সর্বশেষ আপডেট : ১৩ মিনিট ৩৪ সেকেন্ড আগে
মঙ্গলবার, ৬ ডিসেম্বর, ২০১৬, খ্রীষ্টাব্দ | ২২ অগ্রহায়ণ ১৪২৩ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET

সাইফুর রহমানের নাম বদলে এখন ন্যাচারাল পার্ক

7c8c51696ac5b9495de3f692031e8395 copyডেইলি সিলেট ডেস্ক::
নাগরিক বিনোদনের জন্যে দক্ষিণ সুরমায় নির্মাণ হচ্ছিল এম. সাইফুর রহমান শিশুপার্ক। বিএনপি জোট ক্ষমতা ছাড়ার পরই এর নির্মাণ কাজ বন্ধ হয়ে যায়। ফেরত যায় বাজেটের ১২ কোটি টাকাও। নির্মাণ কাজ বন্ধের সাত বছর পর পার্কটি চালু করতে অর্থমন্ত্রণালয় থেকে একটি চিঠি ইস্যু হয়েছে। এতে পার্ক চালুর ব্যাপারে নির্দেশনা থাকলেও থাকছে না সাবেক জোট সরকারের অর্থ ও পরিকল্পনা মন্ত্রী এম সাইফুর রহমানের নাম। সিলেট ন্যাচারাল পার্ক নামে এটি খুব শিগগিরই উদ্বোধন হতে যাচ্ছে।
সিলেট সিটি করপোরেশন সূত্রে জানা গেছে, চারদলীয় জোট সরকারের আমলে বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ও সাবেক অর্থমন্ত্রী এম. সাইফুর রহমানের ঐকান্তিক ইচ্ছায় দক্ষিণ সুরমার আলমপুরে ৩ একর ৭৭ শতক জায়গার ওপর পার্ক নির্মাণের কাজ শুরু হয়। পার্কের নামকরণ করা হয় তৎকালীন অর্থ ও পরিকল্পনামন্ত্রী এম. সাইফুর রহমানের নামে। স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয়ের অধীনে প্রকল্পটি বাস্তবায়ন করছিল সিলেট সিটি করপোরেশন। প্রথম দফায় স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয় থেকে পার্কের জন্য ১৭ কোটি ৬৫ লাখ টাকা বরাদ্দ দেওয়া হয়। ২০০৬ সালের জুলাই থেকে ২০০৮ সালের জুন পর্যন্ত ওই বরাদ্দ থেকে ৫ কোটি ২৫ লাখ টাকা খরচ করে সিটি করপোরেশন। এ টাকায় জমি অধিগ্রহণ, মাটি ভরাট, অভ্যন্তরীণ লাইটিং, গাছের চারা লাগানো এবং সীমানা প্রাচীর ও টিকিট কাউন্টার নির্মাণ কাজ সম্পন্ন করা হয়।
নির্ধারিত সময়ের মধ্যে পুরো কাজ সম্পন্ন করতে না পারায় ২০০৮ সালের জুলাইয়ে বরাদ্দের ১২ কোটি ৪০ লাখ টাকা ফেরত যায়। টাকা ফেরত যাওয়ায় রাইড বসানো ও সিলেট-জকিগঞ্জ সড়কের সঙ্গে পার্কের সংযোগ সড়ক (এপ্রোচ রোড) নির্মাণসহ পূর্ণাঙ্গ প্রস্তুতি সম্পন্ন হয়নি। এরপর থেকেই পরিত্যক্ত অবস্থায় রয়েছে সেটি। এখন পার্কের ভেতর জমেছে লম্বা লম্বা ঘাস। অনেক সময়ই সেখানে স্থানীয়দের গরু-ছাগল চড়ানো হয় বলে অভিযোগ রয়েছে। তবে, সিটি করপোরেশন বলছে, অসম্পূর্ণ পার্কটির রক্ষণাবেক্ষণের জন্যে সার্বক্ষণিক একজন পাহারাদার নিয়োগ করা আছে।
সাত বছর পর সেই পার্কটি চালুর ব্যাপারে উদ্যোগ নিয়েছে সিলেট সিটি করপোরেশন। এতে সায় দিয়েছেন বর্তমান অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আব্দুল মুহিত। এ ব্যাপারে তিনি একটি ডিও লেটার (ডেমি অফিস লেটার) প্রেরণ করেছেন বলে সিটি করপোরেশন সূত্র জানিয়েছে। তবে, চিঠিটি এখনো সিটি করপোরেশনের হস্তগত হয়নি।
অর্থমন্ত্রীর ডিও লেটারের ব্যাপারে তথ্য দিয়ে সিলেট সিটি করপোরেশনের প্রধান প্রকৌশলী (ভারপ্রাপ্ত) নূর আজিজুর রহমান জানান, পার্কটি চালুর ব্যাপারে অর্থমন্ত্রণালয় থেকে একটি ডিও লেটার পাঠানো হয়েছে বলে আমরা জানতে পেরেছি। চিঠিটি ২/১ দিনের মধ্যে তাদের হস্তগত হবে বলে তিনি আশা করছেন। নুর আজিজ জানান, পার্কটি চালু করতে খুব বেশি কিছুর দরকার নেই। সব কিছুই গোছানো আছে জানিয়ে তিনি বলেন, এখন পাঁচ-সাত কোটি টাকা হলেই রাইড বসিয়ে পার্কটি চালু করা যাবে।
সাইফুর রহমানের নাম বাদ দেয়ায় সাবেক সংসদ সদস্য দিলদার হোসেন সেলিম বলেন, দেশের বিভিন্ন স্থাপনা থেকে আওয়ামী লীগ সরকার শহীদ প্রেসিডেন্ট জিয়াউর রহমানের নাম যেভাবে বাদ দিচ্ছে; তারই ধারাবাহিকতায় সিলেটের স্থাপনা থেকে এম সাইফুর রহমানের নাম বাদ দেওয়া হচ্ছে। অডিটরিয়াম থেকেও সাইফুর রহমানের নাম বাদ দেওয়ার প্রসঙ্গ উল্লেখ করে তিনি বলেন, এভাবে স্থাপনা থেকে নাম বাদ দিয়ে জনগণের অন্তর থেকে সাইফুর রহমানের নাম মোছা যাবে না। বিএনপি ক্ষমতায় গেলে সাইফুর রহমানের নাম প্রতিস্থাপন করা হবে কি না, তা সময়ই বলে দেবে বলে মন্তব্য করেন তিনি।

নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৬

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি : মকিস মনসুর আহমদ, প্রধান সম্পাদক : লিয়াকত শাহ ফরিদী
সম্পাদক ও প্রকাশক : কে এ রহিম, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
কার্যালয়: ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট-৩১০০
ফোন : ০৮২১-৭২৬ ৫২৭ (নিউজ), ০১৭১২ ৮৮ ৬৫ ০৩ (সম্পাদক)
ই-মেইল: dailysylhet@gmail.com

Developed by: