সর্বশেষ আপডেট : ১৮ সেকেন্ড আগে
রবিবার, ৪ ডিসেম্বর, ২০১৬, খ্রীষ্টাব্দ | ২০ অগ্রহায়ণ ১৪২৩ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET

আঙুলের ছাপ অপব্যবহারে ৩০০ কোটি টাকা জরিমানা হবে

full_587838061_1459796583নিউজ ডেস্ক:: বায়োমেট্রিক পদ্ধতিতে আঙুলের ছাপ নিয়ে সিম নিবন্ধনের বিষয়ে বিতর্কের অবসান ঘটাতে বিশেষ উদ্যোগ নিয়েছে সরকার। টেলিযোগাযোগ আইনের প্রেক্ষিতে মন্ত্রিপরিষদ সচিব মোহাম্মদ শফিউল আলম বলেছেন, কোনো মোবাইল ফোন অপারেটর গ্রাহকের আঙুলের ছাপের অপব্যবহার করলে ৩০০ কোটি টাকা জরিমানা দিতে হবে।

সোমবার প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সভাপতিত্বে মন্ত্রিসভার নিয়মিত বৈঠকে সিম নিবন্ধনের বায়োমেট্রিক পদ্ধতি নিয়ে জনগণের সংশয়ের বিষয়ে আলোচনা হয়।

বৈঠক শেষে মন্ত্রিপরিষদ সচিব সাংবাদিকদের বলেন, “মন্ত্রিসভা সাধারণ মানুষকে আশ্বস্ত করল ভয়ের কিছু নেই। আমরা ফিঙ্গারপ্রিন্ট দিয়েছি। আপনারাও (সাংবাদিক) জনগণকে আশ্বস্ত করতে পারেন-ফিঙ্গারপ্রিন্টের কারণে কারও ক্ষতি হবে না। “এটার যদি মিসইউজ হয়, তাহলে অপারেটরদের জন্য বড় শাস্তি আছে। তাদের তিনশ কোটি টাকা পর্যন্ত জরিমানা হতে পারে।”

সচিব বলেন, সিম পুনঃনিবন্ধনে চারটি আঙুলের ছাপ নেওয়া হয়। নাগরিকদের আঙুলের যে ছাপ জাতীয় পরিচয়পত্রের তথ্য ভাণ্ডারে সংরক্ষিতে আছে, তা মিলিয়ে দেখতেই এ ব্যবস্থা। মোবাইল অপারেটররা এই ছাপ সংরক্ষণ করবে না।

সচিব বলেন, ‘আমি নিজেও আমার ব্যবহার করা সিমকার্ডটি আঙুলের ছাপ দিয়ে রেজিস্ট্রেশন করেছি। আমার জানামতে মন্ত্রিসভার সদস্যরাও করেছেন। আমরা শুনতে পাই, আঙুলের ছাপ দিয়ে জায়গা-জমি হাত করা হতে পারে, অন্য বড় ক্ষতি হতে পারে বলে গুজব শোনা যাচ্ছে। আমি নিশ্চিত করে বলতে পারি, এ ধরনের কোনো আশঙ্কা নেই।

দেশ ও জনগণের কল্যাণের জন্যই বায়োমেট্রিক পদ্ধতিতে আঙুলের ছাপ দিয়ে সিম নিবন্ধন কার্যক্রম শুরু করেছে সরকার। এখানে যে চারটি আঙুলের ছাপ নেওয়া হচ্ছে, তা কোথাও সংরক্ষণ করা হচ্ছে না। এর পরও যদি কোনো নাগরিকের মধ্যে সন্দেহ থাকে, তাহলে আমরা তাদের উদ্দেশে মন্ত্রিসভা আশ্বস্ত করতে চাই যে, যদি কোনো নাগরিক ক্ষতিগ্রস্ত হন, এবং যে অপারেটর দ্বারা ক্ষতিগ্রস্ত হবেন, তাহলে তাকে ৩০০ কোটি টাকা জরিমানা করা হবে। এটি আইনেও আছে।’

“নাগরিকদের কোনো হয়রানির শিকার হওয়া, এই ফিঙ্গারপ্রিন্ট অন্য কোনো কাজে লাগানো বা তাদের স্থাবর-অস্থাবর সম্পত্তি নিয়ে টানা-টানির কোনো সম্ভাবনা নেই।” কোন আইনে মোবাইল

অপারেটরদের ওই জরিমানা করা যায় জানতে চাইলে মন্ত্রিপরিষদ সচিব বলেন, অপারেটরদের দেওয়া লাইসেন্সেই এ বিষয়ে বলা আছে। প্রসঙ্গত, গত বছরের ১৬ ডিসেম্বর আনুষ্ঠানিকভাবে সিম নিবন্ধনে বায়োমেট্রিক পদ্ধতি চালু হয়। এরপর থেকে আঙুলের ছাপ না দিয়ে এখন আর নতুন সিম কেনা যাচ্ছে না। পাশাপাশি পুরনো সিমও বায়োমেট্রিক পদ্ধতিতে পুনঃনিবন্ধন করতে হচ্ছে; এ জন্য সময় দেওয়া হয়েছে ৩০ এপ্রিল পর্যন্ত।

নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৬

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি : মকিস মনসুর আহমদ, প্রধান সম্পাদক : লিয়াকত শাহ ফরিদী
সম্পাদক ও প্রকাশক : কে এ রহিম, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
কার্যালয়: ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট-৩১০০
ফোন : ০৮২১-৭২৬ ৫২৭ (নিউজ), ০১৭১২ ৮৮ ৬৫ ০৩ (সম্পাদক)
ই-মেইল: dailysylhet@gmail.com

Developed by: