সর্বশেষ আপডেট : ২৬ মিনিট ৪ সেকেন্ড আগে
সোমবার, ৫ ডিসেম্বর, ২০১৬, খ্রীষ্টাব্দ | ২১ অগ্রহায়ণ ১৪২৩ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET

‘এখন যাকে তাকে শিল্পী বানিয়ে দেয়া হচ্ছে’

full_285077703_1460049245বিনোদন ডেস্ক:: লাক্স-চ্যানেল আই সুপারস্টার প্রতিযোগিতার মধ্য দিয়ে মিডিয়া জগতে নাম লিখিয়েছিলেন মৌসুমী হামিদ। টিভি নাটকে অভিনয় করছেন বেশ কয়েক বছর হয়। এরই মধ্যে সম্পৃক্ততা ঘটিয়েছেন চলচ্চিত্রেও। এখন নাটক ও চলচ্চিত্র দুই মাধ্যমেই নিয়মিত কাজ করছেন রোশনিখ্যাত এ অভিনেত্রী।

শুক্রবার মুক্তি পাচ্ছে তার অভিনীত নতুন ছবি ‘পূর্ণদৈর্ঘ্য প্রেমকাহিনী টু’। নতুন এ ছবি নিয়ে বেশ উচ্ছ্বসিত তিনি। রূপালি পর্দায় নাম লেখানোর পর থেকে বেশ কটি ছবি মুক্তি পেয়েছে মৌসুমীর। সেগুলো মুক্তির আগে যে আকাঙ্খা কাজ করেছে মৌসুমীর মধ্যে সেটা এবারও দেখা যাচ্ছে। তবে এবার একটু বেশিই আশাবাদি এ অভিনেত্রী। তার অবশ্য কারণও রয়েছে। এবারই প্রথম এ ছবির মধ্য দিয়ে ঢাকাই চলচ্চিত্রের সব সুপারস্টারের সঙ্গে একসঙ্গে অভিনয় করলেন মৌসুমী।

শাকিব খান, জয়া আহসান, ইমনদের মতো তারকাদের সঙ্গে স্ক্রীন শেয়ার করছেন এ গ্ল্যামার গার্ল।

এ প্রসঙ্গে মৌসুমী বলেন, এটা সত্যিই খুব ভালো লাগার ব্যাপার। এই প্রথম কিং খান খ্যাত নায়ক শাকিব ও ঢালিউডের গ্ল্যামারাস তারকা জয়া আহসান ও জনপ্রিয় নায়ক ইমনের সঙ্গে একই ছবিতে কাজ করা। অনেক ভালো একটা কাজ হয়েছে আগেই বলেছি। তাই প্রত্যাশাটা অন্য সময়ের চেয়ে বেশিই বলবো। এ ছবিতে কাজ করতে গিয়ে অনেক মজার মজার অভিজ্ঞতা হয়েছে। বিশেষত পুরো টিমের সঙ্গে কাটানো মুহূর্তগুলো অসাধারণ ছিলো।

অভিজ্ঞতার কথা তো বললেন মৌসুমী। ছবির গল্প কেমন ছিল, কিংবা দর্শক কতটুকু গ্রহণ করবেন বলে মনে করছেন জানতে চাইলে মৌসুমী বলেন, আমাদের চলচ্চিত্রে একটা সময় খারাপ গেছে। সেখান থেকে এখন ধীরে ধীরে উন্নত হচ্ছে। পূর্ণদৈর্ঘ্য প্রেম কাহিনী’র প্রথম কিস্তিতে আমি ছিলাম না। কিন্তু একজন দর্শক হিসেবে বলবো এ ধরনের ছবির জন্যই মূলত আমাদের চলচ্চিত্রের অবস্থাটা আগের চেয়ে উন্নত হচ্ছে। আর সে জায়গা থেকে এবার দ্বিতীয় কিস্তির একজন সদস্য হিসেবে বলতে পারি, ‘পূর্ণদৈর্ঘ্য প্রেমকাহিনী টু’ সব দর্শকের জন্য। এ ছবির গল্প সত্যিই অসাধারণ। বিশেষ করে আমাদের দেশের ক্রিকেট পাগল অনেক মানুষের হৃদয়ে অনেকদিন বেঁচে থাকবে এ ছবিটি। সে সঙ্গে আমিও। কারণ আমি ভীষণ ক্রিকেট ভক্ত একজন মানুষ।

এদিকে মৌসুমী অভিনীত ফিরোজ খান প্রিন্সের পরিচালনায় ‘শোধ প্রতিশোধ’ ছবিটির কাজ এরই মধ্যে শেষ হয়েছে। এছাড়া সুমন আনোয়ারের পরিচালনায় ‘কয়লা’ ছবিটির কাজও শুরু করবেন বলে জানান এ অভিনেত্রী। অন্যদিকে চলচ্চিত্রের পাশাপাশি টিভি নাটকেও সরব মৌসুমী।

সম্প্রতি সুমন আনোয়ারের পরিচালনায় ‘স্বর্ণলতা’ ধারাবাহিক নাটকে যোগ দিয়েছেন তিনি। এছাড়া তার অভিনীত ‘উজান গাঙের নাইয়া’ নাটকটিও প্রচার চলছে। পাশাপাশি আসছে ঈদ উপলক্ষে নতুন খ- নাটকের কাজ শুরু করেছেন।

এখানে সফল হওয়ার পর এখন চলচ্চিত্রে নিয়মিত কাজ করছেন। দুই মাধ্যমের মধ্যে কি পার্থক্য খুঁজে পেয়েছেন মৌসুমী? জানতে চাইলে বলেন, অবশ্যই অনেক পার্থক্য পেয়েছি। নাটক তো হচ্ছে একটা স্কুলিং। এটি অভিনয় শেখার বড় একটি জায়গা। আর চলচ্চিত্রের ব্যাপারটাই আলাদা। এখানাকার কাজটা বড় পরিসরে হয়। আর বড়পর্দা হলো প্রত্যেক শিল্পীর জন্য একটি স্বপ্নের মাধ্যম। এখানে এসে আমি আমার অভিজ্ঞতাটা শতভাগ কাজে লাগাতে পেরেছি। নিজেকে নিয়ে কখনো মূল্যায়ন করি না। তবুও বলবো যে, অভিনয়টা টিভি নাটকে ভালভাবে রপ্ত করেছি। আর সেটা এখন বড়পর্দায় এসে কাজে লাগাতে পারছি। আশা করছি এটা সবসময় ধরে রাখবো। টিভি নাটকে কাজের অভিজ্ঞতা মৌসুমীর অনেকদিনের।

এ অভিজ্ঞতার আলোকে তিনি বলেন, গুটিকয়েক নির্মাতা ছাড়া চোখে পড়ার মতো ভালো কাজ করছেন তেমন কেউ নেই এখন। সবাই একটা প্রতিযোগিতার মধ্যে থাকেন। কে কত নাটক বানাতে পারেন সে ব্যস্ততা সবার মধ্যে লক্ষণীয়। দেখা গেছে, একশ কিংবা দেড়শ নাটক নির্মাণ কবে হবে আর সেটার জন্য গ্র্যান্ড পার্টি দেবেন সেটার ওপর বেশি গুরুত্ব দিচ্ছেন সবাই। কোয়ালিটির কথা ভাবছেন না কেউ। বিশেষত গল্পে ভিন্নতা নেই। একই ধরনের নাটক দর্শক বারবার দেখছেন। কেউ এসব ব্যাপারে নজর দিচ্ছেন না। দর্শক কিন্তু ভালো নাটকের জন্য মুখিয়ে থাকেন। আমরা অনেকেই বলি বিজ্ঞাপনের কারণে নাটক দেখছেন না দর্শক। কিন্তু তারা টিভি চ্যানেলে না দেখলেও ইউটিউবে ঠিকই দেখছেন। সেখান থেকে দর্শক কোনটা ভালো কিংবা খারাপ নাটক সেটা নিয়ে আলোচনা- সমালোচনা করেন। তাই বলবো গল্পের ওপর জোর দেয়া উচিৎ। আরেকটা বিষয় লক্ষণীয় যেটা হলো, এখন নাটকে অভিনয় করতে হলে অভিনয় জানা লাগে না। গ্ল্যামার থাকলেই এখন যাকে তাকে শিল্পী বানিয়ে দেয়া হচ্ছে। আর এসব কারণে নাটকের মান খারাপ হচ্ছে।

সূত্র: মানবজমিন

নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৬

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি : মকিস মনসুর আহমদ, প্রধান সম্পাদক : লিয়াকত শাহ ফরিদী
সম্পাদক ও প্রকাশক : কে এ রহিম, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
কার্যালয়: ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট-৩১০০
ফোন : ০৮২১-৭২৬ ৫২৭ (নিউজ), ০১৭১২ ৮৮ ৬৫ ০৩ (সম্পাদক)
ই-মেইল: dailysylhet@gmail.com

Developed by: