সর্বশেষ আপডেট : ১৭ মিনিট ০ সেকেন্ড আগে
শুক্রবার, ৯ ডিসেম্বর, ২০১৬, খ্রীষ্টাব্দ | ২৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৩ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET

ওসমানীনগরে ৭ বছরের শিশু খুন : লাশ গুমের চেষ্টা, আটক ১

2.-daily-sylhet-khun-newsওসমানীনগর, সংবাদদাতা:
ওসমানীনগর উপজেলার সাদীপুর গ্রামে বাড়ি থেকে ডেকে নিয়ে সাত বছরের শিশু রাইদুল মিয়াকে খুন করে লাশ গুমের চেষ্টা করা হয়। নিহত শিশু সাদিপুর ইউনিয়নের সাদিপুর পশ্চিম গ্রামের আনছার মিয়ার ছেলে। খবর পেয়ে থানাপুলিশ রোববার রাত ১০ টার দিকে গ্রামের পার্শ¦বর্তী কুড়ি বিল থেকে শিশুটির লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য সিলেট ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল মর্গে প্রেরণ করে। এ ঘটনায় একই গ্রামের আলম আলীর ছেলে আক্তার মিয়া (২০)-কে পুলিশ আটক করেছে।

এ ব্যাপারে মামলার প্রস্তুতি চলছে বলে নিহতের পারিবারিক সূত্রে জানা গেছে।

সোমবার সরেজমিনে শিশুটির বাড়িতে গিয়ে দেখা গেল, শিশুটিকে হারিয়ে পরিবারের সকল সদস্যরা দিশেহারা হয়ে আছেন। পরিবারসহ গোটা এলাকায় চলছে শোকের মাতম। সাংবাদিক পরিচয় জানতে পেরে ঘরের ভেতর থেকে চিৎকার করতে করতে পেরিয়ে আসেন শিশুর মা ছায়ারুন নেচ্ছা। পাগলের মতো আহাজারি করে হাউমাউ করে বলতে থাকেন, ঘাতক আক্তার তাঁর সহযোগীদের নিয়ে আত্মীয়তার ছলে আমার কাছে এসে পান খেতে চায়।

পান খেয়ে যাওয়ার সময় আমার ছেলেকে ডেকে নিয়ে খুন করে লাশ গুম করে রেখেছিল। আমি আমার ছেলের খোঁজে তাদের বাড়িতে গেলে তার পরিবারের লোকজনসহ আক্তারের সহযোগীরা মিলে আমাকে গালিগালাজ করে বাড়ি থেকে তাড়িয়ে দেয়। আপনারা আমার বুকের ধন ফিরিয়ে দিন বলে প্রায় জ্ঞানহারা হয়ে মাটিতে লুটিয়ে পড়েন। এসময় উপস্থিত ব্যাক্তিবর্গসহ শিশুটির পরিবারের সকল লোকজন সাংবাদিকদের কাছে আক্তারসহ তাঁর সহযোগীদের শাস্তির দাবি জানান।

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, উপজেলার সাদীপুর গ্রামের আলম আলীর পুত্র আক্তার মিয়া রোববার বিকাল ২টায় পার্শ্ববর্তী আনছার আলীর বাড়িতে গিয়ে ৭ বছর বয়সী রাইদুলকে সাথে করে নৌকাযোগে হাওর এলাকায় নিয়ে যায়। এসময় আনছার আলীর স্ত্রী ছেলে না নেয়ার আক্তারকে নিষেধ করেন। আক্তার তখন শিশুটিকে বিকেলে নিজ দায়িত্বে এনে দেবে বলে ছায়ারুন নেচ্ছাকে আশ্বস্ত করে।

এক পর্যায়ে শিশুটিকে নিয়ে চলে যায়। বিকেল পর্যন্ত শিশুটিকে ফিরিয়ে না দেয়ার ছায়ারুন নেচ্ছা আক্তারের বাড়িতে গিয়ে ছেলের সন্ধান জানতে চাইলে আক্তারসহ তার পরিবারের অনান্য সদস্য জানায়, তোমার ছেলেকে কিছুক্ষণ আগে তোমার বাড়ির সামনে নামিয়ে দিয়ে এসেছি। এ কথা বলে ছায়ারুন নেচ্ছাকে গালিগালাজ করে বাড়ি থেকে বের করে দেয়।

পরে অনেক খোঁজাখুজি করে রাইদুলের সন্ধান না পাওয়ায় রাতে বিষয়টি নিয়ে শিশুর পিতা আনছার মিয়া গ্রামবাসীর শরণাপন্ন হন। একপর্যায়ে রাত ৯ টায় গ্রামবাসী লোকজন আক্তারকে চাপ সৃষ্টি করলেও সে জানায় গ্রামের পাশ্ববর্তী কুড়িঁ বিলে রাইদুলের লাশ রয়েছে। অবশেষে আক্তারকে সাথে নিয়ে গ্রামবাসী লোকজন বিলে গিয়ে শিশুটির লাশ দেখতে পেয়ে থানাপুলিশকে খবর দেন। খবর পেয়ে রবিবার রাত ১০ টায় থানার এসআই রমা প্রসাদের নেতৃত্বে একদল পুলিশ কুড়ি বিলে গিয়ে শিশুটির লাশ উদ্ধার করে এবং আক্তারকে আটক করে ।

সোমবার দুপুর ১টার দিকে ময়নাতদন্ত শেষে নিহত রাইদুলের লাশ বাড়ি নিয়ে আসার পর বিকাল তিনটায় পঞ্চায়েতি কবরস্থানে দাফন করা হয়েছে।

ওসমানীনগর থানার অফিসার ইনচার্জ আব্দুল আউয়াল চৌধুরী জানান,খবর পেয়ে পুলিশ লাশ উদ্ধার করেছে। এ ঘটনায় একজনকে আটক করা হয়েছে। নিহতের পরিবারের পক্ষ থেকে থানায় মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে।

এ বিভাগের অন্যান্য খবর

নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৬

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি : মকিস মনসুর আহমদ, প্রধান সম্পাদক : লিয়াকত শাহ ফরিদী
সম্পাদক ও প্রকাশক : কে এ রহিম, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
কার্যালয়: ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট-৩১০০
ফোন : ০৮২১-৭২৬ ৫২৭ (নিউজ), ০১৭১২ ৮৮ ৬৫ ০৩ (সম্পাদক)
ই-মেইল: dailysylhet@gmail.com

Developed by: