সর্বশেষ আপডেট : ৭ ঘন্টা আগে
শুক্রবার, ১৩ ডিসেম্বর ২০১৯ খ্রীষ্টাব্দ | ২৯ অগ্রহায়ণ ১৪২৬ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET

‘কাশ্মীর কখনোই পাকিস্তানের নয় এবং হবেও না’

নিউজ ডেস্ক:: ভূস্বর্গ খ্যাত কাশ্মীর কখনোই পাকিস্তানের অংশ ছিল না এবং ভবিষ্যতেও তা কোনোদিন হবে না। এমনটাই দাবি করেছেন অস্ট্রেলিয়ার মুসলিম নেতা ও স্বঘোষিত ইসলামী সংস্কারক ইমাম মোহাম্মদ তাওহিদি।

এ বিষয়ে সংশ্লিষ্টদের সৎ থাকার আহ্বান জানিয়ে ইসলামী পণ্ডিত বলেন, ‘জম্মু ও কাশ্মীর ইস্যুতে ভারতের কেন্দ্রীয় সরকার সংবিধানের ৩৭০ ও ৩৫-ক অনুচ্ছেদ বাতিল করায় সৃষ্ট উত্তেজনা কারই কাম্য নয়। তাই সকলকে নিজ নিজ অবস্থান থেকে ধর্য্যের সঙ্গে বিষয়টি সমাধান করতে হবে।’

চলমা কাশ্মীর সঙ্কট নিয়ে গত রবিবার (১১ আগস্ট) নিজের ভেরিফায়েড টুইটার অ্যাকাউন্ট থেকে একটি বার্তা পাঠান ইমাম মোহাম্মদ তাওহিদি। যেখানে তিনি লেখেন, ‘কাশ্মীর কোনোদিনই পাকিস্তানের অংশ ছিল না। রাজ্যটি কখনো তাদের অংশ হবে না।’

টুইট বার্তায় তিনি আরও লিখেন, ‘পাকিস্তান ও কাশ্মীর— উভয়ই ভারতের অংশ। গোটা অঞ্চলটাই হিন্দু ভূমি—হিন্দু ধর্ম থেকে ইসলামে ধর্মান্তরিত হয়ে মুসলমান হলেই এই সত্যটা বদলে যায় না। পাকিস্তান তো বটেই, ভারতের বয়স ইসলামের চেয়েও অনেক বেশি। এ বিষয়ে আপনারা সবাই আরও সৎ হোন।’

মোহাম্মদ তাওহিদি নিজের টুইটারের পরিচিতির মাধ্যমে নিজেকে একজন শান্তিময় বক্তা, সংস্কারবাদী ইমাম, পণ্ডিত এবং অস্ট্রেলিয়ায় অনেক বিক্রি হয় এমন বেশ কয়েকটি বইয়ের লেখক হিসেবে বর্ণনা করেছেন। তাছাড়া নিজেকে জঙ্গিবাদ বিরোধী হিসেবেও বারংবার উল্লেখ করেছেন।

বিশ্লেষকদের মতে, চলমান কাশ্মীর ইস্যুতে ইমাম মোহাম্মদ তাওহিদির এসব মন্তব্য সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে নজর কেড়েছে সকলের। যার অংশ হিসেবে এরই মধ্যে তার টুইটার পোস্টটিতে প্রায় ২৩ হাজারের বেশি রিটুইট পড়েছে।

এর আগে গত ৫ আগস্ট (সোমবার) ভারতীয় সংবিধানের ৩৭০ ধারা রদের মাধ্যমে জম্মু ও কাশ্মীরের বিশেষ মর্যাদা বাতিল করেছিল ক্ষমতাসীন মোদী সরকার। যার প্রেক্ষিতে পরবর্তীতে কেন্দ্রশাসিত অঞ্চল হিসেবে বিতর্কিত লাদাখ ও জম্মু ও কাশ্মীর সৃষ্টির প্রস্তাবেও সমর্থন জানানো হয়।

এসবের মধ্যেই চলমান কাশ্মীর ইস্যুতে পাক-ভারত মধ্যকার সম্পর্কে নতুন করে উত্তেজনা সৃষ্টি হয়েছে। এরই মধ্যে একে একে ভারত সরকারের সঙ্গে বাণিজ্য, যোগাযোগসহ সব ধরনের সম্পর্ক ছিন্নের ঘোষণা দিয়েছে প্রতিবেশী পাকিস্তান। যদিও এমন সংকটময় পরিস্থিতিতে পাক সরকারের পাশে এসে দাঁড়িয়েছে এশিয়ার পরাশক্তি চীন; আর ভারত পাশে পেয়েছে রাশিয়াকে।




এ বিভাগের অন্যান্য খবর



নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৭

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি: মকিস মনসুর আহমদ
সম্পাদক ও প্রকাশক: খন্দকার আব্দুর রহিম, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
অফিস: ৯/আই, ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট।
ফোন: ০৮২১-৭২৬৫২৭, মোবাইল: ০১৭১৭৬৮১২১৪
ই-মেইল: [email protected]

Developed by: