সর্বশেষ আপডেট : ৬ মিনিট ৯ সেকেন্ড আগে
রবিবার, ১১ ডিসেম্বর, ২০১৬, খ্রীষ্টাব্দ | ২৭ অগ্রহায়ণ ১৪২৩ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET

সুখে-দুঃখে কাছে পাবো যাকে, ভোট দেব তাকে…

daily sylhet UP nirbachon Biswanath newsমোহাম্মদ আলী শিপন::
৪র্থ দফায় সিলেটের বিশ্বনাথে ৭টি ইউনিয়ন পরিষদে (ইউপি) নির্বাচন হবে ৭ মে অনুষ্ঠিত হবে। দলীয় প্রতীকে নির্বাচন হওয়ায় ভোটার ও বিভিন্ন দলের নেতা-কর্মীদের মধ্যে উৎসাহের কমতি নেই। তবে অধিকাংশ ভোটার দল নয়, সুখ-দুঃখে যাঁরা এলাকার মানুষের পাশে থাকবেন তাঁদের ভোট দেবেন। উপজেলার বিভিন্ন ইউনিয়নের ভোটারদের সঙ্গে বুধবার কথা বলে এমন তথ্য পাওয়া গেছে।

নির্বাচন অফিস সূত্রে জানাগেছে, মঙ্গলবার উপজেলার ৭ ইউনিয়নে চেয়ারম্যান পদে ৩৩ জন, ৬৩টি ওয়ার্ডে সাধারণ সদস্য (মেম্বার) পদে ২৭৮ জন ও ২১টি ওয়ার্ডে সংরক্ষিত (মহিলা) সদস্য পদে ৬৩ জন’সহ সর্বমোট ৩৭৪ জন প্রার্থীরকে প্রতিক বরাদ্ধ প্রদান করা হয়। উপজেলার অলংকারী ইউনিয়নের ১নং সংরক্ষিত ওয়ার্ডে আছমা বেগম ও খাজাঞ্চী ইউনিয়নের ৩নং ওয়ার্ডে মোছাঃ ছুবেরা বেগম বিনাপ্রতিদ্বন্দিতায় নির্বাচিত হয়েছেন।

প্রসঙ্গত, উপজেলার ৭মে ৪র্থ দফায় অনুষ্ঠিত ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দিতা করার জন্য ৭ ইউনিয়নে চেয়ারম্যান পদে ৪১ জন, ৬৩টি ওয়ার্ডে সদস্য (মেম্বার) পদে ২৯৬ জন ও ২১টি ওয়ার্ডে সংরক্ষিত (মহিলা) সদস্য পদে ৬৫ জন প্রার্থী নিজেদের মনোনয়নপত্র দাখিল করেন। সোমবার মনোনয়নপত্র প্রত্যাহারের শেষ দিনে চেয়ারম্যান পদে ৮জন ও সাধারণ সদস্য (মেম্বার) পদে ১৮জন প্রার্থী নিজেদের মনোনয়নপত্র প্রত্যাহার করেন।

উপজেলা সদরের পুরান বাজারস্থ একটি চায়ের দোকানে কথা হয় কারিকোনা গ্রামের নিজাম মিয়ার সঙ্গে। কেমন প্রার্থী চান জানতে চাইলে তিনি বলেন, ‘দল-টল বুঝি না। এবারের নির্বাচন দলীয়ভাবে হলেও ভোট দেব প্রার্থী দেখে। যাঁরা সুখে-দুঃখে এলাকার মানুষের পাশে থাকবেন তাঁদেরই ভোট দেব।’

এলাকার রিকশা-ভ্যানচালক রশিদ আলী বলেন, ‘ভাই, ভোটের আগে সবাই সৎ, যোগ্য ও জনগণের কাছের মানুষ। আর ভোট গেলেই তাঁদের আসল চেহারা বের হয়ে আসে। তবু মন্দের ভালো মানুষকে ভোটটা দিতে হবে।’

দেওকলস ইউনিয়নের আলাপুর গ্রামের কবির মিয়া বলেন, ‘দেশের নাগরিক হিসাবে ভোট একটা দেওয়া লাগে তাই দিই। কাকে ভোট দিব ঠিক করিনি। তবে শেষমেশ চিন্তাভাবনা করে দেখব। যাঁর কাছ থেকে সহযোগিতা পাব। তাঁকেই ভোট দেব।’

কৃষক শহীদ মিয়া বলেন, ‘ভোট তো দেওয়াই লাগে। তবে এখনো সঠিক প্রার্থী পাইনি। দেখি, গরিবের জন্য যাঁর মায়া লাগে, তাঁকেই ভোট দিব ভাবছি।’

দুদু মিয়া বলেন, ‘মার্কা নয়, এলাকার উন্নয়নে যিনি বেশি কাজ করতে পারবেন, তাঁকেই আমরা ভোট দেব।’

নকীকালি বাজারের একটি চা-স্টলে বসে কথা হয় মনির মিয়ার সঙ্গে। তিনি বলেন, ‘ভোট বাঙালির কাছে একটি বিরাট উৎসব। উৎসবে অনেক হইচই করে আকাঙ্ক্ষা নিয়ে মানুষ ভোট দেয়। একজন ভালো মানুষ নির্বাচিত হলে এলাকার সার্বিক উন্নয়ন হতে পারে। কিন্তু ভালো মানুষও এসব পদে গিয়ে ভালো থাকতে পারেন না।’
অপরজন কামাল মিয়া একই বলেন, ‘আমরা সব সময় যাঁকে কাছে পাব তাঁকেই ভোট দেব।’

বিশ্বনাথ ইউনিয়নের স্বতন্ত্র (আওয়ামী লীগ বিদ্রোহী) চেয়ারম্যান প্রার্থী ছয়ফুল হক বলেন, ‘ ভোটারা তারা যোগ্য মানুষকে ঠিকই বেছে নেবেন।’

লামাকাজি ইউনিয়নে বিএনপি মনোনীত চেয়ারম্যান প্রার্থী কবির হোসেন ধলা মিয়া বলেন, ‘এবারের নির্বাচন অন্যবারের চেয়ে আলাদা। ভোটারের সিদ্ধান্তের ওপর এলাকার উন্নয়ন অনেকাংশে নির্ভর করছে। যে এলাকার মানুষের কাছে থেকে সুখ-দুঃখের খবর নিয়েছেন, তাঁকেই ইউনিয়নবাসী ভোট দেবেন।’

এ বিভাগের অন্যান্য খবর

নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৬

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি : মকিস মনসুর আহমদ, প্রধান সম্পাদক : লিয়াকত শাহ ফরিদী
সম্পাদক ও প্রকাশক : কে এ রহিম, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
কার্যালয়: ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট-৩১০০
ফোন : ০৮২১-৭২৬ ৫২৭ (নিউজ), ০১৭১২ ৮৮ ৬৫ ০৩ (সম্পাদক)
ই-মেইল: dailysylhet@gmail.com

Developed by: