সর্বশেষ আপডেট : ২১ মিনিট ৬০ সেকেন্ড আগে
বুধবার, ১৬ অগাস্ট, ২০১৭, খ্রীষ্টাব্দ | ১ ভাদ্র ১৪২৪ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET

মাহমুদুর রহমানের সাক্ষাৎ পেলেন না তার মা

141172_1নিউজ ডেস্ক::
সজীব ওয়াজেদ জয়কে অপহরণ ও হত্যাচেষ্টার অভিযোগে দায়ের করা মামলায় দৈনিক আমার দেশ-এর ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক মাহমুদুর রহমানকে শুক্রবার দুপুরে পাঁচ দিনের রিমান্ডে নিয়েছে মহানগর গোয়েন্দা পুলিশ (ডিবি)।

২৫ এপ্রিল ঢাকা মহানগর হাকিম গোলাম নবী মাহমুদুর রহমানের ৫ দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন। সাত কার্যদিবসের মধ্যে তাকে ৫ দিনের জন্য রিমান্ডে নেয়ার এবং হাইকোর্টের নির্দেশনা মেনে রিমান্ডে জিজ্ঞাসাবাদের আদেশ দেন।

সকাল ১১ টার দিকে ডিবি পুলিশের একটি দল মাহমুদুর রহমানকে কাশিমপুর কারাগার থেকে ঢাকার মিন্টো রোডে ডিবির প্রধান কার্যালয়ে নিয়ে আসে।

এরপর বিকেলে তার সঙ্গে দেখা করতে এসেছিলেন তার মা অধ্যাপিকা মাহমুদা বেগম এবং আইনজীবী ও সাংবাদিক নেতারা। কিন্তু পুলিশ তাদের দেখা করতে দেয়নি।

আইনজীবীরা জানান, ডিবি অফিসের গেটে কর্তব্যরত পুলিশ জানায় যে, আজ দেখা করা সম্ভব নয়। ফলে বেশ কিছুক্ষন ডিবি অফিসের সামনে সবাইকে নিয়ে দাঁড়িয়ে থাকেন অধ্যাপিকা মাহমুদা বেগম।

এ সময় মাহমুদা বেগম সাংবাদিকদের বলেন, আমার ছেলে মাহমুদুর রহমান নির্দোষ। তার নামে যে মামলাটি দেয়া হয়েছে সেটি একটি মিথ্যা মামলা। যে অভিযোগে মামলাটি হয়েছে এর সঙ্গে আমার ছেলে বিন্দুমাত্র জড়িত নয়। তবুও তাকে রিমান্ডে আনা হয়েছে। এজন্যে এই বৃদ্ধ বয়সে আমি উদ্বিগ্ন এবং নানা শঙ্কায় ভুগছি। তাছাড়া আমার ছেলের শারীরিক অবস্থা খুবই খারাপ। তার ওজন ১০ কেজি কমে গেছে।

মাহমুদা বেগম বলেন, আমি আশা করি রিমান্ডে থাকা অবস্থায় তার সঙ্গে কোনো অসৌজন্যমূলক আচরণ করা হবে না।

তিনি আরো বলেন, আজ সাত বছর ধরে আমরা দুর্ভোগ পোহাচ্ছি। সব মামলায় উচ্চ আদালতে জামিন হলেও আমার ছেলেকে মুক্তি দেয়া হচ্ছে না। এ অবস্থার অবসান চাই, আমার ছেলের মুক্তি চাই। তিনি পুলিশকে ছেলের জন্য আনা কিছু খাবার পৌছে দেয়ার অনুরোধ করলে পুলিশ প্রথমে অপারগতা প্রকাশ করে পরে তা পুনরায় গ্রহণ করে। বাদাম, রুটি, কলা ও পানি পুলিশের হাতে তুলে দেয়া হয়।

সাংবাদিকদের ব্রিফিংকালে মাহমুদুর রহমানের আইনজীবী ও ঢাকা বারের সাবেক সভাপতি অ্যাডভোকেট মাসুদ আহমেদ তালুকদার বলেন, মাহমুদুর রহমানের সঙ্গে তার মাকে সাক্ষাৎ করতে না দেয়ায় আমরা দুঃখ পেয়েছি। তিনি উদ্বিগ্ন হয়ে ছেলের সঙ্গে দেখা করতে এসেছিলেন।

অ্যাডভোকেট মাসুদ বলেন, মাহমুদুর রহমানকে ডিবি পুলিশ আজ ১২ টায় পাঁচ দিনের রিমান্ডে এনেছে। সম্পূর্ণ মিথ্যা একটি মামলায় তাকে জড়ানো হয়েছে এবং সেই মামলায় তাকে রিমান্ডে আনা হয়।

জয়ের নামোল্লেখ না করেই তিনি বলেন, একজন ফেসবুকে স্ট্যাটাস দিল যে, তাকে অপহরণ ও হত্যার ষড়যন্ত্র করা হয়েছে আর তার উপর ভিত্তি করে মামলা দায়ের ও রিমান্ড ইত্যাদির কোনো আইনগত ভিত্তি নেই। আমেরিকার আদালতেও অপহরণের এ গল্প খারিজ হয়ে গেছে। মাহমুদুর রহমানের সঙ্গে এই মামলার কোনো প্রকার সম্পর্ক নেই। এফআইআর এ তার নাম নেই। আমেরিকার আদালতের আদেশে মাহমুদুর রহমানের কোনো প্রসঙ্গ নেই। এমনকি যিনি অপহরণ ও হত্যার অভিযোগ করে ফেসবুকে স্ট্যাটাস দিয়েছেন, তার কোনো স্ট্যাটাসেও মাহমুদুর রহমানের বিরুদ্ধে অভিযোগ নেই।

প্রায় ৮৫টি মামলায় জড়িয়ে ২০১৩ সালের এপ্রিল থেকে কারাগারে আছেন মাহমুদুর রহমান।

এর আগে জয়কে অপহরণ ও হত্যাচেষ্টা মামলায় বিশিষ্ট সাংবাদিককে শফিক রেহমানকে দুই দফায় ১০ দিনের রিমান্ডে নেয় পুলিশ। রিমান্ড শেষে তাকে কারাগারে পাঠানো হয়েছে।

এ সময় আইনজীবীদের মধ্যে অ্যাডভোকেট সালেহ উদ্দিন, অ্যাডভোকেট জয়নাল আবেদিন মেজবাহ, অ্যাডভোকেট সুলতান মোহাম্মদ, আমার দেশ এর নির্বাহী সম্পাদক সৈয়দ আবদাল আহমদ, বিএফইউজের মহাসচিব এম আবদুল্লাহ, ডিইউজের সাধারণ সম্পাদক জাহাঙ্গীর আলম প্রধান, ইঞ্জিনিয়ার রিয়াজুল ইসলাম রিজু, ইঞ্জিনিয়ার চুন্নু প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৬

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি : মকিস মনসুর আহমদ, সম্পাদক : লিয়াকত শাহ ফরিদী
প্রকাশক : কে এ রহিম, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
কার্যালয়: ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট-৩১০০
ফোন : ০৮২১-৭২৬ ৫২৭, ০১৭১৭ ৬৮ ১২ ১৪ (নিউজ), ০১৭১২ ৮৮ ৬৫ ০৩ (সম্পাদক)
ই-মেইল: dailysylhet@gmail.com

Developed by: