সর্বশেষ আপডেট : ১০ ঘন্টা আগে
শনিবার, ১৯ সেপ্টেম্বর ২০২০ খ্রীষ্টাব্দ | ৪ আশ্বিন ১৪২৭ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET
Fapperman.com DoEscorts

ছেলেকে খেলিয়ে বিতর্কে জিদান

স্পোর্টস ডেস্ক:: বিখ্যাত বাবার সন্তান হলে বড় বিপদ। আর বাবা যদি দলের কোচ হন, তবে তো কথাই নেই। লুকা জিদানকে দলে নেয়ায় যেমন সমালোচনার মুখে পড়ছেন রিয়াল মাদ্রিদের কোচ জিনেদিন জিদান। বাবা বলেই ২০ বছর বয়সী গোলরক্ষককে রিয়ালের মতো বড় দলে সুযোগ দিয়ে যাচ্ছেন বলে অভিমত অনেক সমালোচকের।

গোলরক্ষক থিবো কুর্তুয়া আর কেলর নাভাসের মধ্যে একজনকে বিক্রি করে দিতে পারে রিয়াল। জিদান সাফ জানিয়ে দিয়েছেন, পরের মৌসুমে এমন কাউকে গোলপোস্টের নিচে রাখবেন না, যাকে নিয়ে দল গড়া যাবে না।

রিয়াল কোচ বলেন, ‘এই মহূর্তে আমার দলে তিন জন খুবই ভাল গোলরক্ষক আছে। ওদের নিয়েই মৌসুম শেষ করতে হবে। তবে এখনই বলে রাখছি যে পরের মৌসুমে গোলরক্ষক নিয়ে দলে কোনও বিতর্ক থাকবে না।’

সম্ভবত কুর্তুয়াকেই ছেড়ে দেয়ার চিন্তা করছেন জিদান। গত গ্রীষ্মে চেলসি থেকে তাকে নিয়েছিল রিয়াল। সান্তিয়াগো সোলারি রিয়ালের ম্যানেজার থাকার সময় বেশি খেলিয়েছেন কুর্তুয়াকেই। কিন্তু জিদান ফিরে আসার পরে আবার নাভাসই প্রথম গোলরক্ষক হয়ে যান।

লা লিগায় এখনও নয়টি ম্যাচ বাকি রিয়ালের। ওয়েসকার বিরুদ্ধে কুর্তুয়া খেলেননি কারণ বেলজিয়ামের হয়ে ম্যাচে চোট পাওয়ায়। নাভাসও দেশের হয়ে খেলে ক্লান্ত ছিলেন। যে কারণে লুকাকে খেলানো হয়েছে বলে অনেকের মত।

তবে জিদান বলছেন, যোগ্যতা দিয়েই দলে জায়গা পেয়েছে লুকা। তার ছেলে বলে যদি সমালোচনা হয়ও সেটি কানে তুলতে নারাজ রিয়াল কোচ, ‘যোগ্যতা আছে বলেই লুকা রিয়াল দলে জায়গা পেয়েছে। ছয় বছর বয়স থেকে ও ক্লাবের অ্যাকাডেমিতে রয়েছে। ক্লাবের সঙ্গে যুক্ত ১৬ বছর। যদি কেউ বলে, লুকা আমার ছেলে বলে ওকে সুযোগ দিচ্ছি, তা হলে বলব-এই ধরণের কথা গুরুত্ব দেই না। কে কি বলছে, তাতে কিছু যায়-আসে না আমার।’

নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৭

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি: মকিস মনসুর আহমদ
সম্পাদক ও প্রকাশক: খন্দকার আব্দুর রহিম, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
অফিস: ৯/আই, ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট।
ফোন: ০৮২১-৭২৬৫২৭, মোবাইল: ০১৭১৭৬৮১২১৪
ই-মেইল: [email protected]

Developed by: