সর্বশেষ আপডেট : ৬ মিনিট ৪০ সেকেন্ড আগে
মঙ্গলবার, ৬ ডিসেম্বর, ২০১৬, খ্রীষ্টাব্দ | ২২ অগ্রহায়ণ ১৪২৩ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET

হিলারি-স্যান্ডার্স তুমুল বিতর্ক

9942_32আন্তর্জাতিক ডেস্ক:
গতকাল হয়ে গেল ডেমোক্রেটিক দলের সবচেয়ে উত্তেজক প্রেসিডেন্সিয়াল বিতর্ক। দুই প্রার্থী হিলারি ক্লিনটন ও বার্নি স্যান্ডার্সের মধ্যে উত্তপ্ত বাক্যবিনিময় ও সরাসরি আক্রমণ ছিল সর্বশেষ বিতর্কের আকর্ষণ। হিলারি সামগ্রিকভাবে ভোটাভুটিতে এগিয়ে আছেন। কিন্তু সর্বশেষ ৮টি প্রাইমারি ও ককাসের মধ্যে ৭টিতে জিতে স্যান্ডার্স এখন হিলারির ঘাড়ে নিঃশ্বাস ফেলছেন। জানান দিয়েছেন, লড়াই এখনও শেষ হয়নি। এতে ক্রমেই পরম্পরের সমালোচনায় সুর চড়া করেছেন উভয়েই। সিএনএন’র খবরে বলা হয়েছে, মঙ্গলবার অনুষ্ঠেয় নিউ ইয়র্কের গুরুত্বপূর্ণ প্রাইমারি নির্বাচনের পাঁচদিন আগে এ বিতর্ক অনুষ্ঠিত হলো। বন্দুক নিয়ন্ত্রণ, ইসরাইল ও ওয়ালস্ট্রিট সংস্কার ইস্যুতে তীব্র বাহাস হয়েছে দু’জনের মধ্যে। স্যান্ডার্স একপর্যায়ে ক্লিনটনের ‘জাজমেন্ট’ ও গ্রহণযোগ্যতা নিয়ে প্রশ্ন উত্থাপন করেন। অপরদিকে হিলারির যুক্তি ছিল, স্যান্ডার্সের অভিজ্ঞতা নেই। নেই বাস্তবধর্মিতাও।

দুই ঘণ্টাব্যাপী এ বিতর্কে একে-অপরের বিরুদ্ধে আক্রমণের তোপ দাগিয়েছেন। একাধিকবার হস্তক্ষেপ করতে হয়েছে বিতর্ক উপস্থাপকদের। উত্তেজনায় ঠাসা বিতর্কে দর্শকরাও চিৎকার-চেঁচামেচি আর বিদ্রূপ অব্যাহত রেখেছেন। স্যান্ডার্স চেষ্টা করছেন আরও প্রতিদ্বন্দ্বিতার মোড় পালটে দিতে। আর ক্লিনটন চান তার অপ্রত্যাশিত শক্ত প্রতিদ্বন্দ্বী স্যান্ডার্সের পক্ষে যে গণজোয়ার সৃষ্টি হয়েছে, সেটির লাগাম দ্রুত টেনে ধরতে।

স্যান্ডার্স বলেন, আমাদের এখন যে ধরনের প্রেসিডেন্ট প্রয়োজন, তার মধ্যে থাকা যে জাজমেন্ট থাকা দরকার, তা হিলারির মধ্যে নেই। তবে ভারমন্টের এ সিনেটর কিছুটা ব্যাকফুটে চলে যান, যখন হিলারি তাকে তার ট্যাক্স রিটার্ন নিয়ে আক্রমণ করেন। স্যান্ডার্স বলেন শুক্রবার তিনি নিজের ট্যাক্সের বিস্তারিত প্রকাশ করবেন। ক্লিনটন আবারও আক্রমণের মুখে পড়েন বড় ব্যাংকে দেয়া তার পেইড বক্তৃতা নিয়ে। সিএনএন তাকে ওই বক্তৃতাগুলোর ট্রান্সক্রিপ্ট প্রকাশের কথা বললে তিনি প্রত্যাখ্যান করেন। সমপ্রতি নিউ ইয়র্ক ডেইলি নিউজকে দেয়া এক সাক্ষাৎকারে স্যান্ডার্স নিজের প্রধান নীতিগুলো ব্যাখ্যা করতে বেগ পেয়েছেন বলে পাল্টা আক্রমণ করেন ক্লিনটন।

বিতর্ক হয়েছে ইসরাইল ইস্যুতে। বিরল এক অবস্থান নিয়েছেন স্যান্ডার্স। নিজে ইহুদি হলেও, ইসরাইল সমপর্কে এমন সব মন্তব্য করেছেন, যা সচরাচর মার্কিন প্রেসিডেন্ট প্রার্থীরা করেন না। তিনি বলেছেন, গাজায় ইসরাইলের হামলা ছিল অসম ও মাত্রাতিরিক্ত। তার মতে মধ্যপ্রাচ্যে শান্তি আনতে হলে ফিলিস্তিনিদেরও সম্মান দেখাতে হবে। এছাড়া তার মন্তব্য, ইসরাইলি প্রধানমন্ত্রী বেনইয়ামিন নেতানিয়াহু সবসময় সঠিক হবেন, তা-ও নয়। কিন্তু হিলারি কট্টর ইসরাইলপন্থি অবস্থান গ্রহণ করেন। তিনি বলেন, ইসরাইলের অধিকার রয়েছে নিজেকে রক্ষা করার। হামাসই যুদ্ধে উস্কানি দিয়েছে। এমনকি হামাস বেসামরিক নাগরিকদের বেশভুষা নিয়ে হামলা চালিয়েছে। তার মতে, ইসরাইল গাজা ছেড়ে যাওয়ার পর, সেটি সন্ত্রাসীদের নিরাপদ স্বর্গ হয়ে উঠেছে।

এ বিভাগের অন্যান্য খবর

নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৬

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি : মকিস মনসুর আহমদ, প্রধান সম্পাদক : লিয়াকত শাহ ফরিদী
সম্পাদক ও প্রকাশক : কে এ রহিম, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
কার্যালয়: ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট-৩১০০
ফোন : ০৮২১-৭২৬ ৫২৭ (নিউজ), ০১৭১২ ৮৮ ৬৫ ০৩ (সম্পাদক)
ই-মেইল: dailysylhet@gmail.com

Developed by: