সর্বশেষ আপডেট : ৪৩ সেকেন্ড আগে
বুধবার, ৭ ডিসেম্বর, ২০১৬, খ্রীষ্টাব্দ | ২৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৩ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET

পাঁচ পয়সা চুরি মামলা চলছে ৪০ বছর ধরে!

7আন্তর্জাতিক ডেস্ক: পাঁচ পয়সা চুরির অপবাদ থেকে মুক্তি পাওয়ার জন্য টানা ৪০ বছর ধরে মামলা করে চলেছেন ভারতের রণবীর সিং যাদব নামের এক ব্যক্তি। ইতিমধ্যে ৫ পয়সার কেলেঙ্কারি থেকে মুক্তি পাওয়ার জন্য তিনি খরচ করে ফেলেছেন কয়েক লাখ রুপি। কিন্তু দুর্ভাগ্য, এখনো নিষ্পত্তি হয়নি পাঁচ পয়সার মামলা।
জানা গেছে, ১৯৭৩ সালে এই পাঁচ পয়সা চুরির ঘটনার সূত্রপাত। দিল্লির বাসিন্দা রণবীর সিং যাদব তখন দিল্লি ট্রান্সপোর্ট করপোরেশনের বাস কন্ডাক্টর হিসেবে কর্মরত ছিলেন। সেই সময় তাঁর বিরুদ্ধে একটা অভিযোগ ওঠে।

অভিযোগে বলা হয়, রণবীর সিং যাদব নাকি সরকারকে ঠকিয়ে পাঁচ পয়সা পকেটস্থ করেছেন। এক মহিলা যাত্রীর কাছ থেকে ১৫ পয়সা ভাড়া নিয়ে তিনি ১০ পয়সার টিকিট দিয়েছিলেন। বাকি ৫ পয়সা রণবীর সিং যাদব নিজের পকেটে ঢূকিয়ে নেন বলে অভিযোগ ওঠে। ওই ঘটনার পরিপ্রেক্ষিতে দিল্লি ট্রান্সপোর্ট করপোরেশনের তদন্তে ১৯৭৬ সালে চাকরি হারান রণবীর সিং যাদব।

সেই সময় সরকারি চাকরি হারিয়ে রীতিমতো অথৈ পানিতে পড়েন তিনি। কিন্তু অন্যায়ের বিরুদ্ধে দাঁতে দাঁত চেপে লড়াই করার পরিকল্পনা নেন। সিদ্ধান্ত নেন, পাঁচ পয়সার চোর অপবাদ ঘোচাতে সরকারের বিরুদ্ধে আদালতে যাবেন। সেই মতো আদালতেও যান তিনি।

তখন থেকে টানা ৪০ বছর ধরে চালিয়ে যাচ্ছেন মামলা। একদিকে রণবীর সিং যাদব। অন্যদিকে দিল্লি ট্রান্সপোর্ট করপোরেশন। দিল্লি লেবার কোর্টে প্রথম জয় পান রণবীর। আদালত তাঁর রায়ে জানিয়ে দেন, রণবীরকে অনৈতিকভাবে ছাঁটাই করেছে দিল্লি ট্রান্সপোর্ট করপোরেশন। এরপর মামলা গড়ায় দিল্লি হাইকোর্টে।
সেখানেও গত জানুয়ারি মাসে জয়ী হন রণবীর সিং যাদব।

দিল্লি হাইকোর্ট তাঁর রায়ে জানিয়ে দেন, দিল্লি ট্রান্সপোর্ট করপোরেশন রণবীরকে ক্ষতিপূরণ বাবদ ৩০ হাজার রুপি দেবে। সেইসঙ্গে এক লাখ ২৮ হাজার রুপি গ্র্যাচুইটি এবং এক লাখ ৩৭ হাজার রুপি সিপিএফ বাবদ প্রদান করতে হবে রণবীর সিং যাদবকে।

কিন্ত হাইকোর্টে জিতেও স্বস্তি মেলেনি রণবীরের জীবনে। ক্ষতিপূরণের অর্থ তো পাননি উলটো রণবীরের বিরুদ্ধে দিল্লি ট্রান্সপোর্ট করপোরেশন ফের মামলা শুরু করেছে উচ্চ আদালতে। ইতিমধ্যে কয়েক লাখ রুপি ব্যয় হয়ে যাওয়া সত্ত্বেও থামতে রাজি নন রণবীর। জানিয়েছেন, আরো টাকা যায় যাবে। পাঁচ পয়সার চোর অপবাদ থেকে মুক্তির জন্য জীবনের শেষ দিন পর্যন্ত লড়াই চালিয়ে যাবেন তিনি।

নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৬

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি : মকিস মনসুর আহমদ, প্রধান সম্পাদক : লিয়াকত শাহ ফরিদী
সম্পাদক ও প্রকাশক : কে এ রহিম, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
কার্যালয়: ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট-৩১০০
ফোন : ০৮২১-৭২৬ ৫২৭ (নিউজ), ০১৭১২ ৮৮ ৬৫ ০৩ (সম্পাদক)
ই-মেইল: dailysylhet@gmail.com

Developed by: