সর্বশেষ আপডেট : ১৪ মিনিট ৫৩ সেকেন্ড আগে
বুধবার, ৭ ডিসেম্বর, ২০১৬, খ্রীষ্টাব্দ | ২৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৩ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET

‘৩০ হিন্দু পরিবার দেশ ত্যাগে বাধ্য হয়েছে’

Jessore-maynarity20160429151337নিউজ ডেস্ক::
যশোরের চৌগাছা উপজেলার পাশাপোল ইউনিয়নের কয়েকটি গ্রাম পরিদর্শন করেছেন বাংলাদেশ হিন্দু বৌদ্ধ খ্রিস্টান ঐক্য পরিষদের সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট রানা দাশগুপ্ত।

পরিদর্শন শেষে শুক্রবার বিকেলে যশোর প্রেসক্লাবে সংবাদ সম্মেলনে তিনি অভিযোগ করেন, স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যানের শাহীনুর রহমান শাহীন ও তার বাহিনীর অত্যাচারের এলাকার অন্তত ৩০টি হিন্দু পরিবার দেশ ত্যাগে বাধ্য হয়েছে।

সংখ্যালঘু পরিবারের কিশোরীকে আটকে রেখে ৩ বিঘা জমি লিখে নেওয়া হয়েছে। এলাকার ত্রাস শাহীন ও তার বাহিনীর ভয়ে কেউ মুখ খুলতে সাহস পাচ্ছেনা।

লিখিত বক্তব্যে অ্যাডভোকেট রানা দাশগুপ্ত অভিযোগ করেন, চৌগাছা উপজেলার ২ নম্বর পাশাপোল ইউনিয়নের চেয়ারম্যান শাহীনুর রহমান শাহীন নির্বাচিত হওয়ার পর থেকে ধর্মীয় সংখ্যালঘু সম্প্রদায়ের ওপর নির্যাতন শুরু করেছে। তার নির্যাতনে ইউনিয়নে কয়েকটি গ্রামের অন্তত ৩০টি পরিবারের দেড়শতাধিক সদস্য ভারতে চলে যেতে বাধ্য হয়েছেন।

শাহীন চেয়ারম্যান ও তার বাহিনীর নির্যাতনে পাশাপোল ইউনিয়নের বারীখালি গ্রামের মোহন, হাজারী, চন্ডী, বিজয়, বাদল, নিখিল, গোপাল, প্রসেন, দীপক, নিতাই, পবিত্র, অজিতের ৩ পুত্র, মহাদেব, শান্তিরামের পুত্র, বলয়, তুষার, তপন, কুশপদ, দীপক ও বিমল নিজ নিজ পরিবার নিয়ে দেশত্যাগে বাধ্য হয়েছেন।

বারীখালি গ্রামের ধীরেন, রানীয়ালি গ্রামের পঞ্চানন বিশ্বাস, মালিগাতি গ্রামের জয়দেব, বড়গোবিন্দপুর গ্রামের কার্তিক শাহীন চেয়ারম্যানের অত্যাচারে ভিটে ছাড়া হয়েছে। তার নির্যাতনে এলাকায় বিভীষিকাময় পরিস্থিতির সৃষ্টি হয়েছে।

অ্যাডভোকেট রানা দাশগুপ্ত বলেন, শাহীন চেয়ারম্যানের নেতৃত্বে ড. মহিতোষের কিশোরী মেয়েকে দুই দিন আটকে রেখে ৩ বিঘা জমি লিখে নেওয়া হয়েছে। পরে ওই পরিবার দেশত্যাগে বাধ্য হয়েছে। শাহীন চেয়ারম্যানের অত্যাচারের বিষয়টি জানতে পেরে পুলিশ জনগনের জানমাল রক্ষা এগিয়ে এসেছে। পুলিশ বাদী হয়ে মামলা করেছে।

ইতোমধ্যে পুলিশ একজনকে আটকও করেছে। এদিকে, শুক্রবার সকালে স্থানীয় রানিয়ালি স্কুল মাঠে সংখ্যালঘু নির্যাতনের প্রতিবাদ সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়েছে। এই সমাবেশ থেকে যশোরের পুলিশ সুপার শাহীন চেয়ারম্যানকে আটকে ২৫ হাজার টাকার পুরস্কার ঘোষণা করেন। প্রশাসনের এই পদক্ষেপে সন্তোষ প্রকাশ করেন রানা দাশগুপ্ত।

তিন আরও বলেন, শাহীন চেয়ারম্যন সুবিধাবাদী। যখন যে দল আসে, তখন সেই দলের হয়ে আখের গোছায়। শাহীন চেয়ারম্যানের বড় পরিচয় সন্ত্রাসী। সে যেন আগামী নির্বাচনে মনোনয়ন না পায় সেই দাবি জানাই। শাহীন চেয়ারম্যান মনোনয়ন পেলে সংখ্যালঘুরা ভোট বর্জন করবে।

অপরদিকে অভয়নগরের মালোপাড়ায় সংখ্যালঘু নির্যাতনে নেতৃত্বদানকারী পরিবারের সদস্যকে প্রেমবাগ ইউনিয়নের আওয়ামী লীগের চেয়ারম্যান পদে মনোনয়ন দেয়া হয়েছে। এটা দুঃখজনক ঘটনা। ওই এলাকায় সংখ্যালঘুরা নির্বাচন বর্জন করবে।

সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন, যশোর-৫ আসনের সংসদ সদস্য স্বপন ভট্টাচার্য, বাংলাদেশ পূজা উদযাপন পরিষদের ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক নির্মল কুমার চ্যাটার্জি, জেলা পূজা উদযাপন পরিষদের সভাপতি অসীম কুন্ডু, সাধারণ সম্পাদক দীপংকর দাস রতন, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক যোগেশ দত্ত প্রমুখ।

এদিকে, গত ২৫ এপ্রিল চৌগাছার দশপাকিয়া পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ রেজাউল করিম বাদী হয়ে ইউপি চেয়ারম্যান শাহীনুর রহমান শাহীনসহ ৭ জনের নাম উল্লেখসহ অজ্ঞাত আরও ১০/১২ জনের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করেছেন।

নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৬

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি : মকিস মনসুর আহমদ, প্রধান সম্পাদক : লিয়াকত শাহ ফরিদী
সম্পাদক ও প্রকাশক : কে এ রহিম, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
কার্যালয়: ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট-৩১০০
ফোন : ০৮২১-৭২৬ ৫২৭ (নিউজ), ০১৭১২ ৮৮ ৬৫ ০৩ (সম্পাদক)
ই-মেইল: dailysylhet@gmail.com

Developed by: