সর্বশেষ আপডেট : ৪ ঘন্টা আগে
রবিবার, ৪ ডিসেম্বর, ২০১৬, খ্রীষ্টাব্দ | ২০ অগ্রহায়ণ ১৪২৩ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET

বিশ্বব্যাপী মুসলমানদের মাথা উঁচু করলেন যে সুদানী রাখাল (ভিডিও)

full_1924502868_1460342033কোটি মানুষের দেখা এই ভিডিও ক্লিপটি হয়তোবা অনেকেই দেখেছেন। সুদানের এক দরিদ্র লোক সৌদি আরবের এক রুক্ষ, মরুপ্রান্তরে মেষ চরাচ্ছিলেন। লোকটির বয়স হবে হয়তোবা ৩০ অথবা ৩৫। কিন্তু জীবন সংগ্রামে তাঁর চেহারা রোদে পুড়ে এমন হয়েছে যে বয়স ৫০/৫৫ মনে হয়। দামী গাড়িতে চড়ে সৌদি আরবের দুজন লোক- লোকটির পাশে গিয়ে বললো- ওরা একটা মেষ কিনতে চায়।

লোকটি বললো- সে মেষের রাখাল, মালিক না। তাই সে মেষ বিক্রি করতে পারবেনা। লোকগুলো এবার বললো- সে যত টাকা চায়, তাই দিবে। শুধু ওদের একটা মেষ দরকার। কিন্তু সুদানের দরিদ্র লোকটির এক জবাব- যেহেতু সে মেষগুলোর মালিক না তাই তার পক্ষে বিক্রি করা মোটেও সম্ভব না।

এবার লোকগুলোর জেদ হলো। ওরা যেভাবেই হোক মেষ কিনবেই। একটা মেষের জন্য ১০০ রিয়েল, ১ হাজার রিয়েল এমনকি ১০ হাজার রিয়েল দিতেও রাজী। শত শত ভেড়ার পালের মধ্যে একটা ভেড়া হারিয়ে গেলে মালিকেতো জানবেই না। আর যেহেতু তুমি একজন বিশ্বস্ত রাখাল তাই মালিক প্রতিদিন নিশ্চয়ই ভেড়াগুলো গুনেও দেখবেনা। মাঝখান থেকে তোমার বাড়তি কিছু আয় হলো। তোমার মালিকতো আর দেখছেনা। অথবা মালিককে বললেই হয়- একটা মেষ হারিয়ে গেছে, অথবা নেকড়ে খেয়ে ফেলছে।

লোকটির জবাব, মালিক দেখছেনা মানে কি? অবশ্যই মালিক সবকিছু দেখছে। দেখছে দুনিয়া আর আখিরাতের মালিক। আর হারিয়ে গেছে-এটাই বা বলবো কীভাবে? কবরে কি এটা কখনো আমি বলতে পারবো?

যদি তোমাকে দুই হাজার রিয়েল দেই একটা মেষের জন্য-তাও কি বিক্রি করবেনা?

না, আকাশ আর মাটি একসাথে হয়ে যাওয়া যেমন অসম্ভব, চুরি করে মেষ বিক্রি করাও আমার পক্ষে অসম্ভব।

লোক দুটি ফিরে গেলো। দরিদ্র রাখাল লোকটিও রাতে তার গৃহে ফিরলে মালিক এবার তাঁর সামনে এসে তাঁকে বুকে জড়িয়ে বললেন-ভাই, পৃথিবীব্যাপী বিশ্বাসী মুসলমানদের সততার এক দৃষ্টান্ত তুমি আজ প্রতিষ্ঠা করেছো। লোকদুটো গিয়েছিলো- তোমাকে শুধু পরীক্ষা করতে। আমি চ্যালেঞ্জ করে বলেছিলাম- একজন সৎ, খোদাভীরু, প্রকৃত ঈমানদার মানুষ স্রষ্টার প্রতি তাঁর ভয় আর বিশ্বাসকে ২০০০ হাজার রিয়েলতো দূরের কথা পুরো পৃথিবীর বিনিময়েও বিক্রি করে দিতে পারে না। তোমার এই ঘটনায় অনেক মানুষের বিশ্বাস যেমন দৃঢ় হবে ঠিক তেমনি অনেক মানুষ লজ্জায় মরে যাবে। একজন সাধারণ মেষ রাখালের লোভ নিয়ন্ত্রণ, নীতি, আদর্শের কাছে বড় বড় রাজা, বাদশাহ, মিলিওনিয়ার, আমীররা আজ হেরে গেছে। লোভের জন্য আর রাতারাতি ধনী হওয়ার জন্য পৃথিবীব্যাপী মানুষ আজ কি না করছে? মালিক চোখের কান্না মুছতে মুছতে বললেন- তুমি শুধু আজ আমার না কোটি কোটি বিশ্বাসী আর ধর্মভীরু মানুষের ইজ্জতকে বাড়িয়ে দিয়েছো। তুমি দরিদ্র একজন রাখাল হলেও আজ রাজাদের রাজা, বাদশাহদের বাদশা।

ভিডিও ক্লিপটি একজন বিখ্যাত মুসলিম ফিলানথ্রোপিস্ট দেখে অঝোরে কাঁদলেন। এই গরীব, দরিদ্র লোকটিইতো পৃথিবীব্যাপী কোটি কোটি বিশ্বাসী মানুষের প্রতিনিধি। নিশ্চয়ই-নবী সাঃ এমন কিছু মানুষকে দেখিয়েছিলেন সেইজন্যই আজ বিলিয়ন মানুষ পৃথিবীব্যাপী ইসলাম ধর্ম অনুসরণ করে। তিনি লোকটিকে খুঁজে বের করে- তাঁর সততার জন্য ২ হাজার রিয়েল পুরস্কার দিলেন।

মানুষ যখন তার হারাম আয়ের দরজা বন্ধ করে দেয়, আল্লাহ রাব্বুল আলামীন তখন তার সম্মান বাড়িয়ে হালাল আয়ের দরজা এভাবেই খুলে দেন।

লেখক: আরিফ মাহমুদ
ছোট গল্পকার, আটলান্টা, যুক্তরাষ্ট্র

নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৬

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি : মকিস মনসুর আহমদ, প্রধান সম্পাদক : লিয়াকত শাহ ফরিদী
সম্পাদক ও প্রকাশক : কে এ রহিম, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
কার্যালয়: ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট-৩১০০
ফোন : ০৮২১-৭২৬ ৫২৭ (নিউজ), ০১৭১২ ৮৮ ৬৫ ০৩ (সম্পাদক)
ই-মেইল: dailysylhet@gmail.com

Developed by: