সর্বশেষ আপডেট : ৪ ঘন্টা আগে
রবিবার, ১১ ডিসেম্বর, ২০১৬, খ্রীষ্টাব্দ | ২৭ অগ্রহায়ণ ১৪২৩ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET

২৩৫ কোটি টাকা কাটা যাচ্ছে পদ্মা সেতুর বাজেটে

152567b596cf50cf679e3ee416213709-25নিউজ ডেস্ক::
পদ্মা সেতু প্রকল্পের জন্য বরাদ্দ করা ২০ হাজার ৫০৭ কোটি টাকা থেকে ২০১৪-১৫ অর্থবছরের সংশোধিত বাজেটে ২৩৫ কোটি টাকা বাদ দেওয়া হচ্ছে। প্রকল্প বাস্তবায়নে দেরি হওয়ার কারণে এই এই টাকা কাটা হচ্ছে বলে জানিয়েছেন সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তারা। সেতু বিভাগের সর্বশেষ পর্যালোচনা অনুযায়ী গত মার্চ পর্যন্ত প্রকল্পটির মূল নির্মাণ কাজের মাত্র ৫ শতাংশ শেষ হয়েছে।

সম্পূরক অনুমোদন এবং বরাদ্দ দাবিসহ অর্থ বিভাগ বৃহস্পতিবার এই প্রকল্পের ২০১৪-১৫ অর্থবছরের সংশোধিত বাজেট প্রকাশ করেছে। বিষয়টি সম্পর্কে নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক অর্থ বিভাগের এক কর্মকর্তা বলেন, প্রকল্পটি রাজনৈতিক দিক থেকে গুরুত্বপূর্ণ। তাই খুব বেশি অর্থ কমানো হয়নি। এমনকি প্রধানমন্ত্রী স্বয়ং প্রকল্প বরাদ্দ কমানোর বিরোধী।

সংশোধিত বাজেট অনুযায়ী, প্রকল্পটির মূল ব্যায় ৭ হাজার ৭৬১ কোটি টাকা থেকে ১৭৯ কোটি টাকা কমিয়ে ৭ হাজার ৫৮২ কোটি টাকা নির্ধারণ করা হয়েছে। এছাড়া পদ্মা সেতু প্রকল্পের জন্য বর্তমান রাজস্ব-ব্যয় বাজেট বরাদ্দের ৩৩৮ দশমিক ৭৮ কোটি টাকা থেকে ৫৬ দশমিক ৪২ কোটি টাকা কমানো হয়েছে। ফলে পদ্মাসেতু প্রকল্পের জন্য অাগের ৮ হাজার ১০০ কোটি টাকা থেকে বরাদ্দ কমে দাঁড়িয়েছে ৭ হাজার ৮৬৫ কোটি টাকা।

বিষয়টি নিয়ে বৃহস্পতিবার এই প্রকল্পের পরিচালক শফিকুল ইসলাম বলেন, ‘আমরা এই ব্যয়হ্রাসের প্রস্তাব করিনি। এটি সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ ও একটি প্রশাসনিক বিষয়।’ তিনি জানান, সেতুর মূল নির্মাণ কাজ শুরু হবে আগামী অক্টোবর থেকে। তাই পাইলিংয়ের জন্য এখন ২৪০০ টন ওজনের একটি হ্যামার প্রয়োজন হবে। আশা করা হচ্ছে মে মাসের মধ্যেই তা জার্মানি থেকে এসে পৌঁছবে। এছাড়া সেতুর টেস্ট পাইলিং গত জানুয়ারি থেকেই শুরু হয়েছে।

সেতু বিভাগের পর্যালোচনা অনুযায়ী জানা গেছে, পদ্মা সেতুর জাজিরা সংযোগ সড়কের ৪০ শতাংশের, মাওয়া সংযোগ সড়কের ৪০ শতাংশের, এবং সার্ভিস এরিয়া-২-এর কাজ ২৮ শতাংশের কাজ সম্পন্ন হয়েছে। এছাড়া নদীশাসন কাজ এগিয়েছে মাত্র ৩ শতাংশ।

কাজের ধীর গতি সম্পর্কে শফিকুল বলেন, ‘প্রথম পর্যায়ের জটিল কাজগুলো সম্পন্ন না হলে আমরা পদ্মা সেতুর মূল অগ্রগতি পরিমাপ করতে পারব না।’

গত ১০ সেপ্টেম্বর চীনের সিনোহাইড্রো নামে একটি প্রতিষ্ঠানকে এই প্রকল্পে নদী শাসনের কাজ দেয় সরকার। এরও আগে গত জুনে প্রায় ৬ দশমিক ১৫ কিলোমিটার সেতু স্প্যান তৈরির জন্য সরকার চায়না মেজর ব্রিজ ইঞ্জিনিয়ারিং কোম্পানির সঙ্গে একটি চুক্তি স্বাক্ষর করে। ২০১৮ সালে এই প্রকল্পের কাজ শেষ হওয়ার কথা রয়েছে।

এ বিভাগের অন্যান্য খবর

নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৬

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি : মকিস মনসুর আহমদ, প্রধান সম্পাদক : লিয়াকত শাহ ফরিদী
সম্পাদক ও প্রকাশক : কে এ রহিম, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
কার্যালয়: ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট-৩১০০
ফোন : ০৮২১-৭২৬ ৫২৭ (নিউজ), ০১৭১২ ৮৮ ৬৫ ০৩ (সম্পাদক)
ই-মেইল: dailysylhet@gmail.com

Developed by: