সর্বশেষ আপডেট : ২ মিনিট ৪৬ সেকেন্ড আগে
রবিবার, ১১ ডিসেম্বর, ২০১৬, খ্রীষ্টাব্দ | ২৭ অগ্রহায়ণ ১৪২৩ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET

বিশেষ পানীয় খেয়ে চোরের পেট থেকে বের হলো সোনার গহনা

34.নিউজ ডেস্ক ::
ভারতে একজন সন্দেহভাজন চোরকে জোর করে ৬০টি কলা এবং বিশেষ পানীয় খাওয়ানোর পর তার পেটে আটকে থাকা সোনার গহনা মলের সাথে বেরিয়ে আসে। গত সোমবার অনিল ইয়াদব একজন মহিলার গলা থেকে ৬৩ হাজার রুপি দামের মালা ছিনিয়ে নেয় বলে অভিযোগ করা হয়। মুম্বাইয়ের এক হাসপাতালে ইয়াদবের শরীর এক্স-রে মেশিন দিয়ে স্ক্যান করলে তার পেটে গহনাটি আটকে থাকতে দেখা যায়। হাসপাতালে ডাক্তাররা অনিল ইয়াদবকে চারবার ‘এনেমা’ দেন– অর্থাৎ তার বায়ুদেশ দিয়ে সিরিঞ্জের মাধ্যমে বিশেষ তরল পদার্থ তার পেটে দেওয়া হয়।

তবে গহনার মালিক এখন বলছেন তিনি এই গহনা আর ব্যবহার করবেন না। রাজাশ্রী মায়াকার ‘মিড ডে’ পত্রিকার সংবাদদাতা সৌরভ ভাকতানিয়াকে জানিয়েছেন, তিনি মালাটা সোনার দোকানে নিয়ে যাবেন, এবং সেটা গলিয়ে নতুন গহনা তৈরি করতে বলবেন।

হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ বলেন, বৃহস্পতিবার সকালে মলত্যাগের সময় গহনাটি ইয়াদবের শরীর থেকে বেরিয়ে আসে। এই কাজ সম্ভব করার জন্য তাকে কলা, দুধ এবং এন্টাসিড খাওয়ানো হয়েছিল। ডাক্তাররা বলেন, মালার সাথে বড় আকারের একটি লকেট থাকায় সেটা আটকে যাচ্ছিলো এবং পুরোপুরি বের হতে অনেক সময় লাগে।

মুম্বাই পুলিশ জানায়, ৩০-বছর বয়স্ক ইয়াদব শহরের সিওন এলাকায় ৫২-বছর বয়স্ক মিসেস মায়াকারের গলা থেকে ২৫ গ্রাম ওজনের মালাটি ছিনিয়ে নেয়। এসময় এলাকার লোকজন এবং পুলিশ ধাওয়া দিয়ে তাকে ধরে ফেলে। কয়েকজন ধাওয়াকারী পরে বলেন, ইয়াদব আটক হবার সময় মালাটি গিলে ফেলেছেন। তখন তাকে হাসপাতালে নিয়ে এক্স-রে করা হয়।

তবে কিছু ডাক্তার বলেছেন জোর করে মলত্যাগের জন্য কলা না ব্যবহার করে ওষুধ ব্যবহার করা উচিত ছিল। তাতে কাজটা আরো দ্রুত এবং সহজ হতো।

সূত্র: বিবিসি

নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৬

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি : মকিস মনসুর আহমদ, প্রধান সম্পাদক : লিয়াকত শাহ ফরিদী
সম্পাদক ও প্রকাশক : কে এ রহিম, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
কার্যালয়: ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট-৩১০০
ফোন : ০৮২১-৭২৬ ৫২৭ (নিউজ), ০১৭১২ ৮৮ ৬৫ ০৩ (সম্পাদক)
ই-মেইল: dailysylhet@gmail.com

Developed by: