সর্বশেষ আপডেট : ৩ মিনিট ৩৩ সেকেন্ড আগে
শুক্রবার, ৯ ডিসেম্বর, ২০১৬, খ্রীষ্টাব্দ | ২৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৩ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET

জেনে নিন রসুন ও আদার পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া

full_1370754121_1461306407লাইফস্টাইল ডেস্ক:
প্রায় ৫ হাজার বছর আগে থেকেই রান্না ও ওষুধ হিসেবে এশিয়ার বিভিন্ন দেশে আদা ও রসুন ব্যবহার হয়ে আসছে। ঠাণ্ডা কাশি থেকে শুরু করে হাত-পায়ের ব্যথা দূর করতে আদা অনেক বেশি কার্যকরী। এমনকি ওজন কমাতেও আদা খাওয়ার পরামর্শ দিয়ে থাকেন বিশেজ্ঞরা। আবার রসুনও শরীরে জন্য অনেক উপকারী।

কিন্তু আদা উপকারী হলেও কিছু মানুষের জন্য আদা খাওয়া মোটেও উচিত নয়। অনেকেই মনে করেন আদা প্রাকৃতিক মশলা, এর আবার ক্ষতিকর দিককি। কিন্তু অনেকের জন্য আদা খাওয়া উচিত না-

আদা

১। গর্ভবতী মহিলাদের জন্য
গর্ভবতী মহিলাদের আদা খাওয়া একদমই উচিত নয়। আদাতে প্রচুর পরিমাণে প্রাকৃতিক উত্তেজক আছে। যা অনেক সময় মিসক্যারেজ বা প্রিম্যাচিউর বাচ্চা জন্ম দিয়ে থাকে। তাই এই সময় আদা বা আদা জাতীয় খাবার এড়িয়ে যাওয়া উচিত।

২। যাদের আলসার আছে
যারা আলসারে ভুগছেন তাদের মোটেও আদা খাওয়া ঠিক নয়। আদা খেলে আলসারের সমস্যা আরো বেড়ে যাওয়ার সম্ভবনা থাকে। তাই আলসার থাকলে আদা খাওয়া বন্ধ করুন।

৩। যাদের ওজন কম
ওজন কমানোর অন্যতম উপাদান হল আদা। এটি মেটাবলিজম বৃদ্ধি করে খাওয়ার রুচি কমিয়ে দেয়। এটি দেহের ক্যালরি পোড়াতে সাহায্য করে। এই সকল কারণে ডায়েট লিস্টে আদা রাখা হয়। কিন্তু আপনি যদি ওজন বাড়াতে চান তবে আদা খাওয়া থেকে বিরত থাকুন। আদা আপনার ওজন আরও কমিয়ে দেবে।

৪। রক্তে সমস্যা থাকলে
আদা রক্তে প্রদাহ বৃদ্ধি করে থাকে। কিন্তু যাদের হিমোফিলিয়া রক্ত রোগ আছে তাদের জন্য এটি ভয়ংকর হতে পারে। যারা বিভিন্ন রক্ত রোগের ওষুধ খাছেন, তারা আদা খাওয়া থেকে বিরত থাকুন।

৫। যারা ওষুধ খাচ্ছেন
যারা কোন নিদিষ্ট রোগের জন্য ওষুধ খাচ্ছেন, তারা আদা খাওয়া থেকে বিরত থাকুন। আদার উপাদান ওষুধের সাথে মিশে শরীরে পার্শ্ব প্রতিক্রিয়া সৃষ্টি করতে পারে। এটি রক্ত কনিকা বৃদ্ধি করতে পারে। এমনকি ব্লাড প্রেশার, ইনসুলিনও বৃদ্ধি করে দিতে পারে।

৬। প্রদাহজনিত পেটের রোগ
যারা প্রদাহজনক পেটের রোগে ভুগছেন তারাও আদা খাবেন না। আদা প্রদাহ বৃদ্ধি পেটের রোগ আরো বাড়িয়ে দেয়। তাই এ সমস্যা থাকলে আদা বা আদার তৈরি খাবার খাওয়া থেকে বিরত থাকুন।

রসুন

রসুন শরীরের জন্য খুব ভালো। তবে রসুন যে শরীরের জন্য সবসময় ভালো তাও নয়। অনেক সময় রসুন খেলে পার্শ্বপ্রতিক্রিয়াও হতে পারে। অনিয়মিত ও অপরিকল্পিতভবে রসুন সেবন করলে এই পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া গুলো ঘটতে পারে। কোনো পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া দেখা দিলে দ্রুত চিকিতসকের পরামর্শ নিন।

১। কাঁচা রসুন বেশি খাওয়া উচিত নয়। বেশি খেলে অনেক সময় মাইগ্রেনের সমস্যা বাড়তে দেখা যায়।

২। কাঁচা রসুন সেবনে অনেকের চামড়ায় চুলকানি দেখা দিতে পারে।

৩। যাদের শরীর থেকে রক্তপাত সহজে বন্ধ হয়না, অতিরিক্ত রসুন খাওয়া তাদের জন্য বিপজ্জনক। কারণ রসুন রক্তের জমাট বাঁধার ক্রিয়াকে বাধা প্রদান করে। ফলে রক্তপাত বন্ধ হতে অসুবিধা হতে পারে।

৪। অতিরিক্ত রসুন শরীরে এলার্জি ঘটাতে পারে। যাদের নানা রকম এলার্জিক সমস্যা আছে তারা অতিরিক্ত রসুন না খাওয়াই উত্তম।

৫। রসুন খাওয়ার ফলে পাকস্থলীতে অস্বস্তি বোধ করলে রসুন খাওয়া বন্ধ রাখুন।

৬। অপ্রীতিকর শ্বাস বা শরীরের গন্ধ হতে পারে

৭। অম্বল, গলা ও পেটে জ্বালা করতে পারে

৮। বমি বমি ভাব, বমি, বা গ্যাস হতে পারে

৯। ডায়রিয়া হতে পারে

নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৬

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি : মকিস মনসুর আহমদ, প্রধান সম্পাদক : লিয়াকত শাহ ফরিদী
সম্পাদক ও প্রকাশক : কে এ রহিম, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
কার্যালয়: ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট-৩১০০
ফোন : ০৮২১-৭২৬ ৫২৭ (নিউজ), ০১৭১২ ৮৮ ৬৫ ০৩ (সম্পাদক)
ই-মেইল: dailysylhet@gmail.com

Developed by: