সর্বশেষ আপডেট : ৬ ঘন্টা আগে
রবিবার, ১১ ডিসেম্বর, ২০১৬, খ্রীষ্টাব্দ | ২৭ অগ্রহায়ণ ১৪২৩ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET

সিলেট আবহাওয়া অফিস গণহত্যা দিবস পালিত

e368919e-e249-42eb-a8f8-e90587a3ffbbস্টাফ রিপোর্টার::
১৯৭১ সালের ৫ এপ্রিল সিলেট আবহাওয়া অফিসে গণহত্যা চালায় পাক হানাদার বাহিনী। একই সাথে অফিসের ৯জন কর্মকর্তা-কর্মচারিকে গুলি করে নির্মমভাবে হত্যা করে। মুক্তিযুদ্ধে শহীদ এই বীর সন্তানদের স্মরণে মঙ্গলবার দোয়া মাহফিল আয়োজন করা হয়েছে। এছাড়া শহীদদের কবরে পুষ্পস্তবক অর্পন করেছেন আবহাওয়া অধিদপ্তরের কর্মকর্তা-কর্মচারিসহ বিভিন্ন সংগঠন।

মোনাজাত ও শ্রদ্ধাঞ্জলি নিবেদনের সময় সিলেট আবহাওয়া অফিসের দায়িত্বপ্রাপ্ত কর্মকর্তা, আবহাওয়াবিদ সাঈদ আহমদ চৌধুরী, আবহাওয়াবিদ কবির আহমদসহ অফিসের সকল স্তরের কর্মকর্তা-কর্মচারিরা উপস্থিত ছিলেন। সকাল ১০টায় কবরের পাশে দাঁড়িয়ে মোনাজাত শেষে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা জানানো হয়।
শহীদ বেদীতে পুস্পস্কবক অর্পণ করেছে খেলাঘর সিলেট জেলা কমিটি, সৃস্টি খেলাঘর, আনন্দ খেলাঘর, পুস্পহাসি খেলাঘর, মুক্তামন খেলাঘর, ছয়ানীড় খেলাঘর আসর ও বাংলাদেশ ছাত্র ইউনিয়ন এবং কমিনিস্ট পার্টি, আহবাওয়া অফিস, মুক্তিযোদ্ধা মহানগর ইউনিট কমান্ড। পুস্পস্তবক অর্পন শেষে সংক্ষিপ্ত আলোচনার আয়োজন করা হয়।

এসময় উপস্থিত ছিলেন গণতান্ত্রীক পার্টির সভাপতি ব্যারিস্টার আরশ আলী, মুক্তিযোদ্ধা পুরঞ্জয় চক্রবর্তী বাবলা, মনাফ খান, দিপংকর চক্রবর্তী, মহানগর ডেপুটি কমান্ডার তাজুল ইসলাম বাঙ্গালী, সিলেট জেলা খেলাঘর আসরের সভাপতি তপন চৌধুরী, সাধারণ সম্পাদক সিরাজ উদ্দিন সিরু, সম্পাদক গোলাল রাব্বী চৌধুরী, বিদ্যুৎ দাস বাপন, সদস্য কান্ত শার্ম্মা, এম আলী হোসেন, প্রতিভা সাহিত্য পরিষদের শফিকুর রহমান, মানবাধিকার কমিশন সিলেটের সুচিত্র গোপ, সৃষ্টি খেলাঘরের সাধারণ সম্পাদক পূজা চক্রবর্তী, পুস্পহাসি খেলাঘরের সত্যপ্রিয় দাস, ছায়ানীড় খেলাধরের সাংগঠনিক সম্পাদক এলিন বাহাদুর, সাজিব আহমদ বিজয় প্রমুখ।
মুক্তিযদ্ধের শুরুর দিকে ৫ এপ্রিল সকালে পাক বাহিনীর গণহত্যার শিকার হন নয়জন বীর বাঙালি। তারা হলেন, অফিসের উচ্চ পর্যবেক্ষক আব্দুস সবুর খোন্দকার, উচ্চ পর্যবেক্ষক আমিনুল হক, পর্যবেক্ষক আনোয়ার হোসেন, পর্যবেক্ষক আবু তাহের, মেকানিক গ্রেড-১ জামাল হোসেন, বেলুন মেকার মমতাজ উদ্দীন, পিয়ন আকলিম উদ্দিন, উপনৈমিত্তিক চৌকিদার রেনু মিয়া, বাবুর্চি আকদ্দছ আলী। একই কক্ষে ওই ৯জনকে ব্রাশফায়ার করে পাকবাহিনী হত্যা করে।

৫ এপ্রিল সিলেটে প্রথম মুখোমুখি হয় পাক বাহিনী ও মুক্তিবাহিনী। পাকিস্তানি হানাদার বাহিনীর আবস্থান ছিল ইলেকট্রিক সাপ্লাইর আশেপাশের উচু টিলায়। পাল্টা প্রতিযোধ গড়তে মুক্তিযোদ্ধোরা জড়ো হয়েছিলেন সিলেট আবহাওয়া অফিসের টিলায়। এক সময় দু’পক্ষের মধ্যে শুরু হয়ে যায় গুলি বিনিময়। দীর্ঘক্ষণ চলে তুমুল যুদ্ধ। কিন্ত অস্ত্র ও প্রয়োজনীয় গোলাবারুদের অভাবে মুক্তিযোদ্ধারা একপর্যায়ে পিছু হটতে বাধ্য হন। তারা ফিরে যান রায়নগর-শিবগঞ্জ এলাকার দিকে। পাকিস্তানীরা অগ্রসর হয় সামনের দিকে খুজতে থাকে মুক্তিযোদ্ধাদের। এক সময় চারদিক থেকে ঘিরে ফেলে আবহাওয়া অফিসের টিলা। অফিসে কর্মকরতরা স্ব-স্ব দায়িত্ব পালনে ব্যস্ত ছিলেন।

আবহাওয়া অফিসের কর্মকর্তারা গোলাগুলির শব্দ শুনতে পান। তারা খবর জানতে পারেন পাক সেনারা অফিস ঘিরে রেখেছে। আবহাওয়া অফিসের কর্মকর্তা-কর্মচারিরা ভয়ে একটি কক্ষে জড়ো হয়ে যান।

এক পর্যায়ে পাক বাহিনী আবহাওয়া অফিসের টিলায় উঠে অফিস কক্ষে ঢুকে পড়ে। তারা বিভিন্ন কক্ষের দরজা ভেঙ্গে কর্মকর্তা-কর্মচারিদের খুঁজতে থাকে। একই কক্ষে থাকা ৯জনকে ব্রাশফায়ার করে নির্মম ও নৃশংসভাবে হত্যা করে বর্বর পাক সেনারা।

দু’দিন পর স্থানীয়রা আবহাওয়া অফিসে গিয়ে নিহতদের হাড়, রক্তাক্ত ও ক্ষতবিক্ষত লাশ দেখতে পান এবং অফিসের টিলায় একটি কবর খুঁড়ে তাদেরকে একই কবরে দাফন করেন।

প্রতিবছরের ন্যায় এবারও আবহাওয়া অফিস গণহত্যা দিবসটি এবারও পালন করা হয়েছে। তবে, বৃষ্টিপাতের কারণে বড় পরিসরে কোন আয়োজন হয়নি বলে জানা গেছে।

এ বিভাগের অন্যান্য খবর

নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৬

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি : মকিস মনসুর আহমদ, প্রধান সম্পাদক : লিয়াকত শাহ ফরিদী
সম্পাদক ও প্রকাশক : কে এ রহিম, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
কার্যালয়: ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট-৩১০০
ফোন : ০৮২১-৭২৬ ৫২৭ (নিউজ), ০১৭১২ ৮৮ ৬৫ ০৩ (সম্পাদক)
ই-মেইল: dailysylhet@gmail.com

Developed by: