সর্বশেষ আপডেট : ১৫ মিনিট ০ সেকেন্ড আগে
সোমবার, ৫ ডিসেম্বর, ২০১৬, খ্রীষ্টাব্দ | ২১ অগ্রহায়ণ ১৪২৩ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET

ওসমানীনগরের মোহাম্মদপুর সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ে যেকোন বড় দুর্ঘটনার আশংকা

sylhetওসমানীনগর সংবাদদাতা::
ওসমানীনগর উপজেলার মোহাম্মদপুর সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয় নানা সমস্যার মধ্যে শিশুরা লেখাপড়া করছে। শ্রেনীকক্ষ সংকট পর্যাপ্ত বেঞ্চ ও খেলাধূলার কোন ব্যবস্থা না থাকায় ব্যহত হচ্ছে শিক্ষা কার্যক্রম। ঐতিহ্যবাহী এ সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়টির এমন করুণ চিত্র যেন শিক্ষা বিস্তারে অন্তরায় হয়ে দাঁড়িয়েছে। এ ব্যাপারে সংশি¬ষ্ট বিভাগকে বার বার অবগত করেও কোন কাজ হচ্ছে না। পরিত্যক্ত ঘরটিও দীর্ঘদিন হলেও সরকারি ভাবে ভেঙ্গে ফেলার কোন উদ্যোগ গ্রহণ করা হয়নি। বিদ্যালয় চলাকালে কোমলমতি ছাত্র-ছাত্রীরা সবার অজান্তেই ওই কক্ষে খেলাধুলা করে। যার কারণে যে কোন বড় দুর্ঘটনা ঘটে যেতে পারে।

উপজেলার মোহাম্মদপুর আবাসিক এলাকায় স্থাপিত এ বিদ্যালয়টি শিক্ষার্থীকে ভর্তি করে অভিভাবকরাও এখন হতাশ তাদের সন্তানদের ভবিষ্যৎ নিয়ে। স্কুলের শ্রেনী কক্ষ সংকটের কারনে অনেক সময় গাছতলায় বসে সময় কাটাচ্ছে শিক্ষার্থীরা। বেঞ্চের অভাবে কোমলমতি শিশুদের মাটিতে বসেই ক্লাস করতে হচ্ছে।

বিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ জানায়,স্বাধিনতা প্রতিষ্ঠার পর এলাকাবাসির উদ্যোগে বিদ্যালয় স্থাপিত হয়। পরবর্তীতে ১৯৮৬ সালে মোহাম্মদপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় প্রতিষ্ঠা পায়। সরকারী করণের পর মূল ভবন ঝড়ে ভেঙ্গে গেলে ১৯৯৫ সালে প্রায় ৩০ ফুট লম্বা একটি টিনসেট ঘর নির্মান করে চলছে শিক্ষা কাযক্রম। ইতিমধ্যে বিদ্যালয়ের চালের টিন নষ্ট হয়ে গেলেও প্রবাসী জুলহাস উদ্দিনের অর্থায়নে নতুন টিন লাগিয়ে মেরামত করা হয়। শাহিন আহমদ, আতিকুর রহমান ও আতাউর রহমানসহ প্রবাসীরা উন্নয়ন কমিটি গঠন করে বিদ্যালয়ের সামনের মাঠ ভরাটসহ পরিত্যাক্ত ভবন ভেঙ্গে নতুন ভবন নির্মানের উদ্যোগ নিলেও সরকারী প্রতিষ্ঠান থাকায় প্রশাসনিক নানা ভেড়াজালের কারণে বিদ্যালয়টি সংস্কার করা সম্ভব হচ্ছে না। যেখানে কমপক্ষে ৭টি শ্রেনী কক্ষের প্রয়োজন সেখানে বর্তমানে বিদ্যালয়ে রয়েছে তিনটি শ্রেনী কক্ষ। শ্রেনীকক্ষের আয়তন প্রায় কুবুতরের কোপের মতো। অন্যদিকে নেই পয়োজনীয় সংখ্যক বেঞ্চ। ফলে অনেক শিক্ষার্থী নিচে বসে ক্লাস করছে। আর যারা গাদাগাদি করে বেঞ্চে বসার সুযোগ পাচ্ছে; তারা অনেকেই দেখতে পায়না ব¬াকবোর্ড। বিদ্যালয়ের এ বেহাল অবস্থা থাকায় পরিত্যাক্ত ভবন যে কোন সময় ভেঙে পড়ে বড় ধরনের দুর্ঘটনা ঘটার আশঙ্কা প্রকাশ করছেন বিদ্যালয় সংশ্লিষ্টরা।

বিদ্যালয়ের পঞ্চম শ্রেনীর শিক্ষার্থী সুমাইয়া সিদ্দিকা ও আনোয়ার মিয়া, চতুর্থ,শ্রেনীর ছাত্রী নাদিয়া আক্তার জানায়, পর্যাপ্ত শ্রেনী কক্ষ না থাকায় আমরা যথা সময়ে বিদ্যালয়ে গিয়েও বাহিরে দাড়িয়ে থাকতে হয়। বিদ্যালয়ের কোন খেলার মাঠ না থাকায় আমরা খেলাধূলা করতে পারি না। আমাদের জন্য নেই টয়লেটের ব্যাবস্থাও।

বিদ্যালয়ের ২য় শ্রেনীর ছাত্রী মাইশা সিদ্দিকা জানায় শ্রেনী কক্ষে জায়গা না হওয়ায় আমরা গাছের নিচে বসে থাকি। শিশু শ্রেনীর পাঠ দান শেষ হওয়ার পর ম্যাডামরা আমাদের কক্ষে নিয়ে গিয়ে পড়িয়ে থাকেন।

বিদ্যালয় পরিচালনা কমিটির সভাপতি আনোয়ার হোসেন ও সদস্য রুহেল আহমদ জানান, গত কয়েক বছর থেকে সমাপনি পরীক্ষায় শতভাগ পাশ থাকলেও শ্রেনীকক্ষ সংকটের কারনে শিক্ষার্থীদের পাঠদান কাযক্রম ব্যাহত হচ্ছে। বিদ্যালয়ের সামনে যথেষ্ট জায়গা থাকলে মাটি ভরাটের অভাবে জায়গাগুলো ব্যাবহারে অনুপযোগী পড়েছে। এলাকার প্রবাসীরা উন্নয়ন কমিটি গঠন করে বিদ্যালয় সংস্কার কাজ করতে চাইলেও প্রশাসনিক বেড়া জালের কারণে কাজ করা যাচ্ছে না। বিদ্যালয়ের নতুন ভবন নির্মানের জন্য আমরা দীর্ঘনি ধরে সংশি¬ষ্ট কর্তৃপক্ষের দ্বারে দ্বারে ধর্না দিলেও কাজ হচ্ছে না। ঝড়ে টিন খুলে উড়ে যে কোন সময় বড় ক্ষতি ও দেওয়াল ভেঙ্গে পড়তে পারে।

বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক সেলিনা সুলতানা জানান, বিদ্যালয়টির শিশুদের খেলার জন্য কোন মাঠ নেই। বিদ্যালয়ের সামনে সামান্য ফাকা জায়গা টুকুও ভরাট না থাকায় ব্যবহারে অনুপযোগী হয়ে আছে। শ্রেনী কক্ষ সংকটরে কারণে এক সঙ্গে সব শ্রেনীর শিক্ষাথী দের ক্লাস নেয়া সম্ভব হয় না। রাতে টিনের চালের ভিতর দিয়ে ইদুর বাদুর প্রবেশ করে প্রয়োজনীয় কাগজ পত্র নষ্ট করাসহ নানা ভাবে পরিবেশ নষ্ট করছে।
এ ব্যাপারে উপজেলা শিক্ষা কর্মকর্তা কামরুজ্জামান বলেন,আমি এ উপজেলায় নতুন এসেছি। তবে খোঁজ নিয়ে দ্রুত উক্ত বিদ্যালয়ের সমস্য দূর করার উদ্যোগ গ্রহন করা হবে।

এ বিভাগের অন্যান্য খবর

নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৬

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি : মকিস মনসুর আহমদ, প্রধান সম্পাদক : লিয়াকত শাহ ফরিদী
সম্পাদক ও প্রকাশক : কে এ রহিম, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
কার্যালয়: ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট-৩১০০
ফোন : ০৮২১-৭২৬ ৫২৭ (নিউজ), ০১৭১২ ৮৮ ৬৫ ০৩ (সম্পাদক)
ই-মেইল: dailysylhet@gmail.com

Developed by: