সর্বশেষ আপডেট : ৫৪ সেকেন্ড আগে
শনিবার, ১০ ডিসেম্বর, ২০১৬, খ্রীষ্টাব্দ | ২৬ অগ্রহায়ণ ১৪২৩ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET

অবিশ্বাস্য জয়ে বিশ্বকাপের শিরোপা জিতল ওয়েস্ট ইন্ডিজ

full_706875005_1459701862খেলাধুলা ডেস্ক: বিশ্বকাপের ফাইনালে ইংল্যান্ডকে কাঁদিয়ে দ্বিতীয়বারের মতো টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের শিরোপা জিতল ওয়েস্ট ইন্ডিজ। টি-টোয়েন্টি নারী বিশ্বকাপের শিরোপাও জেতে ওয়েস্ট ইনিডজের নারীরা। ফলে, ভারতের মাটিতে অনুষ্ঠিত আইসিসির এই মেগা উভেন্টের দুটি শিরোপাই ঘরে নিল ক্যারিবীয়রা।

এর আগে টস জিতে আগে ফিল্ডিং করার সিদ্ধান্ত নেন ওয়েস্ট ইন্ডিজের দলপতি ড্যারেন স্যামি। শিরোপা নির্ধারণী ম্যাচে আগে ব্যাট করে নির্ধারিত ওভার শেষে ৯ উইকেটে ১৫৫ রান সংগ্রহ করে মরগান-বাহিনী। শুরুতে বিপাকে পড়া ইংলিশদের হয়ে দারুণ অর্ধশতক হাঁকান জো রুট।

১৫৬ রানের টার্গেটে খেলতে নেমে শুরুতে বিপাকে পড়ে ক্যারিবীয়রাও। তবে, মারলন স্যামুয়েলসের অপরাজিত ৮৫ রানের দুর্দান্ত ইনিংসে আর ব্রাথওয়েইটের ঝড়ো ইনিংসে ১৯.৪ ওভারে জয় তুলে নেয় ওয়েস্ট ইন্ডিজ। দারুণ ইনিংসে ওয়েস্ট ইন্ডিজের ম্যাচ টিকিয়ে রেখেছিলেন মার্লন স্যামুয়েলস। কিন্তু শেষ ওভারে টানা চার ছক্কা হাঁকিয়ে দলটির ৪ উইকেটের জয়ের নায়ক কার্লোস ব্র্যাথওয়েইট।

ইনিংসের দ্বিতীয় ওভারেই জোড়া আঘাত হানেন জো রুট। দ্বিতীয় ওভারেই বিদায় নেন দুই ক্যারিবীয় ওপেনার। ব্যক্তিগত এক রানে বেন স্টোকসের হাতে ধরা পড়েন চার্লস। আর এই স্টোকসের তালুবন্দি হয়েই ফেরেন দেশের হয়ে ক্যারিয়ারের ৫০তম ম্যাচ খেলতে নামা গেইল (৪)।

পরের ওভারে ডেভিড উইলি ফিরিয়ে দেন সেমিফাইনালের নায়ক লেন্ডল সিমন্সকে। এলবির ফাঁদে পড়ে সাজঘরে ফেরেন সিমন্স। পাওয়ার প্লে’র ছয় ওভারে ওয়েস্ট ইন্ডিজ তিন উইকেট হারিয়ে তোলে ৩৭ রান। ৫৩ বলে তাদের দলীয় অর্ধশতক আসে। ৯০ বলে দলীয় ১০০ করে ওয়েস্ট ইন্ডিজ।

ইনিংসের ১৪তম ওভারের শেষ বলে ব্রাভো বিদায় নেন। আদিল রশিদের বল তুলে মারতে গিয়ে রুটের হাতে ধরা পড়েন তিনি। বিদায় নেওয়ার আগে স্যামুয়েলসের সঙ্গে ৭৫ রানের জুটি গড়েন তিনি। ২৭ বলে ব্রাভোর ব্যাট থেকে একটি চার ও ছক্কায় আসে ২৫ রান।

ইনিংসের ১৬তম ওভারে এক রান করা আন্দ্রে রাসেলকে ফিরিয়ে দিয়ে ক্যারিবীয়দের পঞ্চম উইকেট তুলে নেয় ইংল্যান্ড। ডেভিড উইলির বলে স্টোকসের হাতে ডিপ মিডেউইকেটে বাউন্ডারিতে ধরা পড়েন রাসেল। একই ওভারে বিদায় নেন দলপতি ড্যারেন স্যামি। অ্যালেক্স হেলসের তালুবন্দি হন ২ রান করা স্যামি।

শেষ ওভারে জয়ের জন্য ওয়েস্ট ইন্ডিজের দরকার হয় ১৯ রানের। বেন স্টোকসের করা সে ওভারের প্রথম চার বলেই চারটি ছক্কা হাঁকান ব্রাথওয়েইট। দুই বল বাকি থাকতেই জয় পায় ক্যারিবীয়রা।

মারলন স্যামুয়েলস ৬৬ বলে ৯টি চার আর দুটি ছক্কায় করেন অপরাজিত ৮৫ রান। ব্রাথওয়েইট ১০ বলে চারটি ছক্কা আর একটি চারের সাহায্যে ৩৪ রান করে অপরাজিত থাকেন।

এদিকে টস হেরে আগে ব্যাটিং উদ্বোধন করতে নামেন ইংল্যান্ডের দুই ওপেনার জেসন রয় অ্যালেক্স হেলস। তবে, ইনিংসের প্রথম ওভারের দ্বিতীয় বলেই বিদায় নেন জেসন রয়। স্যামুয়েল বদ্রির বলে বোল্ড হয়ে সাজঘরে ফেরেন তিনি।

ইনিংসের দ্বিতীয় ওভারের পঞ্চম বলে আন্দ্রে রাসেল ফিরিয়ে দেন আরেক ইংলিশ ওপেনার অ্যালেক্স হেলসকে। শর্ট ফাইন লেগে বদ্রির তালুবন্দি হওয়ার আগে ৩ বলে এক রান করেন হেলস। এরপর ইনিংসের হাল ধরে সতর্ক থেকে ব্যাট চালানোর ইঙ্গিত দেন দলপতি ইয়ন মরগান ও ইনফর্ম ব্যাটসম্যান জো রুট। কিন্তু, উইকেটে থিতু হওয়ার আগেই স্কোরবোর্ডে আরও ১৫ রান তুলে বিদায় নেন মরগান। স্যামুয়েল বদ্রির বলে গেইলের হাতে ক্যাচ তুলে দেন ১২ বলে ৫ রান করা মরগান।

পাওয়ার প্লে’র ছয় ওভারে ইংলিশরা তিন উইকেট হারিয়ে তোলে ৩৩ রান। আর ৫২ বলে তাদের আসে দলীয় অর্ধশতক। দলীয় শতক আসে ৭৭ বলে।

ইনিংসের ১২তম ওভারে ব্যক্তিগত ৩৬ রান করে বিদায় নেন জস বাটলার। ২২ বলে একটি চার আর তিনটি ছক্কা হাঁকিয়ে বাটলার তার ইনিংসটি সাজান। ব্রাথওয়েইটের বলে ব্রাভোর তালুবন্দি হন তিনি। এর আগে রুটকে সঙ্গে নিয়ে ৪০ বলে ৬১ রান তোলেন বাটলার।

৮ বলে ১৩ রান করে ইনিংসের ১৪তম ওভারে সাজঘরে ফেরেন বেন স্টোকস। ব্রাভোর বলে সিমন্সের হাতে ধরা পড়েন তিনি। দলীয় ১১০ রানের মাথায় পঞ্চম উইকেট হারায় ইংল্যান্ড। একই ওভারে ব্রাভো ফিরিয়ে দেন মঈন আলিকে। উইকেটের পেছনে রামদিনের গ্লাভসবন্দি হন তিনি।

পুরো বিশ্বকাপে দুর্দান্ত ব্যাটিং করা জো রুটকে ব্রাথওয়েইট ফিরিয়ে দেন ইনিংসের ১৫তম ওভারে। ৩৬ বলে ৭টি বাউন্ডারির সাহায্যে রুট করেন ৫৪ রান। ইনিংসের ১৮তম ওভারে একটি চার আর দুটি ছক্কা হাঁকানো ডেভিড উইলিকে বিদায় করেন ব্রাথওয়েইট। জনসন চার্লসের দারুণ ক্যাচে ফেরার আগে উইলি ১৪ বলে করেন ২১ রান।

১৯তম ওভারে ব্রাভো ‍তার তৃতীয় উইকেট তুলে নিতে ফেরান ৪ রান করা লিয়াম প্লাংকেটকে।

ক্যারিবীয়দের হয়ে তিনটি করে উইকেট নেন ব্রাভো এবং ব্রাথওয়েইট। দুটি উইকেট পান ৪ ওভারে মাত্র ১৬ রান খরচ করা স্যামুয়েল বদ্রি। এছাড়া ৪ ওভারে ২১ রানের বিনিময়ে আন্দ্রে রাসেল তুলে নেন একটি উইকেট।

নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৬

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি : মকিস মনসুর আহমদ, প্রধান সম্পাদক : লিয়াকত শাহ ফরিদী
সম্পাদক ও প্রকাশক : কে এ রহিম, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
কার্যালয়: ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট-৩১০০
ফোন : ০৮২১-৭২৬ ৫২৭ (নিউজ), ০১৭১২ ৮৮ ৬৫ ০৩ (সম্পাদক)
ই-মেইল: dailysylhet@gmail.com

Developed by: