সর্বশেষ আপডেট : ৩ মিনিট ৪৪ সেকেন্ড আগে
রবিবার, ৪ ডিসেম্বর, ২০১৬, খ্রীষ্টাব্দ | ২০ অগ্রহায়ণ ১৪২৩ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET

মৌলভীবাজারে অশ্লীল ছবি পাঠিয়ে যুবক কারাগারে

18মৌলভীবাজার সংবাদদাতা ::
মৌলভীবাজারের কমলগঞ্জ উপজেলার এক কলেজছাত্রীর অশ্লীল ছবি এবং মোবাইলে ম্যাসেজ পাঠানোর অভিযোগে এক যুবককে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি আইনে দায়ের করা ছাত্রীর মামলায় পুলিশ গতকাল ওই যুবককে আটক করে।

জবানবন্দি থেকে জানা যায় ২০১১ সালে কমলগঞ্জের একটি কলেজের ছাত্রীর সঙ্গে পরিচয় হয় নেত্রকোনার কেন্দুয়া উপজেলার জনৈক জহিরুল ইসলাম ওরফে সোহেল রানার সঙ্গে। তখন জহিরুল নিজেকে পরিচয় দেয় একটি ব্যাংকের কর্মকর্তা হিসেবে। মূলত সে একটি মাল্টিন্যাশনাল সংস্থার হয়ে মৌলভীবাজার অঞ্চলে কাজ করতো।

একপর্যায়ে তার আসল পরিচয় প্রকাশ পায়। ছাত্রী ও তার পরিবার বেঁকে বসে। তখন জহিরুল দাবি করে ওই ছাত্রী তার বিবাহিত স্ত্রী। কিন্তু কাগজপত্র উপস্থান না করতে পারায় পরিবারের কেউ বিশ্বাস করেনি। ছাত্রী জানায় জহিরুল ফেইস বুকে ভুয়া আইডি খুলে ২০১৪ সাল থেকে বিভিন্ন অশ্লীল ছবি পোস্ট করতে থাকে। এবং কমলগঞ্জের ওই ছাত্রীর আত্মীয়স্বজনের মোবাইল নম্বর দিয়ে বলে যোগাযোগ করতে। এই সময় ওই ছাত্রী এবং তার বোনের ছবি বিকৃত করে উপস্থাপন করে। এই সব অশ্লীল ছবি এবং বাজে ম্যাসেজের কারণে পরিবার ও আত্মীয়স্বজন বিব্রতকর অবস্থায় পড়ে। ভুক্তভোগী ছাত্রী জানায় প্রেমের সম্পর্ক ছিল সত্য কিন্তু ভেঙ্গে যাওয়ার পর এভাবে প্রতিশোধ নিবে ভাবতেই পারেননি।

সর্বশেষ গত ২২শে মার্চ পুলিশ ব্যুারো অব ইনভেস্টিগেশনের হেডকোয়ার্টারে ফোন করে সাহায্য চান। তারা দ্রুত সাড়া দেন। তাদের পরামর্শে তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি আইনে নিজে বাদী হয়ে কমলগঞ্জ থানায় মামলা করেন ২৯শে মার্চ। মামলার তদন্ত করে পুলিশের স্পেশাল ইন্টেলিজেন্স এন্ড অপারেশন অর্গানাইজড। মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা পুলিশের স্পেশাল ইন্টেলিজেন্স এন্ড অপারেশন অর্গানাইজড ক্রাইম এর এস আই তাজুদ্দিন খন্দকার জানান অভিযোগ পাওয়ার পর তারা তদন্তে নামেন এবং অভিযোগের সত্যতা পেয়ে গত ২রা এপ্রিল নেত্রকোনার কেন্দুয়া থেকে অভিযুক্ত জহিরুল ইসলামকে তারা গ্রেপ্তার করে। জহিরুল ঘটনার সত্যতা স্বীকার করেছে।
কোর্ট সূত্রে জানা গেছে গতকাল বিকালে মৌলভীবাজার সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট মঈন উদ্দিন চৌধুরীর আদালতে আসামি জহিরুল ইসলাম স্বীকারোক্তি দেয়। আদালত পরে তাকে কারাগারে পাঠায়।

নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৬

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি : মকিস মনসুর আহমদ, প্রধান সম্পাদক : লিয়াকত শাহ ফরিদী
সম্পাদক ও প্রকাশক : কে এ রহিম, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
কার্যালয়: ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট-৩১০০
ফোন : ০৮২১-৭২৬ ৫২৭ (নিউজ), ০১৭১২ ৮৮ ৬৫ ০৩ (সম্পাদক)
ই-মেইল: dailysylhet@gmail.com

Developed by: