সর্বশেষ আপডেট : ১ মিনিট ১৬ সেকেন্ড আগে
সোমবার, ৫ ডিসেম্বর, ২০১৬, খ্রীষ্টাব্দ | ২১ অগ্রহায়ণ ১৪২৩ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET

গোলাপগঞ্জে সাংবাদিক মাহবুব হত্যার চেষ্টা মামলার আসামী দিদার কারাগারে 

2. daily sylhet jailগোলাপগঞ্জ প্রতিনিধি : গোলাপগঞ্জ পৌরসভার সাড়ে ৫কোটি টাকা দূর্নীতির সংবাদ প্রকাশের জের ধরে গোলাপগঞ্জ সাংবাদিক কল্যান সমিতির সভাপতি সাংবাদিক মাহবুবুর রহমান চৌধুরীকে হত্যা চেষ্টা মামলার প্রধান আসামী দিদারুল আলমকে কারাগারে পাঠিয়েছেন আদালত। দীর্ঘ দেড় মাস পলাতক থাকার পর রবিবার সিলেটের বিচারিক আদালতে আসামী দিদার ও তার ভাই সায়েন আত্মসমর্পন করলে আদালত সায়েনকে জামিন দিয়ে দিদারকে কারাগারে প্রেরনের আদেশ দেন। দিদার ও সায়েন গোলাপগঞ্জ মর্তুজা মার্কেটের চৌকিদার ও রণকেলী নয়গ্রামের মজন আলীর ছেলে। এর আগে মামলার অপর ৪ আসামী রাজন, কামরুল, মনজুর, জেবুল আত্মসমর্পন করে জামিন লাভ করে।
মামলা সূত্রে জানা যায় , সাংবাদিক মাহবুবুর রহমান চৌধুরী গত ১৫ ফেব্রুয়ারী বাড়ী থেকে বের হয়ে ওয়াজ মাহফিলের উদ্দেশ্য রওয়না হয়ে গোলাপগঞ্জ চৌমুহনীতে আসা মাত্র মাদক ব্যবসায়ী দিদার তার সহযোগীদের নিয়ে মাহবুবের উপর হামলা চালায়। হামলায় মাহবুবের বাম হাতের দুটি হাড় ভেঙ্গে যায় এছাড়া ডান হাত ও পায়ে জখম হয়। এই ঘটনায় আসামী দিদার সহ ১০ জনকে আসামী করে গোলাপগঞ্জ মডেল থানায় হত্যা চেষ্টা , মোবাইল ও টাকা লুটের অভিযোগে মামলা দায়ের করেন মাহবুব। গোলাপগঞ্জ পৌরসভার প্রায় সাড়ে ৫কোটি টাকার দূর্নীতি অনুসন্ধান করে সংবাদ প্রকাশ করায় পৌরসভার সাবেক মেয়র জাকারিয়া আহমদ পাপলু সাংবাদিক মাহবুবের উপর ক্ষিপ্ত ছিলেন। এরপর একের পর এক পাপলুর অনুসারীরা সাংবাদিক মাহবুবকে হুমকি দেয় দূর্নীতির সংবাদ না করতে এর জের ধরে পাপলুর লালিত বাহীনি হত্যার উদ্দেশ্যে হামলা চালায় বলে সাংবাদিক মাহবুব জানান।

এ বিভাগের অন্যান্য খবর

নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৬

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি : মকিস মনসুর আহমদ, প্রধান সম্পাদক : লিয়াকত শাহ ফরিদী
সম্পাদক ও প্রকাশক : কে এ রহিম, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
কার্যালয়: ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট-৩১০০
ফোন : ০৮২১-৭২৬ ৫২৭ (নিউজ), ০১৭১২ ৮৮ ৬৫ ০৩ (সম্পাদক)
ই-মেইল: dailysylhet@gmail.com

Developed by: