সর্বশেষ আপডেট : ৫ ঘন্টা আগে
শুক্রবার, ১০ জুলাই ২০২০ খ্রীষ্টাব্দ | ২৬ আষাঢ় ১৪২৭ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET
Fapperman.com DoEscorts

অনবদ্য পরিবেশনায় ঢাকার মঞ্চ মাতালো সিলেটের শিশুশিল্পীরা

বিনোদন ডেস্ক:: বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমি ও পিপল্স থিয়েটার এসোসিয়েশন এর আয়োজনে বিশ্বের অন্যতম বৃহৎ আয়োজন ‘চতুর্দশ জাতীয় শিশু-কিশোর নাট্য ও সাংস্কৃতিক উৎসব ২০১৯’ গত ২০ সেপ্টেম্বর থেকে বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমিতে অনুষ্ঠিত হচ্ছে।

আয়োজিত নাট্য ও সাংস্কৃতিক উৎসবে সারা দেশ থেকে ৯৫টি শিশু নাট্য দল, ১০ হাজার শিশুর মিলন মেলা, প্রতিদিন ৮৫টি পরিবেশনা এবং ৬৪টি জেলার সাংস্কৃতিক দল অংশগ্রহণ করে। ‘চতুর্দশ জাতীয় শিশু-কিশোর নাট্য ও সাংস্কৃতিক উৎসবের সমাপনী দিন শুক্রবার (২৭ সেপ্টেম্বর) বিকেল ৪টা থেকে বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমির বিভিন্ন মঞ্চে সাংস্কৃতিক পরিবেশনা উপস্থাপন করে দর্শক মনে মুগ্ধতা ছড়িয়েছে সিলেট জেলা শিল্পকলা একাডেমি সাংস্কৃতিক দল।

জেলা কালচারাল অফিসার অসিত বরণ দাশ গুপ্ত-এর তত্ত্বাবধানে ৪০ সদস্য বিশিষ্ট সিলেট জেলা সাংস্কৃতিক দল ঢাকার এই উৎসবে অংশগ্রহণ করে। উৎসবে সমবেত সংগীত, সমবেত নৃত্য, একক সংগীত, একক অভিনয়, আবৃত্তি, ৭ই মার্চের ভাষণ, চিত্রাংকন ও বিশেষভাবে সক্ষম শিশু শিল্পীর একক সংগীত পরিবেশন করে সিলেট জেলা শিল্পকলা একাডেমির সাংস্কৃতিক দল। বঙ্গবন্ধুর জন্মশতবর্ষ উপলক্ষে নির্মিত পুষ্পকাননে সিলেট জেলা শিল্পকলা একাডেমির ৪ জন শিশু একটি করে ফুল গাছ রোপণ করে।

উৎসবে পাঠশালা সিলেটের পরিবেশনায় মঞ্চস্থ হয় ‘অমল হলো পিটারপ্যান’ নাটকটি। এর রচনায় ছিলেন- নাহিদ পারভেজ বাবু ও নির্দেশনায় হুমায়ুন কবীর জুয়েল।

জাতীয় শিশু কিশোর নাট্য ও সাংস্কৃতিক উৎসবে অংশগ্রহণকারী শিল্পীরা হলেন- সমবেত সংগীতে সুমাইয়া ইসলাম শোভা, তাসনোভা জহির তাম্মি মেঘলা, অনুপমা বণিক, পূর্বা দেব, অর্পিতা তালুকদার ও ঈশিতা দাশ; সমবেত নৃত্যে মনোরমা দাশ ধৃতি, অন্বেষা ভট্টাচার্য্য, সারাফ ওয়ামিয়া রহমান, মিথিলা চৌধুরী শৈলী, উপাসনা চৌধুরী মেধা ও চৈতি উপাধ্যায়; একক অভিনয়ে জয়িতা জেহেন প্রিয়তী ও রোহিত দত্ত চৌধুরী; আবৃত্তিতে নাফিসা তানজীন; একক সংগীতে সুমাইয়া ইসলাম শোভা ও অর্পিতা তালুকদার; ৭ই মার্চের ভাষণে ঐন্দ্রিলা নাথ ঐশী এবং চিত্রাংকনে দেবরাজ বণিক। উৎসবে বিশেষভাবে সক্ষম শিশুশিল্পী হিসেবে সংগীত পরিবেশন করেন কামরান হোসেন।

‘অমল হলো পিটারপ্যান’ নাটকের বিভিন্ন চরিত্রে অভিনয় করেন ঐশিকা দাস, জয়িতা জেহেন প্রিয়তী, রোহিত দত্ত চৌধুরী সীমান্ত, সৈয়দা রাইদাহ্ সাবাহাত দিয়ানাহ্, মনোরমা দাস ধৃতি, পারমিতা দেব মিতা, রওনক জাহান ওয়ারা, পরশ চৌধুরী, অংশমান দে, তপশ্রী চক্রবর্ত্তী অর্পা, প্রত্যাশা চৌধুরী শ্যামা, রোহিত কান্ত কর, অর্পিতা দে, মহাশ্বেতা দেব পুরকায়স্থ শশী ও তৃষাণ দেব প্রয়াস। উৎসবে সিলেট জেলার ৩ জন শিশু শিল্পী ও ১ জন বিশেষভাবে সক্ষম শিশুশিল্পীকে মঞ্চকুঁড়ি পদক প্রদান করা হয়।

সিলেটের মঞ্চকুঁড়ি পদক প্রাপ্ত শিশুশিল্পীরা হল জেলা শিল্পকলা একাডেমির প্রশিক্ষণার্থী সুমাইয়া ইসলাম শোভা ও মনোরমা দাস ধৃতি এবং পাঠশালা সিলেট এর নাট্যকর্মী জয়িতা জেহেন প্রিয়তী। এছাড়াও কামরান হোসেনকে বিশেষভাবে সক্ষম শিশুশিল্পী হিসেবে মঞ্চকুঁড়ি পদক প্রদান করা হয়। উৎসবে সিলেট জেলা শিল্পকলা একাডেমির প্রত্যেকটি পরিবেশনা দর্শক নন্দিত ও দারুণভাবে প্রশংসিত হয়।

নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৭

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি: মকিস মনসুর আহমদ
সম্পাদক ও প্রকাশক: খন্দকার আব্দুর রহিম, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
অফিস: ৯/আই, ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট।
ফোন: ০৮২১-৭২৬৫২৭, মোবাইল: ০১৭১৭৬৮১২১৪
ই-মেইল: [email protected]

Developed by: