সর্বশেষ আপডেট : ৫৮ মিনিট ৩৮ সেকেন্ড আগে
শনিবার, ১০ ডিসেম্বর, ২০১৬, খ্রীষ্টাব্দ | ২৬ অগ্রহায়ণ ১৪২৩ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET

কমলগঞ্জে ৭০ হেক্টর জমির বোরো ফসল ও ৫ হেক্টর জমির সব্জি তলিয়ে গেছে

1. daily sylhet kamalganj newsপিন্টু দেবনাথ, কমলগঞ্জ::
রোববার সারা রাতের ভারী বর্ষণে নেমে আসা পাহাড়ি ঢলের পানিতে মৌলভীবাজারের কমলগঞ্জ উপজেলায় ৭০ হেক্টর জমির উঠতি বোরো ফসল ও ৫ হেক্টর জমির সব্জি তলিয়ে গেছে। ভারী বর্ষণের সাথে সৃষ্ট মাঝারি ঝড়ে গাছ পড়ে লাউয়াছড়া জাতীয় উদ্যানের পাহাড়ি এলাকায় বৈদ্যুতিক খুটি ভেঙ্গে, তার ছিড়ে ও যন্ত্রাংশের ভেঙ্গে বৈদ্যুতিক লাইনের ক্ষতি সাধন হয়েছে। নদী ও পাহাড়ি ছড়ার পানি বিপদ সীমার উপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে।

রোববার (৩ এপ্রিল) সারা দিন থেমে থেমে বৃষ্টি হলেও সারা রাতের ভারী বৃষ্টিতে পাহাড় থেকে নেমে আসা ঢলের পানিতে ও সীমান্তভর্তি ইসলামপুর ইউনিয়নের আন্ডর ড্যাম্প-এর বাঁধ ভেঙ্গে প্লাবনের পানিতে ইসলামপুর, আদমপুর, আলীনগর, মাধবপুর ও কমলগঞ্জ সদর ইউনিয়নের ব্যাপক এলাকার উঠিতি বোরো ফসল তলিয়ে গেছে। সাথে সাথে ৫ হেক্টর জমির তরমুজ, ঢেঁড়শসহ বিভিন্ন জাতের সব্জি তরিয়ে গেছে। সোমবার সকাল থেকে কমলগঞ্জ উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা মাঠ পর্যায়ে ঘুরে ক্ষয়ক্ষতি পর্যবেক্ষণ করতে দেখা গেছে।

কমলগঞ্জ উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা মো: শামছুদ্দীন আহমদ বলেন ভারী বৃষ্টিতে পাহাড়ি ঢলের পানিতে ৭০ হেক্টর জমির উঠতি বোরো ফসল ও ৫ হেক্টর জমির সব্জি তলিয়ে গেছে। দ্রুত পানি নেমে গেলে বোরো ও সব্জির তেমন ক্ষতি হবে না বলেও কৃষি কর্মকর্তা জানান। কৃষি কর্মকর্তা আরও বলেন, ভারী বৃষ্টিতে ইসলামপুর ইউনিয়নের পাহাড়ি এলাকার আন্ডু নামের ড্যাম্পের বাঁধ ভেঙ্গে বেরিয়ে আসা পানিতেই বেশী ক্ষতি করেছে বোরো ক্ষেতের।

রোববার রাতের ভারী বৃষ্টির সাথে মাঝাড়ি ঝড়ে লাউয়াছড়া জাতীয় উদ্যানের পাহাড়ি এলাকায় গাছ পড়ে একটি বৈদুতিক খুটি ভেঙ্গে গেছে। আটটি স্থানে তার ছিড়ে ও বেশ কিছু ইন্সুলেটর ভেঙ্গে বৈদ্যুতিক ক্ষতি সাদন হয়েছে। সোমবার বোর থেকে বিদ্যুৎ কর্মীরা পাহাড়ি এলাকার ক্ষতিগ্রস্ত স্থান মেরামত করে বিদত্যুৎ সঞ্চালন ব্যবস্থা স্বাভাবিক রাখতে ব্যস্ত হয়ে পড়েন। তাছাড়া রোববার রাত সাড়ে তিনটার বজ্রপাতে মাধবপুর ইউনিয়নের টিলাগাঁও গ্রামে একটি গরু মারা গেছে ও এক ব্যক্তি আহত হয়েছেন।

সরেজমিন ধলাই ও লাঘাটা নদী এলাকা ঘুরে দেখা যায়, উজান থেকে নেমে আসা ভারতীয় পাহাড়ি ঢলের পানিতে নদীতে পানি বেড়ে বিপদ সীমার উপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে। তাছাড়া সবগুলো ছড়ার পানিও বেড়ে গেছে।

কমলগঞ্জ উপজেলা প্রকল্প কর্মকর্তা মো: আসাদুজ্জামান বলেন, ইউনিয়ন ওয়ারি ক্ষয়ক্ষতির তথ্য চেয়ে তারা ৯টি ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যানকে ফোন করেছেন। তারা এখন কোন তথ্য উপজেলা প্রশাসনে প্রদান করেননি।

এ বিভাগের অন্যান্য খবর

নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৬

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি : মকিস মনসুর আহমদ, প্রধান সম্পাদক : লিয়াকত শাহ ফরিদী
সম্পাদক ও প্রকাশক : কে এ রহিম, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
কার্যালয়: ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট-৩১০০
ফোন : ০৮২১-৭২৬ ৫২৭ (নিউজ), ০১৭১২ ৮৮ ৬৫ ০৩ (সম্পাদক)
ই-মেইল: dailysylhet@gmail.com

Developed by: