সর্বশেষ আপডেট : ৪ ঘন্টা আগে
শনিবার, ১৪ ডিসেম্বর ২০১৯ খ্রীষ্টাব্দ | ৩০ অগ্রহায়ণ ১৪২৬ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET

অবশেষে সহিংসতায় নিহতদের পরিবারের সঙ্গে দেখা হলো প্রিয়াঙ্কার

আন্তর্জাতিক ডেস্ক:: ১৪৪ ধারা ভঙ্গের অভিযোগ এনে কংগ্রেসের সাধারণ সম্পাদক প্রিয়াঙ্কা গান্ধীকে সোনভদ্রায় যেতে বাধা দেওয়া হলেও তিনি কোনোভাবেই কাজ শেষ না করে দিল্লিতে ফিরে যেতে রাজি নন। উত্তরপ্রদেশ সরকার যতই চেষ্টা করুক ফেরত পাঠানোর, সোনভদ্রার ভুক্তভোগী পরিবারের সঙ্গে দেখা না করে ফিরবেন না বলে জানিয়ে দিয়েছেন প্রিয়াঙ্কা। মির্জাপুরের যে গেস্ট হাউসটিতে তাকে আটক রাখা হয়েছে, সেখানে সারারাত ধর্নায় বসেছিলেন তিনি।

অবশেষে, সোনভদ্রায় জমিবিরোধজনিত সহিংসতায় নিহতদের স্বজনরা নিজেরাই প্রিয়াঙ্কার সঙ্গে মির্জাপুরে দেখা করেছেন। কংগ্রেসের জ্যেষ্ঠ নেতা অজয় রায় জানান, শনিবার (২০ জুলাই) সকালে ভুক্তভোগী পরিবারগুলোর ১২ জন সদস্য দলের সাধারণ সম্পাদকের সঙ্গে দেখা করেছেন।

গত বুধবার (১৭ জুলাই) উত্তর প্রদেশের সোনভদ্রা গ্রামে জমি নিয়ে সংঘর্ষের জেরে গুলিবিদ্ধ হয়ে ১০ জন নিহত হন। উত্তর প্রদেশে অপরাধ বৃদ্ধি ও আইনের শাসন নেই বলে রাজ্য সরকার ও মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথের সমালোচনা করেন প্রিয়াঙ্কা। নিহতদের পরিবারের সঙ্গে দেখা করতে শুক্রবার (১৯ জুলাই) সেখানে যাচ্ছিলেন প্রিয়াঙ্কা। মাঝপথে তাকে থামিয়ে দেওয়া হয়।

সোনভদ্রা যাওয়ার পথে তাকে আটক করা হলে মির্জাপুর নামক এলাকার রাস্তায় বসে পড়েন প্রিয়াঙ্কা। তার সঙ্গে থাকা অন্য কংগ্রেস কর্মীরাও পাশেই বসে পড়েন। প্রিয়াঙ্কার নিরাপত্তারক্ষীরা তাদের ঘিরে থাকেন। এনডিটিভির প্রতিবেদনে বলা হয়েছে,প্রিয়াঙ্কা সেখান থেকে সরে যেতে অস্বীকৃতি জানালে তাকে আটক করে সরকারি গাড়িতে তোলা হয়।

শুক্রবার রাতে চুনার দুর্গের ধরনামঞ্চ থেকে প্রিয়াঙ্কাকে একটি গেস্টহাউসে নিয়ে যাওয়া হয়। সেখানে সরকারের তরফ থেকে তার কাছে অনুরোধ করা হয় অবিলম্বে দিল্লি ফিরে যাওয়ার জন্য। তবে প্রিয়াঙ্কা তার অবস্থানে অনড় থাকেন। তিনিও জানিয়ে দেন, ভুক্তভোগীদের সঙ্গে দেখা করতে না দিলে তিনি ফিরবেন না। শুক্রবার সারা রাত এই ঘটনা নিয়ে একাধিক টুইট করেন প্রিয়াঙ্কা।

একটি টুইটে তিনি বলেন, ‘বারাণসীর এডিজি, পুলিশ কমিশনার এবং মির্জাপুরের ডিআইজি আমার কাছে এক ঘণ্টা ধরে বসে রয়েছেন। আমাকে বলেছেন আক্রান্তদের পরিবারের সঙ্গে দেখা না করেই আমাকে ফিরে যেতে হবে। আমাকে কেন আটক করা হয়েছে, তার কোনো কারণ তারা দেখাতে পারেননি। কোনো কাগজপত্রও আমি হাতে পাইনি।’ তিনি আরও বলেন, ‘আমার আইনজীবী জানিয়েছেন, এভাবে আমায় আটক করা সম্পূর্ণ বেআইনি।’

সারারাত ওইভাবে ধর্নায় থাকার পর শনিবার সোনভদ্রার সহিংসতায় নিহতদের স্বজনরাই প্রিয়াঙ্কার সঙ্গে দেখা করতে মির্জাপুরে আসেন। ভারতীয় সংবাদমাধ্যম আউটলুক ইন্ডিয়া জানিয়েছে, শুরুতে তাদেরকে (নিহতদের স্বজনদের) প্রিয়াঙ্কার সঙ্গে দেখা করার জন্য গেস্ট হাউসে প্রবেশের অনুমতি দেয়নি পুলিশ। পরে সে আদেশ প্রত্যাহার করে নেওয়া হয়।

নিহতদের স্বজনদের সান্ত্বনা দেন প্রিয়াঙ্কা। তাদের অশ্রু মুছে দেন। পরে সাংবাদিকদের প্রিয়াঙ্কা বলেন, পুলিশ ও প্রশাসন কী চাইছে তা তিনি বুঝতে পারছেন না। ‘তারা (পরিবারগুলো) আমার সঙ্গে দেখা করতে এখানে এসেছে, অথচ তাদের ঢুকতে দেওয়া হচ্ছিলো না।’




এ বিভাগের অন্যান্য খবর



নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৭

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি: মকিস মনসুর আহমদ
সম্পাদক ও প্রকাশক: খন্দকার আব্দুর রহিম, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
অফিস: ৯/আই, ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট।
ফোন: ০৮২১-৭২৬৫২৭, মোবাইল: ০১৭১৭৬৮১২১৪
ই-মেইল: [email protected]

Developed by: