সর্বশেষ আপডেট : ২২ মিনিট ৪৯ সেকেন্ড আগে
বুধবার, ৭ ডিসেম্বর, ২০১৬, খ্রীষ্টাব্দ | ২৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৩ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET

“গ্রিনকার্ড পরিকল্পনা” অধীর আগ্রহে প্রবাসী এবং সৌদি নাগরিকরা

full_413794319_1461507167আন্তর্জাতিক ডেস্ক: গ্রিনকার্ড এবং সৌদি আরবের ভবিষ্যৎ পরিকল্পনার বিস্তারিত জানার জন্য অধীর আগ্রহে অপেক্ষা করছেন সৌদি আরবে বসবাসরত সকল প্রবাসী এবং সৌদি নাগরিকরা। আগামীকাল (২৫ এপ্রিল ২০১৬) প্রকাশিত হতে যাচ্ছে সৌদি আরবের নতুন ভবিষ্যৎ পরিকল্পনা। অবশ্য এই পরিকল্পনা প্রকাশিত হবার পূর্বেই বেশীরভাগ সৌদি নাগরিকগণ মনে করেন, তাদের জীবন এবং ভবিষ্যৎ পরিবর্তনে ব্যাপক ভূমিকা রাখবে।

সম্প্রতি নিউ ইয়র্ক ভিত্তিক সাপ্তাহিক ব্লুমবার্গের কাছে এক সাক্ষাতকারে মোহাম্মদ বিন সালমান সর্বপ্রথম “গ্রিনকার্ড পরিকল্পনা” আলোচনায় আনেন। তেল বাণিজ্যের মন্দার কারণে অর্থনীতিকে বহুমুখী করে তুলতে মোহাম্মদ বিন সালমান এমন পরিকল্পনার কথা তুলে ধরেন।

মূলত সৌদি আরবের দীর্ঘদিনের ইতিহাস ভেঙ্গে নতুন ইতিহাস গড়তে যাওয়ার কারণেই এ বিষয়টি শুধু “টক অব দ্যা কান্ট্রি” নয় বরং “টক অব দ্যা ওয়ার্ল্ডে” পরিণত হয়েছে। সে জন্য পরিকল্পনাটি নিয়ে যেমনি অধীর আগ্রহে অপেক্ষা করছেন একজন দিনমজুর তেমনি অপেক্ষা করছেন অফিসের একজন উচ্চপদস্থ কর্মকর্তা। তাই সবার চোখ এখন আগামী কাল প্রকাশিত হতে যাওয়া পরিকল্পনাটির দিকে।

ভিশন ২০৩০ নামে পরিচিত নতুন এই পরিকল্পনা নিয়ে সৌদি শুরা কাউন্সিলের সদস্য আওয়াদ আল আসমারি সৌদি থেকে প্রকাশিত আন্তর্জাতিক পত্রিকা আরব নিউজকে বলেন, “এটা জানা কথা সৌদি আরব প্রাকৃতিক সম্পদ খনিজ ও তেল সম্পদের দিক থেকে বড় ভাগ্যবান, এখন দেশটি এই পরিকল্পনা গ্রহণের মাধ্যমে ভারী শিল্পকারখানা বাড়াতে সহায়ক হবে”।

এ বিষয়ে আরেক শুরা সদস্য সাদাকা ফাদেল বলেন, “দেশটি নিজেই তেলের দাম উঠানামা থেকে রক্ষা করার জন্য একটি নতুন অর্থনীতি গড়ে তুলতে যাচ্ছে”

দেশটি মনে করে নতুন এই পরিকল্পনাটি দেশটির জন্য প্রচুর পরিমাণে নতুন বিনিয়োগকারীদের আকৃষ্ট করবে। এবং এটি তেল-ভিত্তিক অর্থনীতির বিকল্প হিসেবে গড়ে উঠবে।
বিষয়টি নিয়ে পেশাভিত্তিক সংগঠন “কম্পিউটার এইডেড ডিজাইনার’স অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশ” (ক্যাডাব) এর আহ্বায়ক নুর হোসেনের কাছে জানতে চাইলে তিনি এই উদ্যোগকে স্বাগত জানিয়ে বলেন, “শুধু আমি নই, পুরো সৌদি আরবের সবাই বিষয়টি নিয়ে উচ্ছ্বসিত। বিশেষ করে প্রবাসীদের এ বিষয়ে জানার আগ্রহ একটু বেশী, কারণ যেকোন দেশ গ্রিনকার্ড দিলে সে দেশে স্বাধীনতা একটু বেশী পাওয়া যায় এবং নিজের মত করে থাকা যায়”।

নতুন পরিকল্পনার বিষয়ে “প্রবাসী সাংবাদিক ফোরাম” (প্রসাফ) সভাপতি মোহাম্মদ আবুল বশিরের কাছে জানতে চাইলে তিনি জানান, “আমাদের সবাইকে বিষয়টি নিয়ে আগামীকাল পর্যন্ত অপেক্ষা করতে হবে, দেখতে হবে সেখানে এশিয়াভিত্তিক দেশগুলোর জন্য কোন আলাদা নিয়ম আছে কিনা”। তবে সর্বপোরি তিনি বিষয়টিকে স্বাগত জানিয়ে সৌদি সরকারকে ধন্যবাদ জ্ঞাপন করেন।

নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৬

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি : মকিস মনসুর আহমদ, প্রধান সম্পাদক : লিয়াকত শাহ ফরিদী
সম্পাদক ও প্রকাশক : কে এ রহিম, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
কার্যালয়: ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট-৩১০০
ফোন : ০৮২১-৭২৬ ৫২৭ (নিউজ), ০১৭১২ ৮৮ ৬৫ ০৩ (সম্পাদক)
ই-মেইল: dailysylhet@gmail.com

Developed by: