সর্বশেষ আপডেট : ৪ মিনিট ০ সেকেন্ড আগে
শনিবার, ৩ ডিসেম্বর, ২০১৬, খ্রীষ্টাব্দ | ১৯ অগ্রহায়ণ ১৪২৩ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET

আরও ভালো ফল চাই: শিক্ষামন্ত্রী

1.nahidডেইল সিলেট ডেস্ক ::

দেশের আটটি সাধারণ শিক্ষা বোর্ড, একটি কারিগরি শিক্ষা বোর্ড এবং একটি মাদ্রাসা শিক্ষা বোর্ড মিলিয়ে মোট ১০ শিক্ষা বোর্ডে এ বছর পাসের হার গতবছরের তুলনায় বেড়েছে। ১০টি বোর্ডে এবার সম্মিলিতভাবে পাসের হার ৮৮.২৯ শতাংশ। গতবছর পাসের হার ছিল ৮৭.০৪ শতাংশ। তবে সারাদেশে জিপিএ ৫ এবং শতভাগ পাসকরা শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের সংখ্যা কমেছে। এই ফলে ‘অসন্তুষ্ট’ নন উল্লেখ করে শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ বলেছেন, আমরা আরও ভালো ফল দেখতে চাই।

বুধবার সকাল ১০টায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার কাছে শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদের উপস্থিতিতে এসএসসি ও সমমান পরীক্ষা ২০১৬ এর ফল হস্তান্তর করেন ১০ বোর্ডের চেয়ারম্যানরা। পরে বেলা ১টার দিকে শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের সম্মেলন কক্ষে এক সংবাদ সম্মেলনে আনুষ্ঠানিকভাবে ফল ঘোষণা করেন শিক্ষামন্ত্রী।

তিনি জানান, ৬০ দিনের মধ্যে ফল প্রকাশের কথা থাকলেও এবার ৫৭দিনের মধ্যে ফল প্রকাশ করা সম্ভব হয়েছে। এবারই প্রথমবারের মতো পুরোপুরি অনলাইনে ফল প্রকাশ করা হয়েছে। মোবাইল ফোনে এসএমএসের পাশাপাশি শিক্ষা বোর্ডগুলোর ওয়েবসাইট http://www.educationboardresults.gov.bd থেকেও পরীক্ষার্থীরা ফল জানতে পারবেন। শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলোর www.educationboardresults.gov.bd ওয়েবসাইটে গিয়ে ফলাফল ডাউনলোড করা যাবে। বোর্ড থেকে ফলাফলের কোনও ‘হার্ডকপি’ সরবারহ করা হবে না।

মন্ত্রী জানান, এবার মেয়েরা ছেলেদের তুলনায় সব দিক থেকেই ভালো ফল করেছে। তিনি বলেন, ‘সার্বিক ফলে আমরা অসন্তুষ্ট নই। তবে আরও ভালো ফল চাই।’

শিক্ষামন্ত্রী জানান, এ বছর পাসের হার গতবছরের তুলনায় ১.২৫ শতাংশ বেড়েছে। আটটি সাধারণ শিক্ষা বোর্ডের অধীনে এবার এসএসসিতে পাসের হার ৮৮ দশমিক ৭০ শতাংশ। গতবার এই হার ছিল ৮৬ দশমিক ৭২ শতাংশ।

কারিগরি বোর্ডে এ বছর পাসের হার ৮৩ দশমিক ১১ শতাংশ। মাদ্রাসা বোর্ডে ৮৮ দশমিক ২২ শতাংশ পাস করেছে। ১০টি বোর্ডে মোট শিক্ষার্থী ছিল ১৬ লাখ ৪৫ হাজার ২০১ জন। গত বছর পরীক্ষা দিয়েছিল ১৪ লাখ ৭৩ হাজার ৫৯৪ জন।

মাধ্যমিক ও সমমানের পরীক্ষায় এবার জিপিএ-৫ পেয়েছে ১ লাখ ৯ হাজার ৭৬১ জন। গতবছর জিপিএ-৫ পেয়েছিল ১ লাখ ১১ হাজার ৯০১ জন।

এবার শতভাগ পাস করা শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের সংখ্যাও কমেছে। এ বছর ৪ হাজার ৭৩৪টি প্রতিষ্ঠানে সব পরীক্ষার্থী পাস করেছে। গতবছর এ ধরনের প্রতিষ্ঠানের সংখ্যা ছিল ৫ হাজার ৯৫টি। এ বছর কেউ পাস করেনি এমন প্রতিষ্ঠানের সংখ্যা ৫৩টি । গতবছর এই সংখ্যা ছিল ৪৭।

এ বছর মোট ২৮ হাজার ১০৭ টি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান থেকে এসএসসি ও সমমান পরীক্ষায় অংশ নেয় শিক্ষার্থীরা। গতবছর এই সংখ্যা ছিল ২৭ হাজার ৮১৬টি। এবছর পরীক্ষা কেন্দ্র ছিল। ৩ হাজার ২১৪টি। গতবছর ৩ হাজার ১১৭টি কেন্দ্রে পরীক্ষা হয়।

আটটি সাধারণ বোর্ডের মধ্যে যশোর বোর্ডে ৯১.৮৫ শতাংশ, সিলেট বোর্ডে ৮৪.৭৭ শতাংশ, কুমিল্লা বোর্ডে ৮৪ শতাংশ, বরিশাল বোর্ড ৭৯.৪১ শতাংশ, চট্টগ্রাম বোর্ডে ৯০.৪৫ শতাংশ, দিনাজপুর বোর্ডে ৮৯.৫৯ শতাংশ,রাজশাহী ৯৫.৭০ শতাংশ পরীক্ষার্থী পাস করেছে।

এছাড়া কারিগরি বোর্ডে ৭ হাজার ৯৭ জন, মাদ্রাসা বোর্ডে ৫ হাজার ৮৯৫ জন, বরিশাল বোর্ডে ৩ হাজার ১১৩ জন, সিলেট বোর্ডে ২ হাজার ২৬৬ জন, কুমিল্লা বোর্ডে ৬ হাজার ৯৫৪ জন, চট্টগ্রাম বোর্ডে ৭ হাজার ৬৬৬ জন এবং রাজশাহীতে ১৭ হাজার ৫৯৪ জন পরীক্ষার্থী জিপিএ ৫ পেয়েছে।

নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৬

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি : মকিস মনসুর আহমদ, প্রধান সম্পাদক : লিয়াকত শাহ ফরিদী
সম্পাদক ও প্রকাশক : কে এ রহিম, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
কার্যালয়: ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট-৩১০০
ফোন : ০৮২১-৭২৬ ৫২৭ (নিউজ), ০১৭১২ ৮৮ ৬৫ ০৩ (সম্পাদক)
ই-মেইল: dailysylhet@gmail.com

Developed by: