সর্বশেষ আপডেট : ৪ মিনিট ৫২ সেকেন্ড আগে
সোমবার, ৫ ডিসেম্বর, ২০১৬, খ্রীষ্টাব্দ | ২১ অগ্রহায়ণ ১৪২৩ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET

বড়লেখায় শিলাবৃষ্টিতে চা বাগানে ২ কোটি টাকার ক্ষতি : পরিদর্শনে বিটিআরআই কর্মকর্তারা

4f56d3ef-a58d-47c7-bb4e-70a3b9d356d7জালাল আহমদ::
মৌলভীবাজারের বড়লেখায় তৃতীয় দফায় বৃহস্পতিবার (২১ এপ্রিল) রাতে আবারও শিলাবৃষ্টি ও কালবৈশাখী ঝড় আঘাত হেনেছে। উপজেলার ১০টি ইউনিয়নের বিভিন্ন এলাকায় কাঁচা ঘরবাড়ি ও বৈদ্যুতিক লাইন বিধ্বস্ত হওয়ার পাশাপাশি বিভিন্ন স্থানে গাছ উপড়ে পড়েছে। প্রায় ১৮ ঘণ্টা বিদ্যুতহীন থাকে পুরো উপজেলা।

বৃহস্পতিারের ঘূর্ণিঝড়ে পৌর শহরে তিন তলা ভবনের দেয়াল ধ্বসে পড়ে সদর ইউনিয়ন পরিষদ কার্যালয়ের ব্যাপক ক্ষতি সাধিত হয়েছে। বিল্ডিং কোড না মানাই এ দেয়াল ধ্বসের কারণ বলে জানিয়েছেন পৌর মেয়র কামরান চৌধুরী। বৃহস্পতিবার রাত সাড়ে ৭টায় বয়ে যাওয়া ঘূর্ণিঝড়ে ইউপি কার্যালয়ের চেয়ারম্যান সোয়েব আহমদের অফিস কক্ষ মারাত্মক ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। পাশর্^বর্তী খাদিজা ম্যানশনের ওপর থেকে দেয়াল ধ্বসে টিনের চালা ভেঙ্গে অফিস কক্ষের চেয়ার-টেবিল ও বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ ফাইল ও কাগজপত্র নষ্ট হয়েছে। এছাড়া অফিস কক্ষের বিভিন্ন স্থানে ফাটল ধরেছে। বৃষ্টির পানি ঢুকে অফিস কক্ষের মালামাল ভিজে নষ্ট হয়েছে। খবর পেয়ে চেয়ারম্যান সোয়েব আহমদ রাতেই ক্ষতিগ্রস্ত কক্ষ পরিদর্শন করেন। শুক্রবার সকাল থেকে মালামাল উদ্ধার ও পুননির্মাণ করতে দেখা গেছে শ্রমিকদের। বড়লেখা সদর ইউপি চেয়ারম্যান সোয়েব আহমদ ঘটনাটির সত্যতা নিশ্চিত করে জানান, ইউনিয়ন কার্যালয়ের ঘরটি টিন শেডের। পাশের নির্মাণাধীন ভবনের দেয়াল ধ্বসে একটি কক্ষ সম্পূর্ণ বিধ্বস্ত হয়ে গেছে।

5a14d3fd-5976-401b-9851-883df039be8fএর আগে ঘূর্ণিঝড় আর দু’দফার ভারী শিলাবৃষ্টিতে উপজেলার বিভিন্ন চা বাগানে বাচ্চা ও পূর্ণবয়স্ক চা গাছের ব্যাপক ক্ষতি সাধিত হয়েছে। চা গাছ ল-ভ- হয়ে চয়নযোগ্য কচি চা পাতা ছিন্নবিচ্ছিন্ন হয়ে প্রায় ২ কোটি টাকার ক্ষতি সাধিত হয়েছে। প্রথম দফায় একঘণ্টার ঝড় আর শিলাবৃষ্টির তা-বে উপজেলার ১০টি ইউনিয়নের প্রায় প্রতিটি এলাকাই আক্রান্ত হয়েছে। সবচেয়ে বেশি ক্ষতিগ্রস্ত হয় শাহবাজপুর, কেরামতনগর, লক্ষীছড়া, কুমারশাইল, নিউ সমনবাগ, পাথারিয়া, মোকাম, রশিদাবাদ, আয়েশাবাগ ও পাল্লাথল চা বাগান। বাগানের চা গাছের ব্যাপক ক্ষতির পাশাপাশি ঝড়ে বাগানের চা শ্রমিকদের কাঁচা ঘরবাড়ি উপড়ে পড়ে ও ভারী শিলায় টিনের চালা ছিদ্র হয়ে মানবেতর জীবনযাপন করছেন।

অনুসন্ধানে জানা গেছে, উপজেলায় ১৪টি চা বাগান রয়েছে। শিলাবৃষ্টি আর ঝড়ে উপজেলার সবক’টি চা বাগানই ক্ষতির শিকার হয়েছে। বাগান কর্তৃপক্ষও এমন ক্ষতির শিকার হয়ে হতবাক। কেননা শিলাবৃষ্টিতে বিপুল পরিমাণ ক্ষতি হয়েছে এবারই প্রথম।

সরেজমিনে উপজেলার দক্ষিণ শাহবাজপুরে অবস্থিত স্কয়ার কোম্পানীর মালিকানাধীন শাহবাজপুর চা বাগান পরিদর্শন করে চা বাগানগুলোর মধ্যে সবচেয়ে বেশি ক্ষতির চিত্র পাওয়া যায় এই বাগানে। বাগানের সবক’টি সেকশনের বাচ্চা চা গাছ ও পূর্ণবয়স্ক চা গাছ মরে গেছে শিলাবৃষ্টির আঘাতে। বাগানের প্রায় ৬৫০ একর এলাকার ইয়াং ও মেছিউর টি ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। চয়নযোগ্য ৩৫ হাজার কেজি চা পাতার এই ক্ষতির পরিমাণ প্রায় ৬০ লাখ টাকা। এছাড়া কয়েকটি ছায়াবৃক্ষ ও অন্যান্য গাছ উপড়ে পড়েছে। ঘূর্ণিঝড়ে বাগানের শ্রমিকদের টিনের চালা উড়িয়ে নিয়ে যায়।

05ef8d80-b458-491e-a548-665c0c7699fdএদিকে গত ১৯ এপ্রিল দুপুরে ক্ষতিগ্রস্ত এই চা বাগান পরিদর্শন করেছেন চা শিল্পের প্রাণ বিটিআরআই কর্তৃপক্ষ। পরিদর্শনকারী টিমে ছিলেন শ্রীমঙ্গলস্থ বিটিআরআই’র মূখ্য বৈজ্ঞানিক কর্মকর্তা ড. মোহাম্মদ আলী, ঊর্ধ্বতন বৈজ্ঞানিক কর্মকর্তা ড. তোফিক আহমদ ও বৈজ্ঞানিক কর্মকর্তা রায়হান মুজিব হিমেল। এ সময় বড়লেখা প্রেসক্লাবের সভাপতি অসিত রঞ্জন দাস, সাংবাদিক মিজানুর রহমান ও জালাল আহমদ ছাড়াও বাগান ম্যানেজার আলী আহমদ উপস্থিত ছিলেন। বিটিআরআই কর্তৃপক্ষ ক্ষতিগ্রস্ত চা গাছে কপার ফাঙ্গিসাইট ছিটানোর পরামর্শ ছাড়াও অন্যান্য প্রয়োজনীয় বিভিন্ন পরামর্শ প্রদান করেন।

কেরামতনগর চা বাগানের ব্যবস্থাপক মারুফ আহমদ জানান, তার বাগানের ৩ শতাধিক শ্রমিক ঘর বিধ্বস্ত হয়ে প্রায় ২০ লাখ টাকার ক্ষতি হয়েছে। এছাড়া চা পাতা ছিন্ন-বিচ্ছিন্ন হয়ে প্রায় অর্ধকোটি টাকার ক্ষতি হয়েছে।

শাহবাজপুর চা বাগানের ব্যবস্থাপক আলী আহমদ জানান, শিলাবৃষ্টিতে বিপুল পরিমাণ ক্ষতি আমার চাকরি জীবনের ২০ বছরে এই প্রথম দেখলাম। শিলাবৃষ্টিতে আমার বাগানের সবক’টি সেকশনই ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। অন্তত ৩৫ হাজার কেজি চয়নযোগ্য চা পাতার ক্ষতির পরিমাণ প্রায় ৬০ লাখ টাকা।

এ বিভাগের অন্যান্য খবর

নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৬

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি : মকিস মনসুর আহমদ, প্রধান সম্পাদক : লিয়াকত শাহ ফরিদী
সম্পাদক ও প্রকাশক : কে এ রহিম, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
কার্যালয়: ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট-৩১০০
ফোন : ০৮২১-৭২৬ ৫২৭ (নিউজ), ০১৭১২ ৮৮ ৬৫ ০৩ (সম্পাদক)
ই-মেইল: dailysylhet@gmail.com

Developed by: