সর্বশেষ আপডেট : ৫৪ মিনিট ৪২ সেকেন্ড আগে
বুধবার, ৭ ডিসেম্বর, ২০১৬, খ্রীষ্টাব্দ | ২৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৩ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET

খালেদা জিয়ার স্বপ্ন; একদিন বিএনপির হাল ধরবে নাতনি জাইমা

full_158864685_1462529084নিউজ ডেস্ক::
রাজপথে আন্দোলন গড়তে ব্যর্থ বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দল বিএনপি’র ষষ্ঠ কাউন্সিলের পর রাজনৈতিক বিশ্লেষক ও দেশি-বিদেশী গণমাধ্যমের মতে মা খালেদা জিয়া ও ছেলে তারেক রহমানের দূরত্ব আরও বেড়েছে। বিএনপি’র ভবিষ্যৎ কাণ্ডারি হিসেবে বর্তমান সিনিয়র ভাইস চেয়ারম্যান তারেক রহমানকে দেখা যেতে পারে, এমন সম্ভাবনার কথা বেশ পুরোনো। তবে বিএনপির হাইকমান্ড ভিন্ন কিছু ভাবছে, এমন আভাস দিয়েছে কলকাতার প্রভাবশালী দৈনিক আনন্দবাজার পত্রিকা।

পত্রিকাটিতে প্রকাশিত এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, ‘খালেদা নিজে পুত্র তারেকের সঙ্গে কথা বলতে চান না। বরং তারেক কন্যাকে (জাইমা রহমান) তিনি খুবই ভালবাসেন। যথেষ্ট আদরে তাকে আগলে রেখেছেন। খালেদার স্বপ্ন, নাতনীই (জাইমা রহমান) একদিন দলের হাল ধরবে’। যদিও একসময়ে দেশের রাজনৈতিক অঙ্গনে খবর ছিলো যে, তারেক রহমানের স্ত্রী ডা. জোবাইদা রহমান দলের হাল ধরছেন।

বিএনপি’র ভবিষ্যৎ নেতৃত্ব নিয়ে প্রকাশিত আনন্দবাজার প্রতিবেদনে খালেদা-তারেক সম্পর্কের বর্তমান টানাপোড়েনকে ১৯৭৭ সালে ভারতে ক্ষমতা হারানো কংগ্রেস নেত্রী ইন্দিরা গান্ধীর সঙ্গে পুত্র সঞ্জয় গান্ধীর তৎকালীন অস্বস্তিকর সম্পর্কের তুলনা করা হয়েছে।

পরিস্থিতির তুলনা বোঝাতে আনন্দবাজার লিখেছে, ‘সঞ্জয় গান্ধীকে নিয়ে এক সময় বেশ বেকায়দা বা অস্বস্তিতে পড়েছিলেন ইন্দিরা গান্ধী। ১৯৭৭ সালে ক্ষমতা হারানোর জন্য কি মনে মনে সঞ্জয়কেই দুষতেন তিনি? আজ আর এসব প্রশ্নের নিশ্চিত উত্তর পাওয়া সম্ভব নয়। তবে একই রকম ঘটনার পুনরাবৃত্তি কোথাও না কোথাও হয়। বাংলাদেশের সাবেক প্রধানমন্ত্রী বেগম খালেদা জিয়ার রাজনৈতিক পরিক্রমাতেও তেমন একটা আঁচ পাওয়া যায়। দু’দুবার প্রধানমন্ত্রী হওয়া সত্ত্বেও জ্যেষ্ঠ পুত্র তারেক রহমানকে নিয়ে তিনি ব্যতিব্যস্ত। সামলাতে নাজেহাল। বাংলাদেশকে চার জোনে ভাগ করে তারেক তার পছন্দের যুব নেতৃত্বের হাতে সাংগঠনিক দায়িত্ব তুলে দিয়েছিলেন। অসহায় দর্শকের ভূমিকা ছিল বেগম খালেদা জিয়ার’।

ব্যাপক দুর্নীতির বোঝা মাথায় নিয়ে ২০০৯ সাল থেকে লন্ডনে নির্বাসিত জীবন কাটাচ্ছেন খালেদা জিয়ার জেষ্ঠ্য পুত্র তারেক রহমান। পর পর দুই মেয়াদে ক্ষমতায় আসতে না পারা এবং সরকারবিরোধী আন্দোলনে রাজপথে ব্যর্থ বিএনপি’র অবস্থাকে ‘হাড়গোড় ভাঙা ‘দ’’ হিসেবে উল্লেখ করেছে আনন্দবাজার। তাই বয়স হলেও দলগোছাতে মরিয়া খালেদা।

তবে তারেক যে সুযোগের অপেক্ষায় আছেন তাও উঠে এসেছে পশ্চিমবঙ্গের পত্রিকাটিতে। আনন্দবাজারের প্রতিবেদন অনুযায়ী, তারেক মায়ের হাতে সব দায়িত্ব ছেড়ে বসে থাকতে নারাজ। রিমোট কন্ট্রোলে দলের কর্তৃত্ব রাখতে চেষ্টার ত্রুটি করছেন না। ফোনে যোগাযোগ রাখছেন কাছের নেতাদের সঙ্গে’।

মা-ছেলের দূরত্ব নিয়ে আনন্দবাজার লিখেছে, ‘আপাতত দলের চেয়ারপার্সন বেগম খালেদা জিয়া। সিনিয়র ভাইস চেয়ারম্যান তারেক রহমান। ষষ্ঠ জাতীয় কাউন্সিলের পর সেভাবে তারেকের কোনও ইচ্ছেরই মূল্য দেওয়া হচ্ছে না। তিনি দলের গঠনতন্ত্রের সংশোধন চেয়েছিলেন। দলে কো-চেয়ারম্যানের পদ সৃষ্টির দাবি ছিল তার। ভেবেছিলেন সেই পদে তার লোক থাকলে খালেদার ক্ষমতা খর্ব হবে। তিনি নেপথ্যে থেকে ছড়ি ঘোরাতে পারবেন। সেটা হয়নি, সিনিয়র ভাইস চেয়ারম্যান হিসেবে তার অধিকারও সঙ্কুচিত। উপদেষ্টা পরিষদে তিনি যুক্ত থাকতে পারছেন না’।

দলের শীর্ষে এমন টালমাটাল পরিস্থিতিতে ধানের শীষ যেনো নুইয়ে না পড়ে সেজন্য ভবিষ্যতে দাগমুক্ত তরুণ নেতৃত্বের খোঁজ চলার ইঙ্গিত দেখা যাচ্ছে বিএনপিতে। তারেক রহমানের কন্যা জাইমা রহমানকে বিবেচনা করছে দলটির ভেতরের সংশ্লিষ্টরা।

খালেদা জিয়ার পর তার একমাত্র জীবিত পুত্র তারেক রহমানকে দলের পুরো দায়িত্ব দেয়ার বদলে বিতর্কমুক্ত থাকতে এতদিন তার জায়গায় তারেকের স্ত্রী ডা. জোবায়দা রহমান আসছেন এমন কানাঘুষা শোনা গেলেও এখন তাদের কন্যা জাইমা রহমানকে এই দায়িত্ব দেওয়ার জন্য বিএনপিতে প্রভাবশালী কিছু মানুষ আলোচনা করছেন। যদিও এটি এখনও চূড়ান্ত কোনো সিদ্ধান্তের পর্যায়ে আসেনি ।

জাইমা রহমান: বিএনপির প্রতিষ্ঠাতা জিয়াউর রহমানের নাতনী জাইমা রহমান বর্তমানে বাবা-মায়ের সঙ্গে লন্ডনে বসবাস করছেন। লেখাপড়া করছেন আইন বিষয়ে। পারিবারিক রাজনৈতিক আবহের কারণ ছাড়াও নানা বিষয়ে বিএনপির রাজনীতির প্রতি তিনি সম্প্রতি বেশ আগ্রহী হয়ে উঠেছেন বলে জানা গেছে।

এছাড়া জাইমা রহমান তৃণমূল বিএনপিতে বাবা তারেক রহমানের জনপ্রিয়তা দেখে রাজনীতির প্রতি দিন দিন আকৃষ্ট ও অনুপ্রানিত হচ্ছেন বলেও বিএনপি-ঘনিষ্ঠ সূত্রে জানা যায়। সেই সঙ্গে মা ডা. জোবায়দা রহমানের রাজনীতি সচেতন ব্যক্তিত্ব মেয়ে জাইমা রহমানকে ভবিষ্যত রাজনীতিতে পরিচিত মুখ হিসেবে সামনে নিয়ে আসতে পারে।

জাইমা রহমানের রাজনৈতিক মাঠে পদচারনা শুরু হয়েছিল বাংলাদেশে অবস্থানকালে দাদী বিএনপি চেয়ারপার্সন ও সাবেক প্রধানমন্ত্রী বেগম খালেদা জিয়ার সান্নিধ্যে। তৎকালীন প্রধানমন্ত্রী বেগম খালেদা জিয়ার সঙ্গে কিশোরী জাইমাকে দেখা যেতো বিভিন্ন অনুষ্ঠান-আয়োজনে।

নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৬

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি : মকিস মনসুর আহমদ, প্রধান সম্পাদক : লিয়াকত শাহ ফরিদী
সম্পাদক ও প্রকাশক : কে এ রহিম, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
কার্যালয়: ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট-৩১০০
ফোন : ০৮২১-৭২৬ ৫২৭ (নিউজ), ০১৭১২ ৮৮ ৬৫ ০৩ (সম্পাদক)
ই-মেইল: dailysylhet@gmail.com

Developed by: