সর্বশেষ আপডেট : ৩৮ মিনিট ৪ সেকেন্ড আগে
শনিবার, ১৪ ডিসেম্বর ২০১৯ খ্রীষ্টাব্দ | ৩০ অগ্রহায়ণ ১৪২৬ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET

এক যুগেও চালু হয়নি দেশের প্রথম বায়ু বিদুৎ কেন্দ্র

নিউজ ডেস্ক:: ফেনী সোনাগাজীর মুহুরী প্রজেক্ট এলাকায় স্থাপিত দেশের প্রথম বায়ু বিদ্যুৎ কেন্দ্রটি উদ্বোধনের এক যুগে পার হলেও এখন পর্যন্ত আলোর মুখ দেখেনি। সাড়ে ৭ কোটি টাকা ব্যয়ে নির্মিত এ কেন্দ্রটি বন্ধ রাখার ফলে অযত্নে অবহেলায় নষ্ট হচ্ছে সরকারি মূল্যবান যন্ত্রপাতি। তবে শিগগিরই এই কেন্দ্রে উৎপাদন কাজ শুরুর কথা জানালেন কর্মকর্তারা।

বিউবো ও সংশ্লিষ্ট সূত্র জানায়, সোনাগাজীর উপকূলীয় অঞ্চল মুহুরী প্রজেক্ট এলাকায় বাংলাদেশ বিদ্যুৎ উন্নয়ন বোর্ড ২০০৪-২০০৫ অর্থ বছরে স্থাপন করে দেশের প্রথম বায়ু বিদ্যুৎ কেন্দ্রটি। বলা হয় সোনাগাজীতে এ প্রকল্প বাস্তবায়ন হলে প্রায় ৯শ’কিলোওয়াট বিদ্যুৎ উৎপাদন হবে। ভারতের ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান নেভ্যুলা টেকনো সলুয়েশন লিমিডেট চুক্তি মোতাবেক ৫০ মিটার উঁচু টাওয়ার, ক্ষমতা সম্পন্ন জেনারেটর, কন্ট্রোল প্যানেল, সাবস্টেশন ও ম্যাচিংগিয়ারসহ প্রয়োজনীয় প্রায় সব মালামালই ভারত থেকে আনা হয়েছে। ফেনী নদীর রেগুলেটরের প্রায় ৫শ’গজ দূরে লামছি গ্রামে ২০০৬ সালের শেষের দিকে এ কেন্দ্রে পরীক্ষামূলক উৎপাদনও শুরু করা হয়। কিছুদিন পর বাতাসের গতিবেগ কম হওয়ায় উৎপাদন কমে গেলে কর্মকর্তারা আর্থিক ক্ষতির আশঙ্কায় এটি বন্ধ করে দেন। প্রায় ১২ বছর পরিত্যাক্ত থাকায় অযত্নে অবহেলায় কেন্দ্রটির প্রয়োজনীয় অনেক মালামাল নষ্ট হয়ে গেছে। ইতিমধ্যে টাওয়ার ও অন্যান্য লোহার যন্ত্রপাতি মরিচায় ধরে অনেকটা ব্যবহার অনুপযোগী হয়ে পড়ছে। এ ছাড়াও সীমানা প্রাচীর না থাকায় চুরি হয়ে গেছে মোটর ও সংযোগ তারসহ অনেক মূল্যবান যন্ত্রাংশ।

এ বিষয়ে বাংলাদেশ বিদ্যুৎ উন্নয়ন বোর্ডের উপ সহকারী প্রকৌশলী মো. ইকবাল হোসেন জানান, বর্তমানে প্যান এশিয়া নামের একটি ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান কেন্দ্রটি মেরামতের কাজ শুরু করেছে। মেরামতের কাজ শেষ হলে আগামী জানুয়ারি থেকেই বিদ্যুৎ উৎপাদন শুরু হতে পারে বলে তিনি মনে করেন।

এ বিষয়ে ফেনী বিদ্যুৎ উন্নয়ন বোর্ডের নির্বাহী প্রকৌশলী মো. আবু জাফর জানান, সোনাগাজীতে স্থাপিত বায়ু বিদ্যুৎ কেন্দ্রের বিষয়ে আমাদের কাছে তেমন কোনো তথ্য নেই। এটি প্রধান কার্যালয়ের প্রজেক্ট হওয়ায় ঢাকা থেকে সরাসরি তত্ত্বাবধান করা হয়। তবে কিছুদিন আগে এর মেরামতের কাজ শুরু হয়েছে বলে আমি জানতে পেরেছি।




এ বিভাগের অন্যান্য খবর



নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৭

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি: মকিস মনসুর আহমদ
সম্পাদক ও প্রকাশক: খন্দকার আব্দুর রহিম, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
অফিস: ৯/আই, ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট।
ফোন: ০৮২১-৭২৬৫২৭, মোবাইল: ০১৭১৭৬৮১২১৪
ই-মেইল: [email protected]

Developed by: