সর্বশেষ আপডেট : ৭ মিনিট ৮ সেকেন্ড আগে
শনিবার, ৩ ডিসেম্বর, ২০১৬, খ্রীষ্টাব্দ | ১৯ অগ্রহায়ণ ১৪২৩ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET

ভেঙ্গে গেছে তাহিরপুরে নির্মাণাধীন ফুটব্রিজ : পালিয়ে বেড়াচ্ছেন ঠিকাদার

Sunamganj--সুনামগঞ্জ সংবাদদাতা::
সুনামগঞ্জের তাহিরপুর উপজেলায় ত্রাণ ও পূণর্বাসন অধিদপ্তরের অর্থায়নে নির্মানাধীন একটি ফুট ব্রিজের (বক্স কালভার্ট) উপরের অংশ ছাঁদ ঢালাইয়ের দ্বিতীয় দিনেই ভেঙ্গে পড়েছে। পুরাতন রড ও নিম্নমানের নির্মাণ সামগ্রী দিয়ে ঐ ব্রীজের নির্মাণ কাজ পরিচালনা করায় এ অচলাবস্থার সৃষ্টি হয়েছে বলে স্থানীয় লোকজন অভিযোগ করেছেন। জানা যায়,২০১৪-১৫ অর্থ বছরে বাদাঘাট ইউনিয়নের দিগিরপাড় সড়কে ৭০ লক্ষ টাকা ব্যায়ে ২টি বক্স কালভার্ট ব্রীজের কার্যাদেশ পান সুনামগঞ্জের বড়পাড়া নিবাসী ঠিকাদার রেনু মিয়া ও জামালগঞ্জের নবী হোসেন। এর মধ্যে ৩৩ লক্ষ টাকা ব্যায়ে নির্মাণাধীন দিগীরপাড় গ্রামের সামনের ব্রিজটি ২৮ এপ্রিল মঙ্গলবার বিকাল সোয়া ১টায় ভেঙ্গে পড়ে।

বুধবার ঢালাইয়ের দ্বিতীয় দিনে ভাঙ্গা ব্রিজের কাজ পুনরায় শুরু না করে জনরোষের কারনে ঠিকাদার,রাজমিস্ত্রী ও দিনমজুররা পালিয়ে যান। স্থানীয় পাটানপাড়া গ্রামের ইউপি সদস্য মোঃ নিজাম উদ্দিন ও থানা শ্রমিক লীগের সভাপতি আব্দুল হেকিম জানান,প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তার কোনপ্রকার তদারকী ছাড়া ঠিকাদার রেনু মিয়া নি¤œমানের বালু পাথর সিমেন্ট ও পুরাতন রড দ্বারা স্থানীয় জনসাধারনের তীব্র আপত্তির মুখে ঢালাইয়ের কাজ সম্পন্ন করতে গেলে ব্রিজটি ভেঙ্গে পড়ে। অভিযোগের ব্যাপারে জানতে চাইলে ঠিকাদার রেনু মিয়া বলেন,আমার নির্মিত ব´ কালভার্ট ভাঙ্গেনি ভেঙ্গেছে জামালগঞ্জের ঠিকাদার নবী হোসেনের নির্মিত কালভার্টটি। এছাড়া আমি পুরাতন রড বা সরঞ্জামাদি দিয়ে কাজ করিনি। পুরাতন মালামাল ক্রয় করেছেন নবী হোসেন। আমার সাইডে আমার ভাই ম্যানেজার মিস্ত্রী সবই আছে। কেউ পালিয়ে যায়নি। ১৫ মার্চ থেকে ব্রিজের কাজ শুরু করেছি। মঙ্গলবার আমার নির্মিত ব্রিজের সেন্টারের কাজ ফেইল করায় কিছুটা সমস্যার সৃষ্টি হয়েছে।

নির্ধারিত সময়ের মধ্যেই আমরা এাঁ ঠিক করে নেবো। পার্শ্ববর্তী বক্স কালভার্টের ঠিকাদার এম নবী হোসেন এর প্রতিনিধি ময়না মিয়া বলেন, আমি ১৮ মার্চ বৃহস্পতিবার আমাদের বক্স কালভার্টের কাজ শুরু করে শতভাগ কাজ শেষ করেছি এবং কর্তৃপক্ষকে আমার নির্মিত কালভার্ট বা ফুটব্রীজ সমজিয়ে দিয়েছি। আমরা কাজে দুই নম্বরী করিনি। কিন্তু রেনু মিয়া তার দীগিরপাড় বক্স কালভাটের্র কাজে দূর্বল সাটার বর্গা ও রডসহ যাবতীয় হাল্কা সরঞ্জামাদি ব্যবহার করেছেন বলেই তার কালভার্টটি ভেঙ্গে গেছে। বৃহস্পতিবার দুপুরে উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোঃ ইকবাল হোসেন বলেন,ঘটনার সংবাদ জেনে আমি তাৎক্ষনিকভাবে উপজেলা সহকারী কমিশনার ভূমি ও পিআইওকে ঘটনাস্থলে পাটিয়েছি। বিস্তারিত জেনে ঠিকাদারের বিরুদ্ধে অবশ্যই ব্যাবস্থা নেবো।

এ বিভাগের অন্যান্য খবর

নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৬

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি : মকিস মনসুর আহমদ, প্রধান সম্পাদক : লিয়াকত শাহ ফরিদী
সম্পাদক ও প্রকাশক : কে এ রহিম, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
কার্যালয়: ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট-৩১০০
ফোন : ০৮২১-৭২৬ ৫২৭ (নিউজ), ০১৭১২ ৮৮ ৬৫ ০৩ (সম্পাদক)
ই-মেইল: dailysylhet@gmail.com

Developed by: