সর্বশেষ আপডেট : ২ ঘন্টা আগে
শনিবার, ১৪ ডিসেম্বর ২০১৯ খ্রীষ্টাব্দ | ৩০ অগ্রহায়ণ ১৪২৬ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET

তথ্য প্রাপ্তিতে সাধারণ মানুষের প্রবেশাধিকার কার্যক্রম জোরদার করতে হবে —জুলিয়া জেসমিন মিলি

সিলেট বিভাগীয় তথ্য অফিসের উপ পরিচালক জুলিয়া জেসমিন মিলি বলেছেন, তথ্য প্রকাশ যেকোন প্রতিষ্ঠানের প্রতি আস্থা বৃদ্ধি করে। তাই নাগরিককে তথ্য প্রদানে সরকারী বেসরকারী অফিসগুলোকে আন্তরিক হতে হবে। একই সাথে তথ্য অধিকার আইনটির প্রচার প্রসারের জন্য তৃণমূল পর্যায়ে আরও বেশী করে সচেতনতামূলক কার্যক্রম সহ তথ্য প্রাপ্তিতে সাধারণ মানুষের প্রবেশাধিকার বিষয়ক কার্যক্রম আরও বেশী করে বাস্তবায়নের জন্য সকলের প্রতি আহবান জানান।

তিনি বুধবার দুপুরে নগরীর একটি অভিজাত রেস্টুরেন্টে ইনস্টিটিউট অব ডেভেলপমেন্ট এফেয়ার্স (আইডিয়া)’র উদ্যোগে গণসাক্ষরতা অভিযান, তথ্য অধিকার ফোরাম এবং মানুষের জন্য ফাউন্ডেশন এর সহযোগিতায় “ অংশীদারী সমৃদ্ধির জন্য তথ্যের মাধ্যমে মানুষের ক্ষমতায়ন” বিষয়ক এক গোলটেবিল বৈঠকে প্রধান অতিথির বক্তব্যে উপরোক্ত কথা বলেন। গোলটেবিল বৈঠকে সিলেটে কর্মরত, এনজিও, জনপ্রতিনিধি, শিক্ষক, শিক্ষার্থী সহ নানা শ্রেণী পেশার মানুষ অংশ নেন। সভায় জাতীয় পর্যায়ে অনুষ্ঠিতব্য তথ্য অধিকার আইন প্রণয়নের ১০ বছর পূর্তি উদযাপন উপলক্ষ্যে বেশকিছু সুপারিশমালা প্রদান করা হয়। তথ্য অধিকার আইন-২০০৯ এর আলোকে ধারনা পত্র উপস্থাপন করেন আইডিয়ার সহকারী পরিচালক নাজিম আহমদ।

সুপারিশসমূহ হলো-তৃণমূলে আরও বেশী করে তথ্য অধিকার আইন ২০০৯ নিয়ে প্রচার ও সচেতনতামূলক কার্যক্রম বাস্তবায়ন, তথ্য অধিকার আইন ২০০৯ এর সুফল পাওয়ার ক্ষেত্রে তৃণমূল থেকে প্রশাসনের উপরের দিকে কার্যক্রম বাস্তবায়ন করা, তথ্য অধিকার আইনে তথ্য প্রাপ্তির জন্য প্রয়োজনীয় আইনী সুরক্ষা নিশ্চিত করতে হবে, তথ্য অধিকার আইন ২০০৯ সম্পর্কে সকল পর্যায়ের জণগনকে জানানোর জন্য আইনটি বেশি করে প্রচারের ব্যবস্থা করতে হবে, সকল সরকারী অফিসে সময়মত তথ্য প্রদানের ব্যবস্থা করতে হবে, এবং তথ্য সময়মত প্রদান করা হচ্ছে কি না তা মনিটরিং এর ব্যবস্থা করতেহবে, তথ্যের সুফল জণগনকে স্বাবলম্বী করতে পারে এই লাভের কথা জণগনকে জানানো ও বুঝানোর ব্যবস্থা করা, তথ্য অধিকার আইন ২০০৯ বিষয়ক পর্যাপ্ত প্রশিক্ষণের ব্যবস্থা করতে হবে, দায়িত্ব প্র্প্তা কর্মকর্তাদের দায়িত্ব সম্পর্কে জ্ঞান ও তথ্য পদানে প্রতিষ্ঠানের সক্ষমতা অর্জনে বিভিন্ন কারিগরি ও অনলাইন প্রশিক্ষণের ব্যবস্থা জোরদার করতে হবে এবং তথ্য অধিকার আইনের পরিপন্থি বিদ্যমান আইনসমূহ সংস্কার ও প্রযোজ্য ক্ষেত্রে বাতিল করতে হবে, যেমন-জাতীয় সংসদে পাশ হওয়া ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন ২০১৮ এর ৩২ ধারা সহ বাক্ স্বাধীনতার পরিপন্থি অন্যান্য ধারা বাতিল করতে হবে। বিজ্ঞপ্তি




এ বিভাগের অন্যান্য খবর



নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৭

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি: মকিস মনসুর আহমদ
সম্পাদক ও প্রকাশক: খন্দকার আব্দুর রহিম, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
অফিস: ৯/আই, ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট।
ফোন: ০৮২১-৭২৬৫২৭, মোবাইল: ০১৭১৭৬৮১২১৪
ই-মেইল: [email protected]

Developed by: