সর্বশেষ আপডেট : ৬ মিনিট ৫৩ সেকেন্ড আগে
বৃহস্পতিবার, ৮ ডিসেম্বর, ২০১৬, খ্রীষ্টাব্দ | ২৪ অগ্রহায়ণ ১৪২৩ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET

ডলার-পাউন্ড-নাগরিকত্বের হাতছানি, মুস্তাফিজের উপেক্ষা

full_364250753_1462866008খেলাধুলা ডেস্ক:
বিগ ব্যাশের তিন দল নাকি মুস্তাফিজুর রহমানকে পেতে যুদ্ধে নেমে পড়েছে? প্রশ্ন শুনে এ দেশে বাঁহাতি মুস্তাফিজের ‘ডান হাত’ হেসেই খুন, পাগল নাকি! বিপিএল (বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগ) আর নিউজিল্যান্ডে বাংলাদেশের সিরিজ আছে। ওই সময়ে কী করে বিগ ব্যাশে খেলবে মুস্তাফিজ?’ তখনো বোঝা যায়নি, ‘বড় খবর’টা এমন আচমকা আসবে। মুস্তাফিজের একান্ত ঘনিষ্ঠ ব্যক্তিটি একরকম নিশ্চিত করেই বলে দিলেন, ‘ও তো ইংল্যান্ডেই যাবে না!’

বোঝা গেল মুস্তাফিজের সঙ্গে টেলিফোনে নিয়মিত যোগাযোগ আছে তার, ‘আইপিএলে ভালো করছে। কিন্তু ওর শরীর আর মন দুটোই ক্লান্ত। ২০ বছর বয়সে টানা খেলার ধকল অনেক বেশি। তার ওপর মুস্তাফিজ পেস বোলার।’ এ চিন্তা বেশ কিছুদিন ধরেই বিসিবির উঁচুতলায় ঘুরপাক খাচ্ছে। চোটের কথা বলে জানুয়ারি-ফেব্রুয়ারিতে আমিরাতে অনুষ্ঠিত পাকিস্তান সুপার লিগে (পিএসএল) করাচি কিংসে নাম লিখিয়েও যাননি মুস্তাফিজ। ইংলিশ কাউন্টি দল সাসেক্সও আইপিএল শেষেই পেতে যাচ্ছে একই ধরনের একটি দুঃসংবাদ! সরকারিভাবে বলা হচ্ছে, ব্রিটিশ ভিসার জন্য আইপিএল শেষে ঢাকায় ফিরবেন মুস্তাফিজ। যদিও বাংলাদেশিদের জন্য ব্রিটিশ ভিসা এখন ইস্যুই হয় ভারতে!

তবু সানরাইজার্স হায়দরাবাদের আইপিএল মৌসুম শেষ হলেই দেশে ফিরবেন মুস্তাফিজ। সে কারণ জানিয়েছেন তার ঘনিষ্ঠজন, ‘মাঠের বাইরে ওর জীবনটা বড্ড একঘেয়ে। রুমেই থাকে। সাতক্ষীরার সাধারণ একটা ছেলের ওই পরিবেশ খুব ভালো লাগার কথা নয়। আত্মীয়স্বজন, বন্ধু আর নিজের চেনা পরিবেশটা খুব মিস করছে মুস্তাফিজ। তাছাড়া ওর সবচেয়ে বড় গুণ হলো নিজের অবস্থাটা বোঝে। ক্যারিয়ারের মাত্রই শুরু। তাই দীর্ঘ সময় খেলার জন্য সবরকমের সতর্কতা মেনে চলে। সবাই ওর বোলিংয়ের প্রশংসা করেন। ওর এই গুণটা আরো অভাবিত। ভাবা যায় এককথায় পিএসএলের ৫০ হাজার ডলার ছেড়ে দিয়েছে। কাউন্টির ৩০ হাজার পাউন্ডও ওকে টানছে না!’ সঙ্গে চোটের ভয় আছে বলে ‘টেপিং’ করে খেলছেন মুস্তাফিজ।

অর্থকরীর ব্যাপারটা অভাবিতই। সামান্য কটা টাকার জন্য ঢাকা প্রিমিয়ার লিগের খেলার ফাঁকে চট্টগ্রামে ‘খেপ’ খেলতে ছুটছেন যে দেশের ক্রিকেটাররা, সে দেশেরই একজন কিনা ডলার-পাউন্ড বিসর্জন দিচ্ছেন! কিন্তু সুযোগ থাকার পরও মুস্তাফিজের পিএসএল না যাওয়া কিংবা কাউন্টিতে খেলার গৌরব ভবিষ্যতের জন্য তুলে রাখার মানসিকতা এ দেশের ক্রিকেটে একেবারেই নতুন অভিজ্ঞতা।

অবশ্য মুস্তাফিজ তো নিত্যনতুন অভিজ্ঞতা সেই আন্তর্জাতিক অভিষেকের দিন থেকেই দিয়ে চলেছেন। স্লোয়ারে চমকে দেওয়ার শুরু, এরপর একে একে কাটার থেকে ইয়র্কার এবং ব্যাখ্যাতীত আরো অনেক অস্ত্রে ব্যাটসম্যানের নাভিশ্বাস তোলা অনুজকে দেখে মাশরাফি বিন মর্তুজার দরাজ সার্টিফিকেট, ‘এমন প্রতিভা বাংলাদেশ আগে কখনো পায়নি।’

অবশ্য মুস্তাফিজের প্রশংসায় ক্রিকেট মানচিত্রে দেশভেদ নেই। কমেন্ট্রি বক্স থেকে মুস্তাফিজকে দেখে বিপিএল অভিজ্ঞতার কথা বলেন বিশ্ব টি-টোয়েন্টি জয়ী ওয়েস্ট ইন্ডিজ অধিনায়ক ড্যারেন সামি তো হায়দরাবাদের ভিভিএস লক্ষ্মণ খুঁজে পান স্বর্ণসময়ের ওয়াসিম আকরামকে। বৈশ্বিক ক্রিকেটে এক সাবেককে অন্তর থেকে ঘৃণা করেন বাংলাদেশি ক্রিকেটাররা, তিনি রবি শাস্ত্রী। ভারতের টিম ডিরেক্টরেরও মাশরাফিদের সম্পর্কে খুব উঁচু ধারণা নেই বলেই হয়তো ম্যাচের পর হাত মেলানোর সৌজন্য দেখানোর প্রয়োজন বোধ করেন না! তো, এহেন শাস্ত্রীও বাংলাদেশের মুস্তাফিজের জন্য নাকি উপযুক্ত বিশেষণ খুঁজে পাচ্ছেন না আজকাল! মোটকথা এ সময়ের সবচেয়ে আলোচিত বোলার মুস্তাফিজ, তা আইপিএল বোলারদের চার্টে তার ওপরে দুজন থাকলেও। রান কিংবা উইকেটসংখ্যাই তো আর সব নয়। প্রতি ম্যাচে বলে বলে ব্যাটসম্যানকে ধন্দে রাখার কারণেই মুস্তাফিজ ‘ম্যাজিক্যাল’।

বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি) সভাপতি নাজমুল হাসানের টিপিক্যাল একটা হাসি আছে। গতকাল আবাহনী বনাম রূপগঞ্জ ম্যাচ দেখতে মিরপুরে নিজের কার্যালয়ে বসে সে হাসির সঙ্গে জানালেন, ‘আইসিসির সভায় সবাই যে মুস্তাফিজকে নিয়ে কী কী বললেন! নাম বলব না, এক-দুইটা দেশের বোর্ড প্রেসিডেন্টরা তো মুস্তাফিজকে নাগরিকত্ব দিয়ে বাংলাদেশ থেকে ভাগিয়ে নেওয়ার কথাও বলেছেন!’ বিসিবি প্রধানের হাসিতে পরিষ্কার এই ভাগিয়ে নেওয়ার পাঁয়তারা নিছকই রসিকতা, যে রসিকতা নাজমুল হাসান তো বটেই, পুরো দেশের জন্যই গর্বের।

পরক্ষণেই সিরিয়াস নাজমুল হাসান, ‘মুস্তাফিজকে বিশেষভাবে যত্ন নিতে হবে। ও আমাদের দেশের সম্পদ।’ বলতে বলতেই উপস্থিত পারিষদদের কাছে মুস্তাফিজের কাউন্টি খেলতে যাওয়া ঠিক হবে কি না, প্রশ্ন ছুড়ে দিলেন। স্বভাবতই সমবেতদের কাছ থেকে সমর্থনই পেয়েছেন বিসিবি সভাপতি। চোটের আশঙ্কায় মুস্তাফিজকে কাউন্টি খেলতে দিতে রাজি নন তাদের কেউই। চার দিনের ম্যাচ হলে তবু কথা ছিল, কিন্তু সাসেক্সের হয়ে টি-টোয়েন্টি খেলে মুস্তাফিজের উপকারের চেয়ে অপকারের আশঙ্কাই বেশি তাদের মনে।

ম্যাচ টি-টোয়েন্টি, তবে কাউন্টি সার্কিটে ম্যাচ বিরতিটা অনেক লম্বা। তাতে ‘হোমসিকনেস’ গ্রাস না করে ফেলে মুস্তাফিজকে। বাঁহাতি এ পেসারের ঘনিষ্ঠ মানুষটি আশ্বস্ত করলেন, ‘ব্যাপারটা মুস্তাফিজ সবচেয়ে ভালোভাবে বুঝতে পারছে। ও (ইংল্যান্ড) যাবে না!’

তার মানে আন্তর্জাতিক ক্যারিয়ারের শুরুতেই প্রায় এক লাখ ডলার পায়ে ঠেললেন মুস্তাফিজ। কথা ছিল পিএসএলের ‘ক্ষতিপূরণ’ দেবে বোর্ড, যা এখনো পাননি তিনি। কাউন্টি সম্ভবত স্বেচ্ছায়ই বাদ দিচ্ছেন মুস্তাফিজ। কিন্তু কত দিন ডলার-পাউন্ডের হাতছানি উপেক্ষা করবেন মুস্তাফিজ? তার সতীর্থ এবং বোর্ড কর্মকর্তাদের বড় অংশই মনে করেন একমাত্র ক্ষতিপূরণ দেওয়াতে মিলবে দীর্ঘ মেয়াদে মুস্তাফিজকে পাওয়ার নিশ্চয়তা।

সূত্র: কালের কণ্ঠ

নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৬

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি : মকিস মনসুর আহমদ, প্রধান সম্পাদক : লিয়াকত শাহ ফরিদী
সম্পাদক ও প্রকাশক : কে এ রহিম, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
কার্যালয়: ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট-৩১০০
ফোন : ০৮২১-৭২৬ ৫২৭ (নিউজ), ০১৭১২ ৮৮ ৬৫ ০৩ (সম্পাদক)
ই-মেইল: dailysylhet@gmail.com

Developed by: