙ্খলা দেখা দিলেও আপাতত পরিবেশ শান্ত আছে বলে জানিয়েছেন গোলাপগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (সাময়িক দায়িত্বপ্রাপ্ত) ওসি মিজানুর রহমান। তিনি বলেন, কমিটি গঠন নিয়ে সামান্য সমস্যা হয়েছিলো। তাই এমপি মহোদয় রাগ করে চলে গেছেন। তবে আপাতত পরিবেশ শান্ত আছে। সড়ক অবরোধের ব্যাপারে তিনি বলেন, সড়কের পাশে কয়েকটা পোলাপান দাঁড়িয়ে আছে।

এদিকে কাউন্সিল ঘিরে বিশৃঙ্খলার কথা স্বীকার করে জেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সম্পাদক অধ্যক্ষ সুজাত আলী রফিক বলেন, কেন্দ্রীয় নেতৃবৃন্দ একটি কমিটি গঠন করে নিয়ে গিয়েছিলেন। কিন্তু কমিটি ঘোষণা করতে পারেননি। এর আগেই সমস্যা তৈরি হয়ে যায়। তাই তারা সেখান থেকে কমিটি ঘোষণা না করেই নেতৃবৃন্দ চলে গেছেন।

গোলাপগঞ্জ ও বিয়ানীবাজার উপজেলায় আওয়ামী লীগের নেতৃত্বের আধিপত্য নিয়ে সাবেক শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ ও কানাডা আওয়ামী লীগের প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি সরওয়ার হোসেনের মধ্যে বিরোধ দীর্ঘদিনের। ঘুরেফিরে এ দুই উপজেলায় তাদের দুইজনের অনুসারীদের মধ্যেই হচ্ছে দ্বন্দ্ব। ঘনঘন সংঘাতে জড়ানোর ঘটনাও আছে। সর্বশেষ বিগত সংসদ নির্বাচনের সময় এ দ্বন্দ্ব আরো প্রকট হয়ে ওঠে। তবে ২ বার শিক্ষামন্ত্রী ও বর্তমানে সংসদ সদস্য হিসেবে থাকার কারণে নাহিদ অনুসারীদের প্রভাব উপজেলা জুড়ে। এবারো নিজের প্রভাব ধরে রাখতে সমঝোতার ভিত্তিতে কমিটি ঘোষণা করতে চাইলে দেখা দেয় উত্তেজনা।

এর আগে বুধবার দুপুর ১২টায় গোলাপগঞ্জ পৌরসভা প্রাঙ্গণে অনুষ্ঠিত হয় সম্মেলন। গোলাপগঞ্জ উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি, উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান অ্যাডভোকেট ইকবাল আহমদ চৌধুরীর সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক রফিক আহমদের পরিচালনায় সম্মেলনে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন- সাবেক শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ এমপি, প্রধান আলোচক বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক আহমদ হোসেন, বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত হয়ে বক্তব্য রাখেন- বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের উপদেষ্টামন্ডলীর সদস্য ইনাম আহমদ চৌধুরী, কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক অ্যাডভোকেট মিছবাহ উদ্দিন সিরাজ, কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগের সদস্য সিলেট মহানগর আওয়ামী লীগের সভাপতি বদর উদ্দিন আহমদ কামরান।

অনুষ্ঠানের শুরুতে সম্মেলনের উদ্বোধন ঘোষণা করেন- সিলেট জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি, জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান অ্যাডভোকেট লুৎফুর রহমান। অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য দেন জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক শফিকুর রহমান চৌধুরী, সাবেক এমপি সৈয়দা জেবুন্নেছা হক, জেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক অধ্যক্ষ সুজাত আলী রফিক, জেলা আওয়ামী লীগ নেতা কবির উদ্দিন, গোলাপগঞ্জ পৌরসভার মেয়র ও পৌর আওয়ামী লীগের নব-নির্বাচিত সভাপতি আমিনুল ইসলাম রাবেল, গোলাপগঞ্জ পৌর আওয়ামী লীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক, জেলা আওয়ামী লীগ নেতা সৈয়দ মিছবাহ উদ্দিন।

এসময় মঞ্চে উপস্থিত ছিলেন- মাহমুদ উস সামাদ চৌধুরী কয়েছ এমপি, সিলেট জেলা আওয়ামী লীগের সহসভাপতি মুক্তিযোদ্ধা মাসুক উদ্দিন আহমদ, কানাডা আওয়ামী লীগের প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি সরওয়ার হোসেন, সাংগঠনিক সম্পাদক হুমায়ুন ইসলাম কামাল, সিলেট সদর উপজেলা চেয়ারম্যান আশফাক আহমদ, জেলা আওয়ামী লীগ নেতা অ্যাডভোকেট নিজাম উদ্দিন, অ্যাডভোকেট নাছির উদ্দিন খান, বিজিত চৌধুরী, জগলু চৌধুরী, সিলেট সিটি করপোরেশনের কাউন্সিলর অ্যাডভোকেট সালেহ আহমদ সেলিম, গোলাপগঞ্জ উপজেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক লুৎফুর রহমান, সাবেক মেয়র জাকারিয়া আহমদ পাপলু, উপজেলা আওয়ামী লীগের দপ্তর সম্পাদক আলী আকবর ফখর, পরিবহন শ্রমিক নেতা সেলিম আহমদ ফলিক, উপজেলা ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি খায়রুল হক প্রমুখ।




এ বিভাগের অন্যান্য খবর



নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৭

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি: মকিস মনসুর আহমদ
সম্পাদক ও প্রকাশক: খন্দকার আব্দুর রহিম, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
অফিস: ৯/আই, ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট।
ফোন: ০৮২১-৭২৬৫২৭, মোবাইল: ০১৭১৭৬৮১২১৪
ই-মেইল: [email protected]

Developed by: