সর্বশেষ আপডেট : ২ ঘন্টা আগে
শনিবার, ১০ ডিসেম্বর, ২০১৬, খ্রীষ্টাব্দ | ২৬ অগ্রহায়ণ ১৪২৩ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET

শফিক রেহমানের বিরুদ্ধে ‘হত্যাচেষ্টা’র প্রমাণ আছে : জয়

5নিউজ ডেস্ক :: শনিবার সকালে বিএনপিঘনিষ্ঠ সাংবাদিক শফিক রেহমানকে গ্রেফতারের পর রাতে ফেসবুকে একটি পোস্ট দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রীর তথ্য-প্রযুক্তি উপদেষ্টা সজীব ওয়াজেদ জয়।

জয় তার ফেসবুকে দেয়া স্ট্যাটাসে লিখেছেন, ‘অপহরণ ও হত্যাচেষ্টার ষড়যন্ত্র’র যে মামলায় প্রবীণ সাংবাদিক শফিক রেহমানকে গ্রেফতার করা হয়েছে তার প্রমাণ আছে।

এরইমধ্যে যুক্তরাষ্ট্রে জয়কে অপহরণের চক্রান্তের মামলায় গ্রেপ্তার দেখিয়ে আদালতের অনুমতিতে শফিক রেহমানকে পাঁচ দিনের রিমান্ডে নিয়েছে গোয়েন্দা পুলিশ।

যুক্তরাষ্ট্র প্রবাসী সজীব ওয়াজেদ জয় বলছেন, তার মা শেখ হাসিনা বাংলাদেশের রাজনীতিতে থাকায় এবং তাকে তিনি সহযোগিতা করায় এখন ঝুঁকির মধ্যে আছেন তিনি।

ফেইসবুকে জয় লিখেছেন, “কত হরহামেশা আপনি এমন কোন লোককে পাবেন যে আপনাকে হত্যার চেষ্টা করছে? আমার ক্ষেত্রে আপাতদৃষ্টিতে আমার জানার বাইরেও এটা প্রায়শই হচ্ছে। আমি অপরাধী বা কোন খারাপ মানুষও নই যে এমনটা হবে। “এটা শুধু এজন্য ঘটছে যে আমার মা বাংলাদেশের রাজনীতিতে আছেন এবং আমি সময়ে সময়ে তাকে সাহায্য করি। এটা এজন্যও যে আমাদের বিরোধী দল যারা বিশেষত সহিংস অপরাধমূলক কাজে নিমজ্জিত এবং দেশের শীর্ষ মৌলবাদী দল যারা সরাসরি আইএসআইএসের সাথে যুক্ত তাদের সাথে জোটভুক্ত।”

এরপর শফিক রেহমানকে গ্রেপ্তারের প্রসঙ্গ তুলে তিনি লিখেছেন, “যুক্তরাষ্ট্রে আমাকে অপহরণ ও হত্যার ষড়যন্ত্রে জড়িত থাকার অভিযোগে সিনিয়র সাংবাদিক ও বিএনপি নেতা শফিক রেহমানকে আজ আমাদের সরকার গ্রেপ্তার করেছে। একজন যুক্তরাষ্ট্র বিএনপি নেতার ছেলে, একজন সাবেক এফবিআই এজেন্ট এবং এই দুজনের অন্য একজন আমেরিকান বন্ধু- এরা সবাই এই ষড়যন্ত্রের কারণে সাজা ভোগ করছে।”

যুক্তরাষ্ট্রের ডিপার্টমেন্ট অব জাস্টিসের প্রেস রিলিজ থেকে এই মামলার বিষয়ে সরাসরি জানা যাবে জানিয়ে একটি লিঙ্ক শেয়ার করেছেন জয়।

সেখানে ‘খ্যাতিমান’ অংশটির বিষয়ে নিশ্চিত না হলেও ‘বাংলাদেশের নাগরিক’ বলতে তাকেই বোঝানো হয়েছে বলে উল্লেখ করেন জয়।

শফিক রেহমানের বিরুদ্ধে ‘প্রমাণাদি’ সরাসরি এই মামলা থেকে এসেছে দাবি করে তিনি বলেন, “লক্ষ করুন, আমি সাংবাদিক শব্দটি উদ্ধৃত করেছি কারণ যখন আপনি অপহরণ ও হত্যার চেষ্টায় যুক্ত হবেন তখন আমার বিশ্বাস, আপনি আপনার পেশার ধরণ পরিবর্তন করে সাংবাদিক থেকে অপরাধী হয়ে গিয়েছেন।

“বিএনপি এসব কাজের জন্য একটি মধ্যবর্তী পেশার কার্যধারা পরিচালনা করে।”বাংলাদেশি এক রাজনীতিকের বিষয়ে যুক্তরাষ্ট্রর আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর কাছে সংরক্ষিত তথ্য পেতে এফবিআইয়ের এক সদস্যকে ঘুষ দেওয়ায় ২০১৫ সালে সিজারের কারাদণ্ড হয়।

ওই রাজনীতিকের নাম মার্কিন আদালতের নথিপত্রে উহ্য রাখা হলেও যুক্তরাষ্ট্রপ্রবাসী জয়ই ওই বাংলাদেশের ওই রাজনীতিক বলে আওয়ামী লীগের পক্ষ থেকে দাবি করা হয়। জয় নিজেও ফেইসবুকে নিজের প্রাণহানির সংশয়ের কথা লেখেন।

নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৬

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি : মকিস মনসুর আহমদ, প্রধান সম্পাদক : লিয়াকত শাহ ফরিদী
সম্পাদক ও প্রকাশক : কে এ রহিম, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
কার্যালয়: ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট-৩১০০
ফোন : ০৮২১-৭২৬ ৫২৭ (নিউজ), ০১৭১২ ৮৮ ৬৫ ০৩ (সম্পাদক)
ই-মেইল: dailysylhet@gmail.com

Developed by: