সর্বশেষ আপডেট : ৩ ঘন্টা আগে
শনিবার, ৩ ডিসেম্বর, ২০১৬, খ্রীষ্টাব্দ | ১৯ অগ্রহায়ণ ১৪২৩ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET

২০২১ সালের মধ্যে বাংলাদেশ হবে মধ্যম আয়ের দেশ —- অর্থমন্ত্রী

dailysylhetnewspic11স্টাফ রিপোর্টার ::
অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত বলেছেন, আগামী ২০২১ সালের মধ্যে বাংলাদেশ মধ্যম আয়ের দেশে পরিণত হবে। ২০৩০ সালের মধ্যে দেশে দারিদ্রের হার নেমে আসবে ১০ ভাগের নিচে। অর্থাৎ, এই ১০ ভাগ হলো প্রতিবন্ধী, বৃদ্ধ, বিধবা। বিশ্ববাসী মনে করছে, ২০৩০ সালে দারিদ্য্রের হার কমে যাবে। আর বাংলাদেশ শেখ হাসিনার নেতৃত্বে ২০২১ সালের মধ্যে মধ্যম আয়ের দেশ হবে ও দারিদ্য্র হ্রাস পাবে।

অর্থমন্ত্রী গতকাল শনিবার সন্ধ্যায় সিলেট জেলা ও মহানগর আওয়ামী লীগ প্রদত্ত সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন। স্বাধীনতা পদক পাওয়ায় নগরীর রিকাবিবাজারস্থ নজরুল অডিটোরিয়ামে তাকে এ সংবর্ধনা প্রদান করা হয়। শনিবার বিকেলে শুরু হওয়া অনুষ্ঠান সন্ধ্যা সোয়া ৬টার দিকে শেষ হয়।

অর্থমন্ত্রী আরো বলেন, বঙ্গবন্ধুর নেতৃত্বে ১৯৫৬-৫৮ সালের মধ্যে আওয়ামী লীগ গণমানুষের দল হিসেবে প্রতিষ্ঠা পায়। বঙ্গবন্ধু গ্রামে গ্রামে ঘুরে তৃণমূল পর্যায়ে আওয়ামী লীগকে সংগঠিত করেন। এরই ধারবাহিকতায় বঙ্গবন্ধুর নেতৃত্বে বাংলাদেশ একটি স্বাধীন দেশে পরিণত হয়। স্বাধীনতার পর যখন দেশ গঠন শুরু হয়েছে, ঠিক সেই সময় ১৯৭৫ সালের ১৫ আগস্ট কালো রাতে কিছু কুলাঙ্গার গোষ্ঠী বঙ্গবন্ধুসহ তার পরিবারের সকল সদস্যকে হত্যা করে।

তিনি বলেন, ১৬ বছর চেষ্টার পর সেই ভূতটাকে ঘাড় থেকে নামায় জনগণ। গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠা পায়। শেখ হাসিনার নেতৃত্বে মানুষের ভোটের অধিকার, নির্বাচনের অধিকার প্রতিষ্ঠিত হয়েছে। এজন্য শেখ হাসিনাকে ধন্যবাদ। তিনি সকল দলকে নিয়ে নির্বাচন করতে চেয়েছিলেন। কিন্তু জ্বালাওপোড়াও করে দেশকে অস্থির করে তোলা হয়েছিল। বর্তমানে জ্বালাও-পোড়াও আর নেই। জ্বালাওপোড়াওকে আমরা বিদায় করেছি। খালেদা জিয়া জ্বালাও-পোড়াও বন্ধ করে দিয়েছেন।

অর্থমন্ত্রী বলেন, আমাদের দেশে বর্তমানে ৩ কোটি লোক এখনো দারিদ্য্রসীমার নিচে বসবাস করে। আমরা দারিদ্রকেও বিদায় করব।

অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত আরো বলেন, আমরা বীরের জাতি। আমাদের ধৈর্য আছে। আমরা ৪৫ বছর নানা দুঃখ-কষ্ট, বঞ্চনার শিকার হয়েছি। আল্লাহর মেহেরবানিতে আমরা দীপ্তপথে এগিয়ে যাচ্ছি। আজ আপনারা আমাকে যে ভালোবাসা, সম্মান, শ্রদ্ধা দেখালেন, তাতে আমি অভিভূত। এই অভিভূতের জবাব দেয়ার কোনো শব্দ নেই। আমি গায়ক হলে হয়তোবা কোনো কিছু বলতে পারতাম।

তিনি বলেন, আমাদের দেশে কৃষিবিপ্লব হয়েছে। উৎপাদন মাত্রা তিনগুণ বৃদ্ধি পেয়েছে। আমাদের কৃষকরা শিক্ষিত না হলেও বুদ্ধিমান। আমাদের জনগণ অত্যন্ত বুদ্ধিমান।

সিলেট মহানগর আওয়ামী লীগের সভাপতি ও সাবেক সিটি মেয়র বদর উদ্দিন আহমদ কামরানের সভাপতিত্বে এবং জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক শফিকুর রহমান চৌধুরীর পরিচালনায় সভায় বক্তব্য রাখেন অর্থমন্ত্রীর ভাই ও জাতিসংঘে বাংলাদেশের সাবেক দূত ড. এ কে মোমেন, আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক মিসবাহ উদ্দিন সিরাজ, সংসদ সদস্য ইমরান আহমদ, মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আসাদ উদ্দিন আহমদ।

অনুষ্ঠানের অর্থমন্ত্রীর অপর দুই ভাই, ড. এ কে মুবিন ও এসএম মুহিত (সুজন) উপস্থিত ছিলেন। সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে অর্থমন্ত্রীকে জেলা ও মহানগর আওয়ামী লীগের পক্ষ থেকে ক্রেস্ট প্রদান করা হয়। এছাড়া আওয়ামী লীগ ও অঙ্গসংগঠনের পক্ষ থেকে মন্ত্রীকে ফুলেল শুভেচ্ছা জানানো হয়। অনুষ্ঠানের শুরুতে পবিত্র কোরআন তেলাওয়াত, গীতা পাঠ, বাইবেল পাঠ শেষে জাতীয় সংগীত গাওয়া হয়। পরে দেশাত্মবোধক গান পরিবেশন করা হয়।

এ বিভাগের অন্যান্য খবর

নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৬

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি : মকিস মনসুর আহমদ, প্রধান সম্পাদক : লিয়াকত শাহ ফরিদী
সম্পাদক ও প্রকাশক : কে এ রহিম, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
কার্যালয়: ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট-৩১০০
ফোন : ০৮২১-৭২৬ ৫২৭ (নিউজ), ০১৭১২ ৮৮ ৬৫ ০৩ (সম্পাদক)
ই-মেইল: dailysylhet@gmail.com

Developed by: