সর্বশেষ আপডেট : ৫ মিনিট ৩৪ সেকেন্ড আগে
বৃহস্পতিবার, ৮ ডিসেম্বর, ২০১৬, খ্রীষ্টাব্দ | ২৪ অগ্রহায়ণ ১৪২৩ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET

নতুন নিয়মে শিক্ষক নিবন্ধন সনদ থাকলেই চাকরি!

full_1688093709_1461141382নিউজ ডেস্ক:: খুব শিগগির শুরু হচ্ছে নতুন নিয়মে বেসরকারি স্কুল-কলেজে নিয়োগ কার্যক্রম। নিবন্ধন সনদই এখন যোগ্যতার একমাত্র মাপকাঠি। নিবন্ধন পরীক্ষায় ভালো করলেই মিলতে পারে চাকরি। আগামী মাসে ত্রয়োদশ শিক্ষক নিবন্ধন পরীক্ষা।

সারা দেশে আছে প্রায় ১৯ হাজার বেসরকারি মাধ্যমিক বিদ্যালয়, সাড়ে তিন হাজার কলেজ ও সাড়ে ৯ হাজার মাদ্রাসা। এসব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে নতুন পদ্ধতিতে শিক্ষক নিয়োগ কার্যক্রম শুরু হচ্ছে।

এখন থেকে সংশ্লিষ্ট শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে আবেদন করা লাগবে না। অনলাইনে আবেদন করতে হবে বেসরকারি শিক্ষক নিবন্ধন ও প্রত্যয়ন কর্তৃপক্ষ (এনটিআরসিএ) বরাবর। আবেদনকারীদের মধ্য থেকে শিক্ষক নিবন্ধন পরীক্ষার মেধাতালিকার ভিত্তিতে শিক্ষক নিয়োগ দেয়া হবে।

এতদিন ধরে এসব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে ব্যবস্থাপনা কমিটি নিয়োগ দিয়ে আসছিল। নতুন পদ্ধতিতে বেসরকারি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানগুলোয় তিন মাস আগে থেকে কতটি পদ খালি হবে, তা জানা যাবে। নিবন্ধন পরীক্ষায় ভালো নম্বর থাকলেই মিলতে পারে চাকরি।

# পরীক্ষা পদ্ধতি

দ্বাদশ শিক্ষক নিবন্ধন পরীক্ষা থেকেই পাল্টে গেছে পরীক্ষার ধরন। বিসিএসের আদলে হচ্ছে নিবন্ধন পরীক্ষা। প্রথমে ১০০ নম্বরের প্রিলিমিনারি পরীক্ষা। পরীক্ষা হবে এমসিকিউ পদ্ধতিতে, সময় এক ঘণ্টা। বাংলা, ইংরেজি, গণিত ও সাধারণ জ্ঞান থেকে ২৫টি করে প্রশ্ন থাকবে প্রিলিমিনারিতে। প্রতিটি সঠিক উত্তরের জন্য বরাদ্দ ১ নম্বর, প্রত্যেক ভুল উত্তরের জন্য কাটা যাবে ০.৫০ নম্বর। পাস করতে হলে কমপক্ষে ৪০ নম্বর পেতে হবে। প্রার্থীর ঐচ্ছিক বিষয়ে ১০০ নম্বরের লিখিত পরীক্ষা হবে। সময় ৩ ঘণ্টা। লিখিত পরীক্ষায়ও পাস নম্বর ৪০।

উত্তীর্ণ হলে মিলবে শিক্ষক নিবন্ধন সনদ। প্রিলিমিনারি ও লিখিত পরীক্ষার সিলেবাস পাওয়া যাবে ওয়েবসাইটে। বিজ্ঞপ্তিতে উল্লিখিত সময় অনুসারে, স্কুলপর্যায়ের প্রিলিমিনারি পরীক্ষা ৬ মে ও কলেজ পর্যায়ের পরীক্ষা নেওয়া হবে ৭ মে। উভয় পরীক্ষার সময় সকাল ১০টা থেকে ১১টা পর্যন্ত।

স্কুল ও স্কুল-২ পর্যায়ের লিখিত পরীক্ষা হবে ১২ আগস্ট এবং কলেজ পর্যায়ের পরীক্ষা হবে ১৩ আগস্ট। লিখিত পরীক্ষার সময় সকাল ৯টা থেকে দুপুর ১২টা পর্যন্ত।

এনটিআরসিএ সূত্রে জানা গেছে, লিখিত পরীক্ষায় উত্তীর্ণ প্রার্থীরা মৌখিক পরীক্ষায় অংশ নিতে পারবেন। মৌখিক পরীক্ষার জন্য নির্বাচিত প্রার্থীদের এসএমএসের মাধ্যমে সময় জানিয়ে দেয়া হবে। নির্ধারিত তারিখে সঙ্গে আনতে হবে প্রয়োজনীয় কাগজপত্র।

লিখিত ও মৌখিক পরীক্ষায় প্রাপ্ত নম্বরের ভিত্তিতে তৈরি করা হবে উপজেলা, জেলা ও জাতীয় মেধাতালিকা। প্রথমে উপজেলার প্রার্থীরা বিবেচনায় আসবে। যোগ্য প্রার্থী না পাওয়া গেলে জেলার মেধাতালিকা থেকে নিয়োগ করা হবে। তাতেও প্রার্থী না পাওয়া গেলে বিভাগীয় তালিকাকে অগ্রাধিকার দেয়া হবে। শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের পরিচালনা কমিটি শুধু নিয়োগপত্র ইস্যু করবে।

এ বিভাগের অন্যান্য খবর

নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৬

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি : মকিস মনসুর আহমদ, প্রধান সম্পাদক : লিয়াকত শাহ ফরিদী
সম্পাদক ও প্রকাশক : কে এ রহিম, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
কার্যালয়: ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট-৩১০০
ফোন : ০৮২১-৭২৬ ৫২৭ (নিউজ), ০১৭১২ ৮৮ ৬৫ ০৩ (সম্পাদক)
ই-মেইল: dailysylhet@gmail.com

Developed by: