সর্বশেষ আপডেট : ৪৭ মিনিট ৪৭ সেকেন্ড আগে
শনিবার, ৩ ডিসেম্বর, ২০১৬, খ্রীষ্টাব্দ | ১৯ অগ্রহায়ণ ১৪২৩ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET

পিন্টুর চিকিৎসা করার অনুমতি পাননি চিকিৎসক!

1430641033নিউজ ডেস্ক::
রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের হৃদরোগ বিভাগের বিভাগীয় প্রধান ডা. রইচ উদ্দিন শনিবার সকালে পিন্টুকে কারাগারে চিকিৎসা দিতে গেলেও তাকে দেখা করতে দেয়া হয়নি। ডা. রইচ উদ্দিন জানান, রাজশাহী কারাগারে আনার কয়েকদিন পরেই বিএনপি নেতা নাসির উদ্দিন আহম্মদ পিন্টুর শারীরিক অবস্থার অবনতি হয়। গত ২৬ এপ্রিল তাকে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে এসে চিকিৎসা দেয়া শেষে আবারো কারাগারে নিয়ে যাওয়া হয়। এর আগে রাজশাহী কেন্দ্রীয় কারাগার কর্তৃপক্ষ বিএনপি নেতা নাসির উদ্দিন আহম্মদ পিন্টুর চিকিৎসার জন্য একজন বিশেষজ্ঞ চিকিৎসক চেয়ে হাসপাতাল পরিচালককে চিঠি দেন। এরই প্রেক্ষিতে তিনি শনিবার সকাল সাড়ে ১১টার দিকে রাজশাহী কেন্দ্রীয় কারাগারে পিন্টুকে চিকিৎসা দিতে যান। কিন্তু সেখানে সিনিয়র জেল সুপার শফিকুল ইসলাম খান তাকে পিন্টুর সঙ্গে দেখা করতে দেনননি।

ডা. রইচ বলেন, ‘আমি সিনিয়র জেল সুপারকে বলেছিলাম, “আপনারা পিন্টুর জন্য চিকিৎসক চাওয়ায় পরিচালক তাকে পাঠিয়েছেন। তবে কেনো আপনারা তার সঙ্গে আমাকে দেখা করতে দিচ্ছেন না।” তিনি আরো বলেন, “আমি জেল সুপারকে বলেছি, আল্লাহ না করুক, বিএনপি নেতা পিন্টুর যদি কোনো দুর্ঘটনা ঘটে, তবে এজন্য আপনারাই দায়ী থাকবেন। এরপরও তিনি আমাকে পিন্টুর সঙ্গে দেখা করতে দেয়নি। বরং চা খাইয়ে বিদায় করে দেন।”

তবে, রাজশাহীর কেন্দ্রীয় কারাগারের সিনিয়র জেল সুপার শফিকুল ইসলাম খান বলেন, নাসির উদ্দিন আহমেদ পিন্টু নানাবিধ অসুখে ভুগছিলেন। রোববার দুপুর পৌনে ১২টার দিকে তিনি কারাগারের মধ্যে বুকের ব্যাথা অনুভব করেন ও গুরুতর অসুস্থ হয়ে পড়লে প্রথমে তাকে কারা হাসপাতালে নেয়া হয়। সেখানে কারাগারে নিয়োজিত হৃদরোগ বিশেষজ্ঞ ডা. এমএস সায়েম তাকে চিকিৎসা দেন। তার অবস্থার অবনতি হওয়ায় দ্রুত রামেক হাসপাতালের জরুরি বিভাগে আনা হয়। সেখান থেকে বিএনপি নেতা পিন্টুকে হাসপাতালের ৩২ নম্বর ওয়ার্ডে নিয়ে যাওয়া হলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষনা করেন।

তিনি আরো বলেন, রামেক হাসপাতাল কর্তৃপক্ষকে ২৩ এপ্রিল একটি চিঠি দেয়া হয়। সেখানে বিএনপি নেতা পিন্টুকে চিকিৎসা দেয়ার জন্য ২৫ এপ্রিল কারাগারে একজন বিশেষজ্ঞ চিকিৎসক পাঠানোর অনুরোধ করা হয়। কিন্তু হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ ২৫ এপ্রিল কোনো চিকিৎসক না পাঠানোয় ২৬ এপ্রিল পিন্টুকে রামেক হাসপাতালে নিয়ে চিকিৎসা দেয়া হয় এবং ওই দিনই কারাগারে ফিরিয়ে আনা হয়। যেহেতু তাকে হাসপাতালে চিকিৎসা দেয়া হয়েছিল এজন্য শনিবার চিকিৎসক রইচ উদ্দিনকে বিএনপি নেতা পিন্টুর সঙ্গে দেখা করতে দেয়া হয়নি।

তিনি বলেন, বিএনপি নেতা পিন্টু চিকিৎসা ঢাকার পিজি হাসপাতালের দেয়া চিকিৎসাপত্র অনুযায়ী চলছিলো। এতে কোনো অবহেলা হয়নি। আগামী ১১ মে তাকে ফলোআপ চিকিৎসার জন্য ঢাকায় নিয়ে যাবার ডেট নির্ধারিত ছিলো। রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের পরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল একেএম নাসির উদ্দিন জানান, পিন্টু হার্ট, ডায়াবেটিকস, ব্লাডপ্রেসার নিয়ে ভুগছিলেন। সেই সঙ্গে চোখ এবং হাড়ের জয়েন্টে সমস্যা ছিলো। ২৬ এপ্রিল তাকে হাসপাতালে নিয়ে আসা হলে সেসব পরীক্ষা নিরিক্ষা করা হয় এবং ওষুধ এডজাস্ট করে দেয়া হয়।

এ বিভাগের অন্যান্য খবর

নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৬

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি : মকিস মনসুর আহমদ, প্রধান সম্পাদক : লিয়াকত শাহ ফরিদী
সম্পাদক ও প্রকাশক : কে এ রহিম, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
কার্যালয়: ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট-৩১০০
ফোন : ০৮২১-৭২৬ ৫২৭ (নিউজ), ০১৭১২ ৮৮ ৬৫ ০৩ (সম্পাদক)
ই-মেইল: dailysylhet@gmail.com

Developed by: