সর্বশেষ আপডেট : ৫৩ সেকেন্ড আগে
শনিবার, ১০ ডিসেম্বর, ২০১৬, খ্রীষ্টাব্দ | ২৬ অগ্রহায়ণ ১৪২৩ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET

২০১৫ সালে সারাবিশ্বে ১,৬৩৪ জনের মৃত্যুদণ্ড কার্যকর

hang_9734আন্তর্জাতিক ডেস্ক:
বিশ্বজুড়ে ক্রমেই আইনি প্রক্রিয়ায় মৃত্যুদণ্ড কার্যকরের হার বেড়ে চলেছে বলে শঙ্কা প্রকাশ করেছে বেসরকারি মানবাধিকার পর্যবেক্ষণ সংস্থা অ্যামনেস্টি ইন্টারন্যাশনাল। সংস্থাটি জানিয়েছে, ২০১৫ সালে বিশ্বব্যাপী অন্তত ১ হাজার ৬৩৪ জনের মৃত্যুদণ্ড কার্যকর করা হয়েছে, যা ১৯৮৯ সালের পর সর্বোচ্চ।

২০১৪ সালের চেয়ে ২০১৫ সালে মৃত্যুদণ্ড কার্যকরের হার দ্বিগুণ বলেও জানিয়েছে সংস্থাটি। তবে এ তালিকায় চীনের সংখ্যাটি যোগ করা যায়নি। দেশটির সরকার এ তথ্য গোপন রাখায় এটি সম্ভব হয়নি। অ্যামনেস্টির ধারণা, ২০১৫ সালে দেশটিতে সহস্রাধিকের মৃত্যুদণ্ড কার্যকর করা হয়েছে এবং চীন বিশ্বের সর্বোচ্চ মৃত্যুদণ্ড কার্যকর করা দেশ।

মৃত্যুদণ্ড কার্যকরে চীনের পরেই রয়েছে ইরান, পাকিস্তান ও সৌদি আরব। গত বছর বিশ্বব্যাপী যে সংখ্যক মৃত্যুদণ্ড কার্যকর হয়েছে, তার ৮৯ শতাংশই এই তিন দেশে। ২০১৫ সালে ইরান অন্তত ৯৭৭ জনকে মৃত্যুদণ্ড দিয়েছে। এর মধ্যে মাদক সংক্রান্ত অপরাধে এ সাজা দেওয়া হয়েছে ৭৪৩ জনকে। অ্যামনেস্টি জানিয়েছে, এর মধ্যে অন্তত চারজন ১৮ বছরের কম বয়সী, যা আন্তর্জাতিক আইনের লঙ্ঘন।

একই বছর পাকিস্তান অন্তত ৩২৬ জনের মৃত্যুদণ্ড কার্যকর করেছে। দেশটির ইতিহাসে এটাই সর্বোচ্চ সংখ্যা বলে জানিয়েছে অ্যামনেস্টি।

আর সৌদি আরবে অন্তত ১৫৮ জনের মৃত্যুদণ্ড কার্যকর করা হয়েছে গত বছর, যা ২০১৪ সালের তুলনায় ৭৪ শতাংশ বেশি।

মৃত্যুদণ্ড কার্যকরে পঞ্চম অবস্থানে রয়েছে যুক্তরাষ্ট্র। গত বছর দেশটিতে ২৮ জনকে এ সাজা দেওয়া হয়েছে। তবে ১৯৯১ সালের পর এ সংখ্যা যুক্তরাষ্ট্রে সর্বনিম্ন বলে জানিয়েছে অ্যামনেস্টি।

এছাড়া মিশর ও সোমালিয়াসহ বেশ কয়েকটি দেশে মৃত্যুদণ্ড কার্যকরের হার বেড়ে গেছে। তবে মৃত্যুদণ্ডের প্রথা বহাল রয়েছে, কিন্তু ২০১৪ সালের পর কারোর ক্ষেত্রে তা কার্যকর করেনি, এমন অন্তত ছয়টি দেশ খুঁজে পেয়েছে অ্যামনেস্টি। এর মধ্যে চাদ অন্যতম।

এদিকে, অপর এক পর্যবেক্ষণে অ্যামনেস্টি দেখেছে, বিশ্বের বেশিরভাগ দেশেই এখন মৃত্যুদণ্ডের বিধান সম্পূর্ণভাবে রহিত করা হয়েছে। ফিজি, মাদাগাস্কার, কঙ্গো-ব্রাজাভিলে ও সুরিনাম ২০১৫ সালে এ ব্যাপারে তাদের আইন পরিবর্তন করেছে। মঙ্গোলিয়াও তাদের আইন পরিবর্তন করেছে, তবে তা কার্যকর হবে চলতি বছরের শেষদিকে।

নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৬

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি : মকিস মনসুর আহমদ, প্রধান সম্পাদক : লিয়াকত শাহ ফরিদী
সম্পাদক ও প্রকাশক : কে এ রহিম, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
কার্যালয়: ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট-৩১০০
ফোন : ০৮২১-৭২৬ ৫২৭ (নিউজ), ০১৭১২ ৮৮ ৬৫ ০৩ (সম্পাদক)
ই-মেইল: dailysylhet@gmail.com

Developed by: