সর্বশেষ আপডেট : ৫ সেকেন্ড আগে
মঙ্গলবার, ৬ ডিসেম্বর, ২০১৬, খ্রীষ্টাব্দ | ২২ অগ্রহায়ণ ১৪২৩ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET

বড়লেখায় অন্যের ভূমির গাছ বিক্রির ঘটনায় দু’পক্ষের মধ্যে উত্তেজনা

unnamed (16)বড়লেখা প্রতিনিধি:
মৌলভীবাজারের বড়লেখায় ভুমির মালিক না হওয়া সত্ত্বেও বিভিন্ন প্রজাতির লক্ষাধিক টাকার গাছ বিক্রি করে দিলেন স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যানের আত্মীয় পরিচয় দানকারী জনৈক জয়নুল ইসলাম। এ ঘটনায় পুলিশ বিক্রিত ৪২ টি গাছ জব্ধ করার ৪দিনেও বিষয়টি নিষ্পত্তি না হওয়ায় এলাকায় দুইপক্ষের মধ্যে উত্তেজনা চলছে।

সরেজমিন ও থানায় লিখিত অভিযোগ সূত্রে জানা গেছে, উপজেলার সুজানগর ইউনিয়নের সালদিগা গ্রামের মাসুদুর রহমান নিজের ক্রয় করা কামিলপুর গ্রামে দেড় একর টিলাভূমিতে কাঠাল, আম, আকাশি, মেনজিয়ামসহ বিভিন্ন প্রজাতির গাছ রোপণ করেন। সম্প্রতি টিলার গাছগুলো দক্ষিণভাগ ইউপি চেয়ারম্যানের আত্মীয় পরিচয় দানকারী কামিলপুর গ্রামের মৃত আকদ্দস আলীর ছেলে জয়নুল ইসলাম ৫০ টাকায় বিক্রি করে দেন।

গত ২২ এপ্রিল দুপুরে কাঁঠালতলীর কাঠ ব্যবসায়ী আক্তার হোসেন কেনা গাছ কাটতে গেলে ভূমির মালিকপক্ষ তাতে বাঁধা দিলে উত্তেজনার সৃষ্টি হয়। খবর পেয়ে বড়লেখা থানার এসআই মেহেদী হাসান ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণ করেন। ঘটনার চারদিন পরও বিষয়টি নিষ্পত্তি না হওয়ায় এলাকায় দুইটি পক্ষের মধ্যে উত্তেজনা চলছে।

গাছ বিক্রেতা জয়নুল ইসলাম জানান, ইউপি চেয়ারম্যান আজির উদ্দিনের নির্দেশে তিনি আক্তার হোসেনের নিকট গাছগুলো বিক্রি করেন। প্রতিবেশি ফরিজ উদ্দিন (৫০) জানান, টিলার মালিক মাসুদুর রহমান ও আমাদের মধ্যে সীমানা নিয়ে বিরোধ চলছিল। দুই মাস আগে ইউপি চেয়ারম্যান আজির উদ্দিনসহ গণ্যমান্য ব্যক্তিগণ তা নিষ্পত্তি করে দেন। গাছ ক্রয়কারী আক্তার হোসেন জানান, ভূমির মালিক কে, তিনি তা জানতেন না। ইউপি চেয়ারম্যান আজির উদ্দিন ও জয়নুল ইসলাম ৫০ হাজার টাকায় গাছগুলো তার নিকট বিক্রি করেন। কাটার পর জানতে পারেন ভূমির মালিক তাদের দুইজনের কেউ-ই নয়।

ইউপি চেয়ারম্যান আজির উদ্দিন জানান, ভূমিটি তার এক আত্মীয় স্টাম্পের মাধ্যমে ক্রয় করেছে। সেই সূত্রে গাছগুলো বিক্রি হয়েছে। এসআই মেহেদী হাসান জানান, অভিযোগ পেয়ে ঘটনাস্থলে গিয়ে কাটা গাছগুলো জব্দ করেছি। স্থানীয়ভাবে বিষয়টি নিষ্পত্তি না হলে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে। ভূমির প্রকৃত মালিক মাসুদুর রহমান জানান, প্রায় ১২ বছর আগে গাছগুলো আমি রোপণ করি। কিন্তু জোরপূর্বক চেয়ারম্যানের লোকজন তাদের লক্ষাধিক টাকার গাছ কেটে ফেলে। এখন ভূমি দখলের পাঁয়তারা চালানো হচ্ছে বলে তিনি অভিযোগ করেন।

এ বিভাগের অন্যান্য খবর

নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৬

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি : মকিস মনসুর আহমদ, প্রধান সম্পাদক : লিয়াকত শাহ ফরিদী
সম্পাদক ও প্রকাশক : কে এ রহিম, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
কার্যালয়: ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট-৩১০০
ফোন : ০৮২১-৭২৬ ৫২৭ (নিউজ), ০১৭১২ ৮৮ ৬৫ ০৩ (সম্পাদক)
ই-মেইল: dailysylhet@gmail.com

Developed by: