সর্বশেষ আপডেট : ৪ ঘন্টা আগে
বুধবার, ১১ ডিসেম্বর ২০১৯ খ্রীষ্টাব্দ | ২৭ অগ্রহায়ণ ১৪২৬ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET

কাজের ফাঁকে ব্যায়াম করুন

লাইফস্টাইল ডেস্ক:: কর্মক্ষেত্রে ব্যায়াম করলে স্বাস্থ্যগত উপকারিতার পাশাপাশি মেধারও উন্নতি হয়। কখনো কখনো এটি উৎপাদনশীল দিন এবং সময় নষ্ট হওয়া দিনের মধ্যে পার্থক্য তৈরি করে দিনের মাত্র এক ঘণ্টা। আপনি কীভাবে কাজ করেন এবং কীভাবে বেঁচে থাকেন তার ওপর ইতিবাচক প্রভাব ফেলতে পারে এই এক ঘণ্টা।

অনেকে তাদের হাজার কাজের মধ্যেও ব্যায়ামের জন্য আলাদা সময় বের করে নেন। তারা অনেক সময়ই অন্যান্যদের চেয়ে ভালো করে।

২০০৮ সালে যুক্তরাজ্যে একটি গবেষণা পরিচালনা করে গবেষকরা দেখতে পেয়েছিলেন যে, কোম্পানির জিম ব্যবহার করেছেন কিংবা কোম্পানির জিম ব্যবহারের সুযোগ পেয়েছেন এমন দুই শতাধিক কর্মচারীর কাজে উৎপাদনশীলতা বেশি। প্রতিদিনের কাজের মাঝে যে দিনগুলোয় তারা ব্যায়াম করেছেন সেদিন কাজ শেষে তারা বাড়িও ফিরেছেন মন ভরা সন্তুষ্টি নিয়ে।

২০১৩ সালে, অন্য একটি সমীক্ষায় দেখা গেছে যে বয়স নির্বিশেষে, মানুষ নিয়মিত পরিমিত ব্যায়াম করার কারণে মেধার উন্নয়নে তাৎক্ষণিক উপকারিতা পেয়েছে।

যেমন: মাঝারি গতিতে একটানা ১৫ মিনিট সাইকেল চালানো।

এই জরিপ একটি বিষয় স্পষ্ট করেছে, সেটা হল- অফিসের আগে বা পরে জিমে সময় কাটানোর চাইতে দিনের বেলা কাজের মধ্যে ব্যায়াম করা বেশি ভাল হতে পারে।

শরীরচর্চার সর্বাধিক উপকারিতা এভাবেই পাওয়া সম্ভব। যেমন: ওজন কমানো, ভাল ঘুম হওয়া, ভাল যৌনমিলন, ভাল মেজাজ এবং রোগ থেকে মুক্তি পাওয়া ইত্যাদি।

গবেষণায় জানা গেছে, প্রতিদিনের একঘেয়ে কাজ থেকে বিরতি নিলে এবং ছকে বাঁধা জীবন থেকে কিছু সময়ের জন্য বাইরে বেরিয়ে এলে মানুষের কাজের প্রতি যেমন মনোযোগ বাড়ে তেমনি পারফর্মেন্সও ভাল হয়। কাজের দিনে ব্যায়াম করার আরও বড় ধরণের সুবিধা রয়েছে।

সান ডিয়েগোভিত্তিক সংস্থা আইডিইএ হেলথ অ্যান্ড ফিটনেস অ্যাসোসিয়েশন-এর প্রধান সম্পাদক স্যান্ডি টড ওয়েবস্টার বলেছেন, পাঁচ মিনিটের বা এক ঘণ্টার শারীরিক কসরত, সময় যাই হোক না কেন, কাজের দিনগুলিতে যে কোনও ধরণের শারীরিক কসরতেই প্রকৃত স্বাস্থ্য উপকারিতা পাওয়া যায়। এই সংস্থাটি বিশ্বজুড়ে ১৪ হাজারেরও বেশি ব্যক্তিগত প্রশিক্ষক এবং ফিটনেস পেশাদারদের সংযুক্ত করেছে।

ওয়েবস্টার বলেন, যদি আপনি কোনো উপায়ে হাঁটতে বা নিজেকে সামনের দিকে এগিয়ে নিতে সক্ষম হন তবে তাই করুন। আপনার কোন জিম লাগবে না। শারীরিক কসরতের সুযোগ সর্বত্রই রয়েছে। কর্মস্থলে একজোড়া অ্যাথলেটিক জুতা এবং মোজা রাখুন এবং বিরতির সময় অথবা যখনই সুযোগ পান বেরিয়ে পড়ুন, সেটা ৫ মিনিটের জন্য হোক, ১০ মিনিটের জন্য বা ২০ মিনিটের জন্য।

টড ওয়েবস্টার আরও বলেন, আপনি যদি সিঁড়িযুক্ত বহুতল কোন ভবনে কাজ করেন তবে সব সময় সিঁড়ি দিয়ে ওঠানামা করুন বা আপনার অফিসে দীর্ঘতর পথ ধরে হেঁটে যান। এর সব কিছুই ব্যায়াম হিসেবে কাজ করবে।




নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৭

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি: মকিস মনসুর আহমদ
সম্পাদক ও প্রকাশক: খন্দকার আব্দুর রহিম, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
অফিস: ৯/আই, ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট।
ফোন: ০৮২১-৭২৬৫২৭, মোবাইল: ০১৭১৭৬৮১২১৪
ই-মেইল: [email protected]

Developed by: