সর্বশেষ আপডেট : ১ মিনিট ০ সেকেন্ড আগে
মঙ্গলবার, ৬ ডিসেম্বর, ২০১৬, খ্রীষ্টাব্দ | ২২ অগ্রহায়ণ ১৪২৩ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET

সুনামগঞ্জে খায়রুল হুদা চপল কে সংবর্ধনা

12সুনামগঞ্জ সংবাদদাতা : হাজার হাজার যুবনেতা কর্মী সমর্থকদের ভালবাসা ও সংবর্ধনায় সংবর্ধিত হলেন সুনামগঞ্জ জেলা যুবলীগের নবগঠিত কমিটির আহবায়ক খায়রুল হুদা চপল। মঙ্গলবার বিকেলে শহরের আলফাত উদ্দিন স্কয়ারে এই সংবর্ধনা সভার আয়োজন করা হয়।

এতে প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন বাংলাদেশ আওয়ামী যুবলীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য এডভোকেট বেলাল হোসেন। বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন জেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি সাবেক এমপি আলহাজ্ব মতিউর রহমান,জেলা আওয়ামীলীগের সাবেক সাধারন সম্পাদক আলহাজ্ব নূরুল হুদা মুকুট ও যুবলীগের কেন্দ্রীয় কমিটির সাংগঠনিক সম্পাদক ফজলুল হক আতিক। জেলা যুবলীগের যুগ্ম আহবায়ক আসাদুজ্জামান সেন্টুর সভাপতিত্বে ও রঞ্জিত চৌধুরী রাজনের পরিচালনায় অনুষ্ঠিত সংবর্ধনা সভায় সংবর্ধিত অতিথির বক্তব্য রাখেন বাংলাদেশ আওয়ামী যুবলীগের সুনামগঞ্জ জেলা শাখার আহবায়ক খায়রুল হুদা চপল।

সংবর্ধনা চলাকালে সুনামগঞ্জ সদর উপজেলা পরিষদের সাবেক ভাইস চেয়ারম্যান ও আমরা মুক্তিযোদ্ধার সন্তান সংগঠনের আহবায়ক কমিটির সদস্য নারী নেত্রী কবি ফেরদৌসী সিদ্দিকা সংবর্ধিত আহবায়ক খায়রুল হুদা চপলকে ফুলেল শুভেচ্ছা জ্ঞাপন করেন। এসময় সুনামগঞ্জ জেলা আওয়ামীলীগের কৃষি বিষয়ক সম্পাদক ওয়াহিদুর রহমান সুফিয়ান,সদর উপজেলা আওয়ামীলীগের সাধারন সম্পাদক মোবারক হোসেন,জেলা যুবলীগের যুগ্ম আহবায়ক খন্দকার মঞ্জুর আহমদ,সাবেক ভারপ্রাপ্ত পৌর মেয়র নুরুল ইসলাম বজলু,এডভোকেট আজাদুল ইসলাম রতন, এডভোকেট চপল,বিপ্রেস দাস,দিরাই থানা যুবলীগের সভাপতি রঞ্জন রায়সহ স্থানীয় নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন। প্রধান অতিথির বক্তৃতায় বাংলাদেশ আওয়ামী যুবলীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য এডভোকেট বেলাল হোসেন বলেন,জেলা যুবলীগের সাবেক আহবায়ক ব্যারিস্টার এম.এনামুল কবির ইমন ইতিমধ্যে জেলা আওয়ামীলীগের সাধারন সম্পাদক হয়েছেন।

গঠনতন্ত্রের বিধান অনুযায়ী ২৮ দিনের মধ্যে তিনি পদত্যাগ করে নতুন কমিটির হাতে দায়িত্ব হস্তান্তর করার কথা। কিন্তু তিনি তানা করায় কেন্দ্রীয় কমিটির চেয়ারম্যান ওমর ফারুক চৌধুরীর নির্দেশেই আমাদেরকে নতুন আহবায়ক কমিটি গঠন করতে হয়েছে। আমরা সুনামগঞ্জের মানুষের প্রত্যাশিত প্রিয় ব্যাক্তিদের নিয়েই কমিটি অনুমোদন দিয়েছি।

সকাল ১১টায় এমএজি ওসমানী বিমানবন্দরের ভিআইপি লাউঞ্জ থেকে বের হয়ে উৎসুক নেতাকর্মী সমর্থকদের যে ভালবাসা ও সমর্থন দেখেছি তা কখনও ভূলার নয়। তিনি বলেন,এর আগে আমি প্রথমবার সুনামগঞ্জে এসে জেলা যুবলীগের আহবায়ক কমিটি গঠন করার সময় মাত্র হাতেগোনা কয়েকজনকে কাছে পাই। কিন্তু আজকে যে যুব জাগরন দেখতে পাচ্ছি তাতে মনে হচ্ছে সুনামগঞ্জে যুবলীগের মজবুত ঘাটি এই কমিটির দ্বারাই প্রতিষ্ঠিত হবে। বিশেষ অতিথির বক্তব্যে জেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি সাবেক এমপি আলহাজ্ব মতিউর রহমান বলেন,আজকের যুবলীগই আগামী দিনে সুনামগঞ্জ আওয়ামীলীগকে নেতৃত্ব দেবে। আমি মূল সংগঠনের সভাপতি হিসেবে যোগ্য নেতৃত্ব গড়ে তুলতে সবাইকে সাথে নিয়ে কাজ করবো। চপল সবাইকে নিয়ে জেলা যুবলীগ করার যে ঘোষনা দিয়েছেন এটাই রাজনীতির কথা। তার ইতিবাচক রাজনীতিতে অভিভাবক হিসেবে আমার সহযোগীতা সবর্দাই অব্যাহত থাকবে।

জেলা আওয়ামীলীগের সাবেক সাধারন সম্পাদক আলহাজ্ব নূরুল হুদা মুকুট বলেন, আওয়ামীলীগ ক্ষমতায় থাকলে দেশের সংখ্যালঘু সম্প্রদায় সবসময়ই নিজেদেরকে নিরাপদ মনে করেন। আমরা তাদেরকে সাথে নিয়েই কাঁদে কাঁদ মিলিয়ে রাজনীতি করি। তাদের সুখে দু:খে সব সময় মানবতার পাশে দাড়িয়ে কাজ করি। কিন্তু নান্দনিক সুনামগঞ্জের নামে জেলা যুবলীগের সাবেক আহবায়ক প্রকাশ্য দিবালোকে মুক্তিযোদ্ধা পরিবারের সন্তান নিরীহ বিশ্বজিৎ চৌহানকে খুন করেছেন। মামলার এফআইআরে জেলা যুবলীগের সাবেক কমিটির খুনীদেরকে আসামী করা স্বত্তেও তারা আজ গ্রেফতার হচ্ছেনা। আমাদের দীর্ঘদিনের সম্প্রীতি বিনষ্ট করে নান্দনিক সুনামগঞ্জের খুনীরা আজও বুক ফুলিয়ে বেড়াচ্ছে। আমরা আশা করি নবগঠিত জেলা যুবলীগের বর্তমান কমিটির নেতৃত্বে খুনী চাঁদাবাজ ও সন্ত্রাসীমুক্ত জেলা যুবলীগ প্রতিষ্ঠিত হবে।

কেন্দ্রীয় কমিটির সাংগঠনিক সম্পাদক ফজলুল হক আতিক বলেন,খায়রুল হুদা চপলকে আমি ছাত্রজীবন থেকেই ভালভাবে চিনি। তিনি শুধু ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে একটি ভাল ছাত্র সংগঠনের নেতৃত্বেই ছিলেননা বরং পরিচ্ছন্ন বিশুদ্ধ রাজনীতির অধিকারী ছিলেন। তার দ্বারাই সুনামগঞ্জের মাটিতে যুবলীগ একটি অপ্রতিদ্বন্দ্বি সংগঠনে উন্নীত হবে। সংবর্ধনার জবাবে বাংলাদেশ আওয়ামী যুবলীগের সুনামগঞ্জ জেলা শাখার আহবায়ক খায়রুল হুদা চপল বলেন,আমি কাউকে বঞ্চিত করে নয় ত্যাগী উপেক্ষিত ও প্রতিভাবান নেতাকর্মীদের নিয়েই জেলা যুবলীগের শক্তিশালী কমিটি দাড় করাবো। কাউকে বাধ দিয়ে বা হতাশ করে নয় সকলকে নিয়ে সুন্দর পথচলাই হবে আমার রাজনীতি। তিনি বলেন,আজকে সকল নেতাকর্মীরা প্রত্যেক উপজেলা থেকে অনেক আশা ভরসা ও উৎসাহ নিয়ে জেলা সদরে এই সংবর্ধনা সভায় এসেছেন। এতে আমরা আনন্দিত ও গর্বিত। কিন্তু সবচেয়ে দু:খের বিষয়টি হচ্ছে এই মুহুর্তে আমাদের জেলার একমাত্র বোরো ফসল পানির নীচে তলিয়ে গেছে।

আমি আমার সকল যুবলীগ নেতাকর্মী ভাইদেরকে বলবো আগামী ১৫ দিন আপনারা আমাদের কৃষক ভাইদের পাশে দাড়ান। আবাদকৃত বোর ফসল গড়ে তুলতে কৃষক ভাইদেরকে সর্বোতভাবে সহযোগীতা করুন। তিনি বলেন,আজ থেকে আমরা যুবলীগের নামে চাঁদাবাজী হত্যা খুন সন্ত্রাস বন্ধ ঘোষনা করছি। আগামীতে জেলা যুবলীগের নেতৃত্বে সুনামগঞ্জে উন্নয়নের মডেল রাজনীতির দ্বারা প্রতিষ্ঠায় আমরা নিরলসভাবে কাজ করবো। পরে প্রেসিডিয়াম সদস্য এডভোকেট বেলাল হোসেন ২১ সদস্য বিশিষ্ট আহবায়ক কমিটির সকল সদস্যদেরকে পরিচয় করিয়ে দেন।

এ বিভাগের অন্যান্য খবর

নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৬

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি : মকিস মনসুর আহমদ, প্রধান সম্পাদক : লিয়াকত শাহ ফরিদী
সম্পাদক ও প্রকাশক : কে এ রহিম, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
কার্যালয়: ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট-৩১০০
ফোন : ০৮২১-৭২৬ ৫২৭ (নিউজ), ০১৭১২ ৮৮ ৬৫ ০৩ (সম্পাদক)
ই-মেইল: dailysylhet@gmail.com

Developed by: