সর্বশেষ আপডেট : ৪ মিনিট ৩৭ সেকেন্ড আগে
শনিবার, ৩ ডিসেম্বর, ২০১৬, খ্রীষ্টাব্দ | ১৯ অগ্রহায়ণ ১৪২৩ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET

মৌলভীবাজারে অবৈধ ৯৩টি করাতকল

daily sylhet mb news finalপিন্টু দেবনাথ, কমলগঞ্জ::
মৌলভীবাজার জেলায় ১৫৩টি করাতকলেল মধ্যে ৯৩টি করাতকল অবৈধভাবে রয়েছে। অবৈধভাবে করাতকল থাকা সত্ত্বেও স্থানীয় প্রশাসন বন্ধ না করায় উজাড় হয়ে যাচ্ছে সংরক্ষিত বনাঞ্চল। কমলগঞ্জেরস লাউয়াছড়া জাতীয় উদ্যানসহ পাশাপাশি বিভিন্ন চা বাগানগুলোর সেডট্রি, সেগুন ও আকাশমনি গাছ অবাধে চুরি হয়ে দীর্ঘদিন ধরে বিভিন্ন স’ মিলে চিড়াই হচ্ছে।

জানা যায়, মৌলভীবাজার সংরক্ষিত বনাঞ্চলের পরিমাণ ৩১হাজার ৬.৮৪ হেক্টর বন ভূমি রয়েছে। মৌলভীবাজার জেলা সদরসহ কমলগঞ্জ, শ্রীমঙ্গল, রাজনগর , বড়লেখা, জুড়ী, ও কুলাউড়া ৭টি উপজেলায় মোট ১৫৩টি করাতকল রয়েছে। বাংলাদেশ সরকারের ১৯৯৮ সালের ৩ ডিসেম্বর সরকারের গেজেটে করাতকল স্থাপনের জন্য বিভিন্ন নীতিমালা করেছেন। নীতিমালায় উল্লেখ রয়েছে করাতকল বনাঞ্চল হতে ১০ কিলোমিটার দুরে হবে ,আর্ন্তজাতিক সীমানা হতে ১০ কিলোমিটার , উপজেলা পরিষদ হতে ১ কিলোমিটার দুরে,স্কুল-কলেজ-মাদ্রাসা এলাকায় শব্দদূষণ হয় এ রকম স্থানে করাতকল স্থাপন করা যাবে না । অন্যদিকে পরিবেশ অধিদপ্তরের ছাড়পত্র গ্রহণ বাধ্যতা মূলক করা হয়েছে। বাংলাদেশ সরকার ২০০২ সালের ১৭ জানুয়ারি অপর এক গেজেট নোটিফিকেশনে পূর্বের আদেশটি সংশোধন করে নীতিমালায় পৌরসভা হলে এই আইন প্রযোজ্য হবে না।

১৯৯৮ সালের গেজেট নোটিফিকেশনের পর বন বিভাগের নীতিমালা অনুযায়ী যে করাতকলগুলো অবৈধ ঘোষিত হবে সে গুলো ১৮০ দিনের মধ্যে বন্ধ করে দিতে হবে। শ্রীমঙ্গল বন বিভাগের মহকুমা বন কার্যালয় সূত্রে জানাযায়, রিট মামলা ও স্বত্ব মামলার কারণে ঐসময় এগুলো বন্ধ করা যায়নি। অবৈধ করাতকলের মালিকরা হাইকোর্টে রিট করলে হাইকোর্ট কাউকে ৩ মাসের জন্য আবার কাউকে মামলা নিস্পত্তি না হওয়া পর্যন্ত করাতকল বন্ধ করা যাবে না বলে আদেশ দিয়ে ছিলেন। আবার অনেকের অভিযোগ বন বিভাগ ও অবৈধ করাতকলের মালিকদের মধ্যে সুসর্ম্পক থাকায় বন বিভাগ মামলা পরিচালনায় তদারকি করছেন না অপর-পক্ষে অবৈধ করাতকলের মালিকরা মামলা পরিচালনায় উদ্যোগ গ্রহণ করছেন না। যার কারণে মামলাগুলো নিস্পত্তি হতে সময় নিচ্ছে।

কমলগঞ্জ উপজেলায় মোট করাতকলের সংখ্যা ৩৩ টি। তার মধ্যে অবৈধ্য ১৭টি, কুলাউড়ায় উপজেলায় মোট করাতকল ৫৮টি,তার মধ্যে অবৈধ্য রিট স্বত্ব মামলা ২৭টি। জুড়ী উপজেলায় ১৯টি করাতকলের মধ্যে অবৈধ ১৬টি তার মধ্যে ১টি উচ্ছেদ আর ১টি সেচ্ছায় অপসারিত। বড়লেখা উপজেলায় ৩৯টির মধ্যে অবৈধ্য ৯টি। এই অবৈধভাবে করাতকল থাকায় বনাঞ্চল উড়াজ হয়ে যাচ্ছে।

এ বিভাগের অন্যান্য খবর

নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৬

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি : মকিস মনসুর আহমদ, প্রধান সম্পাদক : লিয়াকত শাহ ফরিদী
সম্পাদক ও প্রকাশক : কে এ রহিম, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
কার্যালয়: ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট-৩১০০
ফোন : ০৮২১-৭২৬ ৫২৭ (নিউজ), ০১৭১২ ৮৮ ৬৫ ০৩ (সম্পাদক)
ই-মেইল: dailysylhet@gmail.com

Developed by: