সর্বশেষ আপডেট : ১৩ মিনিট ৩৩ সেকেন্ড আগে
শনিবার, ৩ ডিসেম্বর, ২০১৬, খ্রীষ্টাব্দ | ১৯ অগ্রহায়ণ ১৪২৩ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET

সুনামগঞ্জে আটককৃত বালিবাহী বলগেড, কার্গো ছেড়ে দিয়েছে পুলিশ

3.jamal-gonj-picture-23.4.14আল-হেলাল,সুনামগঞ্জ::
সুনামগঞ্জের ধোপাজান নদী হতে বালি সরবরাহকারী ২টি কার্গো ও ২টি বলগেড নৌকা আটক এর ২দিন পর ছেড়ে দিয়েছে পুলিশ। আটককৃত নৌপরিবহনগুলো হচ্ছে সুনামগঞ্জ পৌর এলাকার আরপিননগর নিবাসী ছদরুল মিয়ার পরিচালিত এম.ভি মীম ভলগেড নৌকা,সদর উপজেলার সুরমা ইউনিয়নের সদড়ঘর গ্রামের শামীম আহমদ এর এম.ভি ভাই ভাই বলগেড নৌকা ও পৌর এলাকার উত্তর আরপিননগর নিবাসী মাজহারুল ইসলামের পরিচালিত এম.ভি গ্যালাক্সি ও এম ভি হাফিজুর রহমান-৩ নামক কার্গো জাহাজ। শুক্রবার সকাল ৭টায় সদর থানা ওসি (তদন্ত) আব্দুল হাই এর নেতৃত্বে একদল পুলিশ সুরমা নদীতে অভিযান চালিয়ে বালিভর্তি ৩টি পরিবহন আটক করেন।

পরে স্থানীয় শহর পুলিশ ফাড়ির ঘাটে দিনভর বেধে রাখেন পরিবহনগুলো। এতে ক্ষতিগ্রস্থ বালি সরবরাহকারী ব্যাবসায়ীরা জানান,ধোপাজান নদী বালিমহালের অবৈধ ইজারাদার তফজ্জুল হোসেনের বিরুদ্ধে বৃহস্পতিবার জেলা প্রশাসকের কাছে লিখিত অভিযোগ দায়ের করার আক্রোশে ক্ষুব্দ তফজ্জুল হোসেন থানা পুলিশকে ব্যাবহার করে আমাদের বালিবাহী পরিবহনগুলো আটক করেছেন। ব্যাবসায়ীরা বিষয়টি সুনামগঞ্জ ৪ আসনের এমপি এডভোকেট সাংবাদিক পীর ফজলুর রহমান মিসবাহ, জেলা প্রশাসক শেখ রফিকুল ইসলাম, সদর উপজেলা আওয়ামীলীগ সভাপতি দক্ষিণ সুনামগঞ্জ উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান হাজী আবুল কালাম,সুনামগঞ্জ পৌরসভার মেয়র আয়্যুব বখত জসলুল,সদর উপজেলা নির্বাহী অফিসার তাহসিনা বেগম ও ধোপাজান নদী বালি পাথর মহালের প্রকৃত ইজারাদার আপ্তাব মিয়াসহ জেলার গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গকে অবগত করেন। এর আগে বৃহস্পতিবার চাঁদা না দেয়ার কারনে তফজ্জুল হোসেন একদল ভাড়াটে মাস্তান নিয়ে মাজহারুল ইসলামের পরিচালিত এম ভি হাফিজুর রহমান-৩ নামক বালু বহনকারী কার্গোটি আটক করেন। এমপি,মেয়র ও উপজেলা চেয়ারম্যানের আহবানে পুলিশ বৃহস্পতিবার এম.ভি হাফিজুর রহমান-৩ নামক বালিবাহী কার্গোটি উদ্ধার করে গন্তব্যে ছেড়ে দেয়ার ব্যাবস্থা করলেও শুক্রবার পৃথক ৩টি বালিবাহি ভলগেড ও জাহাজ যথাস্থানে আটক রাখে।

ব্যাবসায়ীরা শনিবারের মধ্যে তাদের পণ্যবাহী ভলগেড ও কার্গো জাহাজ না ছাড়লে কঠোর আন্দোলনের কর্মসুচি দেবেন বলে সাংবাদিকদের অবগত করে আন্দোলনের প্রস্তুতি নিলে রবিবার সকালে বাকী ৩টি পরিবহন ছেড়ে দেয় পুলিশ। সুনামগঞ্জ বালি পাথর ব্যাবসায়ী সমিতি লিমিটেড এর সভাপতি কামরুজ্জামান দ্বারা,সেক্রেটারী আতাহার আলী ও ব্যাবসায়ী নেতা সাজুল মিয়া জানান,জেলা প্রশাসক ধোপাজান নদী বালি মহালটিকে উন্মুক্ত ঘোষণা করেছেন। তিনি জেলা প্রশাসনের লিখিত অনুমতি ব্যাতিরেকে কাউকেই রয়েলিটি বা চাঁদা দিতে নিষেধ করেছেন। অবৈধ ইজারাদাররা যতই বাড়াবাড়ি করেননা কেন আমরা কাউকেই কোন চাঁদা না দেয়ার জন্য ব্যাবসায়ীদেরকে নিষেধ করেছি। জানতে চাইলে সদর থানা এসআই নজরুল ইসলাম বলেন, রয়েলিটি আদায়ের নামে অবৈধ ইজারাদার কর্তৃক জোড়পূর্বক চাঁদা আদায়ের প্রেক্ষিতে উত্তেজনার প্রেক্ষাপটে আমরা ৩টি পরিবহন আটক করেছিলাম। মালিকানা যাছাই এর পর বালি বহনকারী পরিবহনগুলো আমরা শনিবার রাতেই ছেড়ে দিয়েছি। এর আগে অবৈধ ইজারাদার কর্তৃক আটককৃত কার্গোটি ছেড়ে দেয়ার জন্য অবৈধ ইজারাদারকে চাপ প্রয়োগ করলে তারা ঐ কার্গোটিও ছেড়ে দিয়েছে। এরপর রবিবার মুক্ত ভলগেড ও কার্গোগুলো সকালে গন্তব্যের উদ্দেশ্যে সুনামগঞ্জ ছেড়ে গেছে।

এ বিভাগের অন্যান্য খবর

নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৬

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি : মকিস মনসুর আহমদ, প্রধান সম্পাদক : লিয়াকত শাহ ফরিদী
সম্পাদক ও প্রকাশক : কে এ রহিম, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
কার্যালয়: ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট-৩১০০
ফোন : ০৮২১-৭২৬ ৫২৭ (নিউজ), ০১৭১২ ৮৮ ৬৫ ০৩ (সম্পাদক)
ই-মেইল: dailysylhet@gmail.com

Developed by: