সর্বশেষ আপডেট : ১ ঘন্টা আগে
বুধবার, ৭ ডিসেম্বর, ২০১৬, খ্রীষ্টাব্দ | ২৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৩ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET

প্রার্থী বাছাইকে কেন্দ্র করে চট্টগ্রামে আ.লীগ কার্যালয়ে ভাঙচুর

full_1541997563_1460720031নিউজ ডেস্ক:: চট্রগ্রাম নগরীর আন্দরকিল্লায় ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে ‘মনোনয়ন বাণিজ্যের’ অভিযোগে চট্টগ্রাম দক্ষিণ জেলা আওয়ামী লীগের কার্যালয়ে ভাঙচুর চালানো হয়েছে। শুক্রবার বেলা ১১টার দিকে ওই কার্যালয়ে এ হামলার ঘটনা ঘটে বলে জানিয়েছে পুলিশ।

তৃণমূল নেতাদের বাছাই করা প্রার্থী​র তালিকা বাদ দিয়ে ‘একতরফা’ভাবে নতুন করে প্রার্থী বাছাইয়ের জন্য সাক্ষাৎকার ডাকার প্রতিবাদে এ ভাঙচুর চালানো হয়েছে বলে সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিরা জানিয়েছেন।

পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে ​আনতে লাঠিপেটা, টিয়ার সেল ও রাবার বুলেট ছোড়ে পুলিশ।

এ ব্যাপারে প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, বিক্ষুব্ধ নেতা–কর্মীরা মিছিল নিয়ে কার্যালয়ের ভেতরে প্রবেশ করতে চাইলে পুলিশ বাধা দেয়। পুলিশের বাধা ডিঙিয়ে কিছু নেতা–কর্মী ভেতরে ঢুকে ভাঙচুর চালান। এ সময় পুলিশ লাঠিপেটা, টিয়াল সেল ও রাবার বুলেট ছুড়ে নেতা–কর্মীদের ছত্রভঙ্গ করে দেয়।

এদিকে বিক্ষুব্ধ নেতা–কর্মীরা জানান, আগামী ৪ জুন চট্টগ্রামের আনোয়ারা ও কর্ণফুলী থানার ১৬ ইউনিয়নের নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। এই দুই থানা ও ১৬ ইউনিয়নের আওয়ামী লীগের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকের মতামত নিয়ে প্রার্থী ঠিক করে গত বুধবার কেন্দ্রীয় মনোনয়ন বোর্ডে পাঠানো হয়। এই তালিকা পাঠানোর পর মনোনয়নবঞ্চিত ব্যক্তিদের সাক্ষাৎকারের মাধ্যমে এই দুই থানার প্রার্থী বাছাইয়ের ঘোষণা দেয় দক্ষিণ জেলা আওয়ামী লীগ।

এদিকে আজ শুক্রবার সকালে আনোয়ারার ১১ ইউনিয়নের প্রার্থী বাছাইয়ের জন্য সাক্ষাৎকারের সময়সূচি ছিল। বিষয়টি জানতে পেরে দুই থানা থেকে আজ সকালে কয়েক শ নেতা–কর্মী নগরে অবস্থিত দক্ষিণ জেলা কার্যালয়ের সামনে জড়ো হন।

এরপর সেখানে ভাঙচুর করে বিক্ষুব্ধ নেতা–কর্মীরা চট্টগ্রাম প্রেসক্লাবের সামনে সমাবেশ করেন। এই বিক্ষোভে নেতৃত্ব দেন আনোয়ারা উপজেলা চেয়ারম্যান তৌহিদুল হক চৌধুরী। তিনি ভূমি প্রতিমন্ত্রী সাইফুজ্জামান চৌধুরী জাবেদের অনুসারী হিসেবে পরিচিত। সমাবেশে নেতা–কর্মীরা দক্ষিণ জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি মোসলেম উদ্দিন আহমেদ ও সাধারণ সম্পাদক মফিজুর রহমানের বিরুদ্ধে একতরফা প্রার্থী বাছাই–প্রক্রিয়ার জন্য ক্ষোভ প্রকাশ করেন।

যোগাযোগ করা হলে তৌহিদুল জানান, ‘কেন্দ্রের নির্দেশনা মেনে তৃণমূলের মতামত নিয়ে দুই থানার ১৬ ইউনিয়নের প্রার্থী বাছাই করে গত বুধবার কেন্দ্রে পাঠান ভূমি প্রতিমন্ত্রী’। অনুলিপি দেওয়া হয়েছে জেলা আওয়ামী লীগের কাছেও। কিন্তু জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক মনোনয়নবঞ্চিতের ডেকে প্রার্থী বাছাইয়ে সাক্ষাৎকারের ঘোষণা দেন। এর প্রতিবাদে আমরা হাজার খানেক নেতা–কর্মী মিছিল নিয়ে যাই। এ সময় মিছিলে ইটপাটকেল নিক্ষেপ করে গুটিকয়েক লোক। এ কারণে নেতা–কর্মীদের কেউ ক্ষোভ প্রকাশ করে থাকতে পারে।

এ ব্যাপারে দক্ষিণ জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মফিজুর রহমান বলেন, মনোনয়ন বোর্ডকে উপেক্ষা করে ভূমি প্রতিমন্ত্রী কেন্দ্রে প্রার্থী তালিকা পাঠিয়েছেন। কর্ণফুলী থানার পাঁচ ইউনিয়নের পর গতকাল আনোয়ারা ও বাঁশখালীর প্রার্থী বাছাইয়ের সাক্ষাৎকার নেওয়ার সময়সূচি ছিল। এরপর গতকাল সকালে আনোয়ারার কিছুসংখ্যক প্রার্থীদের সাক্ষাৎকার নেওয়া হয়েছে দক্ষিণ জেলা সভাপতির লালখানবাজারের বাসভবনে। তবে জেলা থেকে আনোয়ারা ও কর্ণফুলীর প্রার্থী তালিকা কেন্দ্রে পাঠানো হয়নি।

এদিকে কোতোয়ালি থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. জসীম উদ্দিন বলেন, মনোনয়নসংক্রান্ত বিষয় নিয়ে নেতা–কর্মীরা আওয়ামী লীগ কার্যালয়ে হামলা চালালে পুলিশ বাধা দেয়। তারা পুলিশের ওপর চড়াও হয়। এ সময় লাঠিপেটা, টিয়ার সেল ও রাবার বুলেট ছুড়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনা হয়।

নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৬

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি : মকিস মনসুর আহমদ, প্রধান সম্পাদক : লিয়াকত শাহ ফরিদী
সম্পাদক ও প্রকাশক : কে এ রহিম, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
কার্যালয়: ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট-৩১০০
ফোন : ০৮২১-৭২৬ ৫২৭ (নিউজ), ০১৭১২ ৮৮ ৬৫ ০৩ (সম্পাদক)
ই-মেইল: dailysylhet@gmail.com

Developed by: