সর্বশেষ আপডেট : ১ ঘন্টা আগে
বুধবার, ৭ ডিসেম্বর, ২০১৬, খ্রীষ্টাব্দ | ২৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৩ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET

কুলাউড়ার ৩ ইউনিয়নে আ’লীগ প্রার্থীর বিরুদ্ধে অন্যান্য প্রার্থীদের অভিযোগ

01.-daily-sylhet-UP-ect11কুলাউড়া অফিস:
কুলাউড়া উপজেলার ভাটেরা, হাজীপুর ও শরীফপুর ইউনিয়নে ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ প্রার্থী সৈয়দ একেএম নজরুল ইসলামের বিরুদ্ধে পেশিশক্তি, আচরণবিধি লঙ্ঘন, ক্ষমতার দাপট ও ভোট ডাকাতির অভিযোগ অন্যান্য প্রার্থীদের।

ভাটেরা ইউনিয়ন নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে ৭ প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। এই ইউনিয়নে আওয়ামী লীগ প্রার্থী সৈয়দ একেএম নজরুল ইসলাম ও স্বতন্ত্র প্রার্থী সাইফুল আলম সিদ্দিকী পরস্পরের বিরুদ্ধে অভিযোগ করেছেন। তাছাড়া বাকি প্রার্থীরা শুধমাত্র আওয়ামী লীগ প্রার্থী সৈয়দ একেএম নজরুল ইসলামের বিরুদ্ধে অভিযোগ করেছেন। সকল প্রার্থীরা অভিযোগ করেন, আওয়ামী লীগ প্রার্থী সৈয়দ একেএম নজরুল ইসলাম নির্বাচনী আচরণবিধি লঙ্ঘণ করে মিছিল মিটিং ও প্রচারণা চালাচ্ছেন। স্কুলের শিক্ষার্থীদের এনে তিনি মিছিল করাচ্ছেন। বহিরাগত লোকদিয়ে হোন্ডা মিছিল করে এলাকায় আতঙ্ক ছড়াচ্ছেন। তিনি কাউকে তোয়াক্কা না করে পেশিশক্তির ব্যবহার করে মানুষকে হুমকি ধামকি দিচ্ছেন। স্বতন্ত্র প্রার্থী সাইফুল আলম সিদ্দিকী ও জাতীয় পার্টির প্রার্থী আকমল হোসেন তালুকদার অভিযোগ করেন, আওয়ামী লীগের প্রার্থী ঘোষণা দিয়েছেন তার ভোট গণনা হবে এক হাজার এক থেকে। আর সবার ভোট গণনা হবে এক থেকে। এছাড়া বহিরাগত ভাড়াটে লোক এনে তিনি কেন্দ্র দখলের পরিকল্পনা করছেন। ভাটেরা ইউনিয়নের সবক’টি কেন্দ্রে অতিরিক্ত নিরাপত্তা জোরদার করার দাবি বাকি ৭ প্রার্থীর।

হাজীপুর ইউনিয়নের আওয়ামী লীগ প্রার্থী ওদুদ বক্স। যিনি একজন চিহ্নিত অপরাধী। যার বিরুদ্ধে উপজেলা পরিষদে আইন শৃঙ্খলা বিষয়ক সভায় অপরাধী হিসেবে রেজুলেশন করা আছে। ভোটের পর ভোটারদের দেখে নেয়ার হুমকি। ভোটকেন্দ্র দখল করে জেতার প্রকাশ্য ঘোষণা দিয়ে বেড়াচ্ছেন। এই ইউনিয়নে হাজীপুর, মনুগাজীপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ও ভুঁইগাঁও ভোট কেন্দ্র অধিক ঝুঁকিপূর্ণ বলে বিএনপি প্রার্থী মাহমুদ আলী অভিযোগ করেন।

শরীফপুর ইউনিয়ন সাধারণ ভোটাররা জানান, আওয়ামীলীগ প্রার্থী ও বর্তমান চেয়ারম্যান তোফাজ্জল হোসেন চিনু মিয়ার আগে মাদক ব্যবসা ছিল না। তবে বিগত পাঁচ বছর চেয়ারম্যান তোফাজ্জল হোসেনের ছোট ভাই তানু মিয়ার মাদক ব্যবসা নিয়ন্ত্রণ, নানা অপকর্ম তোফাজ্জল হোসেনের জনপ্রিয়তায় ঢল নেমেছে। তোফাজ্জল হোসেন নিজেও ছোট ভাইয়ের মাদক ব্যবসায় মদদ দানসহ শরীফপুরে একটি শক্তিশালী অপরাধী চক্র গড়ে তুলেছেন। এসব অপরাধীদের তিনি নিজের প্রয়োজনেও ব্যবহার করেন। এজন্য বিগত পাঁচ বছর তোফাজ্জল হোসেন সরকারী বিবিন্ন প্রকল্পে অনিয়ম করলেও ভয়ে কেউ তার প্রতিবাদ করতে সাহস পায়নি।

এসব কারণে প্রার্থী বাছাইকালে স্থানীয় ওয়ার্ড ও ইউনিয়ন কমিটির আওয়ামী লীগ, যুবলীগ ও ছাত্রলীগ নেতাকর্মীরা তোফাজ্জল হোসেনকে প্রার্থী না দিয়ে নতুন প্রার্থী মনোনয়ন দানের আবেদন করেছিলেন। বিতর্কিত তোফাজ্জল হোসেন নির্বাচনেও তার অপরাধীচক্র ব্যবহার করে ভোট ডাকাতির চেষ্টা করছেন। এই ইউনিযনের সবক’টি ভোট কেন্দ্র ঝুঁকিপূর্ণ। ঝুঁকিপূর্ণ এসব কেন্দ্রে অতিরিক্ত নিরাপত্তা ব্যবস্থার দাবি আওয়ামীলীগের বিদ্রোহী প্রার্থী খলিলুর রহমান ও বিএনপি প্রার্থী জুনাব আলীর।

এ ব্যাপারে কুলাউড়া থানার অফিসার ইনচার্জ মোঃ শামসুদ্দোহা পিপিএম নির্বাচন সংক্রান্ত বিভিন্ন পথসভায় ঘোষণা দেন, কুলাউড়ার আগের ৭টি ইউনিয়নের নির্বাচন দেখেও যদি কেউ কিছু কল্পনা করেন, তাহলে সেটা হবে বোকামি।

মৌলভীবাজারের পুলিশ সুপার মোঃ শাহজালাল তার বক্তব্যে বলেন, কেন্দ্র দখল আর পেশিশক্তি এসব চিন্তা ছেড়ে মানুষের কাছে যান। ভোট চান। কোন ধরনের পেশিশক্তি ব্যবহারের সুযোগ মৌলভীবাজারে চিন্তা করে লাভ নেই। মাস্তানির চিন্তা মাথা থেকে বাদ দিন। পুলিশ হচ্ছে লাইসেন্সধারী মাস্তান।

এ বিভাগের অন্যান্য খবর

নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৬

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি : মকিস মনসুর আহমদ, প্রধান সম্পাদক : লিয়াকত শাহ ফরিদী
সম্পাদক ও প্রকাশক : কে এ রহিম, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
কার্যালয়: ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট-৩১০০
ফোন : ০৮২১-৭২৬ ৫২৭ (নিউজ), ০১৭১২ ৮৮ ৬৫ ০৩ (সম্পাদক)
ই-মেইল: dailysylhet@gmail.com

Developed by: